ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধেই হিন্দু নির্যাতনের অভিযোগ

পিরোজপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০১৯, ৮:০৮ পিএম

‘আমার ভাই কেষ্ট,বেমল তারাও আসামী। তার পনেরো দিন জেল হাজদ খাইটে বাইরইছে। তাদের নামে আবারো মামলা দেচ্ছে। এখন তারা কষ্টের জ¦ালায় পলাইয়ে বেরাচ্ছে, তাদের ঘরে কোন খাওনও নাই। প্রিয় বালা এই সবকইরে দেশের বাইরে যেয়ে সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ করিছে। এভাবেই প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন তার এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী শিখা রানী রায়। এই প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে সংখ্যালঘু নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগ করেন।

এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী শিখা রানী রায় আরো অভিযোগ করে বলেন, প্রিয়া সাহার নিজস্ব কোন জমি এখানে নেই। তার পৈত্রিক জমিতে তার ভাইর একটি ঘর ছিল। কিন্তু বেশ কিছু কাল যাবদ সেই ঘরে কেউ থাকতো না। নিজেরাই এ ঘরে আগুন দিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে আসামী করে হয়রানি করতেছে। এছাড়াও তার বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে এমন মিথ্যা কখা বলে তার একটি এনজিও আছে তাতে বিদেশ থেকে টাকা আনছে।

স্থানীয় কৃষ্ণপদ রায় অভিযোগ করে জানান, দীর্ঘদিন যাবত এ এলাকায় মুসলমান-হিন্দুরা একসাথে বসবাস করছে। তবে এখানে পূর্জাপড়বনে কোন প্রকার সমস্যা হয় না। প্রিয়া বালা নিজের ভাইর জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের নামে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

শারি’ নামে বাংলাদেশের দলিত সম্প্রদায় নিয়ে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক হলেন প্রিয়া সাহা ওরফে প্রিয় বালা বিশ্বাস। তিনি বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ঢাকা থেকে প্রকাশিত ‘দলিত কন্ঠ’ নামক একটি পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক।

প্রিয়া সাহা ওরফে প্রিয় বালা বিশ্বাস (৫৪) পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার চরবানিয়ারী গ্রামের মৃত নগেন্দ্র নাথ বিশ^াসের মেয়ে। তার শ্বশুর বাড়ি যশোর জেলায়। প্রিয়ার স্বামী মলয় কুমার সাহা দুদকের সদর দফতরে সহকারি উপ-পরিচালক পদে কমর্রত রয়েছেন। তাদের বর্তমান ঠিকানা বাসা-৪৩,এএনজেড এ্যাম্বোসিয়া, ফ্লাট-বি/২, রোড-৪/এ, ধানমন্ডি,ঢাকা। তার দুই মেয়ে প্রজ্ঞা পারমিতা সাহা ও ঐশ্বর্য লক্ষ্মী সাহা যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করেন।

নাজিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অমূল্য রঞ্জন হালদার জানান, নাজিরপুরে কোন সংখ্যালঘু নির্যাতন বা গুমের ঘটনা নেই। প্রিয়া সাহার বক্তব্য নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য ও উষ্কানিমূলক।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশ সম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। এখানে কেউ ধর্মীয় বিবেচনায় নির্যাতনের শিকার হন না। পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মুসলাম-হিন্দুদের শান্তিপূর্ণ সহবস্থান অনন্ন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। নাজিরপুরের একটি হিন্দু বা অন্য কোন ধর্ম সম্প্রদায়েরর লোক গুম বা নিখোঁজ হয়নি। প্রিয়া বালার বক্তব্য অসৎ উদ্দেশ্য প্রনোদিত এবং সাম্প্রদায়িক সম্পর্ক নষ্টের উষ্কানিমূলক অপচেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
shanto ২১ জুলাই, ২০১৯, ১০:১৬ এএম says : 0
আমাদের দেশের বিচার এর যে অবস্থা তাতে কে কেও ক্ষমতাবান হলে অনেক কিছুই করতে পারে । আগে শুনতাম শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না , কিন্তু এখন সেটা উলটো শুধু মাছ ই নয় আর বড় কিছু ঢাকা যায় ।
Total Reply(1)
mohammad Sirajullah ২৪ জুলাই, ২০১৯, ৭:৩২ এএম says : 0
Correct ! Everything is possible in Bangladesh.
Rubel Shorif ২৪ জুলাই, ২০১৯, ১০:৪৬ এএম says : 0
দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র কেন?? প্রিয়া সাহা, মলয় সাহা কি বাংলাদেশে জন্মগ্রহণ করেনি?? নিজ দেশ তো মায়ের সমান! দুঃখজনক হলেও সত্য বাংলাদেশের অনেক হিন্দু (সবাই নয়) এত সম্প্রীতির মধ্যে, এত মুসলমানদের শ্রদ্ধা, ভালবাসার মধ্যে বসবাস করেও তারা নিজ দেশ বাংলাদেশকে আপণ ভাবতে পারে না। মুসলমানদের প্রতি তাদের দ্বন্দ্ব, ক্ষোভ, অবিশ্বাস, অভিযোগ! এটা সাইকোলজিক্যাল প্রবলেম!
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন