ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

মহানগর

নিজ পিস্তলে গুলিবিদ্ধ ছাত্রলীগ নেতার ইসুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রতিক্রিয়া

শাহেদ নূর | প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০১৯, ১০:২২ পিএম | আপডেট : ১২:০৯ এএম, ২২ জুলাই, ২০১৯

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ বিষয়ক উপসম্পাদক মেশকাত হোসেন নিজের পকেটে থাকা আনলক করা পিস্তলে অসাবধানতা বসত চাপ পড়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সূর্যসেন হল গেটে বন্ধুদের নিয়ে আড্ডা দেয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশিত হওয়ার পর ফেইসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ নানা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন নেটিজেনরা।

কলেজ শিক্ষক কাওসার শাহা লিখেন, ‘এরা কি ছাত্র নাকি সন্ত্রাসী? ছাত্র হলে পকেটে থাকার কথা কলম, পিস্তল কেন?

‘ভদ্রলোক বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক। এটা হয়তো প্রশিক্ষণের একটি অংশ!’ - ব্যঙ্গ করে লিখেন তাওহীদ চৌধুরী।

মামুন আহমেদ উল্লাহ লিখেছেন, ‘নামে ছাত্র! দল ছাত্রলীগ! পকেটে পিস্তল! এরা ভবিষ্যতে কি হবে সেটা বুঝতে হলে মহাজ্ঞানী হতে হবে না।’

‘বই, খাতা ও কলমের পরিবর্তে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রদের হাতে অস্ত্র ! বিষয়টা কোনভাবেই সহজ করে দেখার সুযোগ নেই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, আইন-শৃংখলাবাহিনী এবং দলীয়ভাবে এই বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে দেখা উচিত বলে আমি মনে করি। এর বিচার না হলে এরচেয়েও ভয়ংকর অনেক কিছু ঘটতে পারে। তাই চিকিৎসা শেষে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’ - লিখেছেন ঢাবি শিক্ষার্থী কামরুল ইসলাম।

আপু ইসলামের প্রশ্ন, ‘ছাত্রলীগের নেতা পিস্তল পায় কি করে? তার পিস্তলের কি লাইসেন্স আছে? যদি সে লাইসেন্স পেয়েও থাকে, কিসের ভিত্তিতে সে লাইসেন্স পেলো? সে কি বড় কোন ব্যাবসায়ী বা বড় কোন রাজনীতিবীদ? একজন ছাত্রের কেন পিস্তলের দরকার পরবে?’

‘তার পিস্তলের কি লাইসেন্স আছে, থাকলে ও কেন তাকে লাইসেন্স দেয়া হল, অবৈধ অস্ত্র রাখার কারণে তাকে কি গ্রেফতার করা হবে?’ - বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদের মন্তব্য।

উল্লেখ্য, আহত ছাত্রলীগ নেতা মেশকাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হলের আবাসিক ছাত্র। তিনি দর্শন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তার বিরুদ্ধে পূর্বেও অস্ত্র ব্যবহার ও অস্ত্র বহনের অভিযোগ উঠেছিলো। ২০১৪ সালে মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ৫৭২ নম্বর কক্ষ ভেঙে চুরির ঘটনায় তাকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করেছিলো বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
KHAN MOHD LIAQUAT ALI ২২ জুলাই, ২০১৯, ৮:৩৫ এএম says : 0
Chor become dakat.
Total Reply(0)
ash ২৩ জুলাই, ২০১৯, ৫:৪৫ এএম says : 0
.............. DESH E SATRO RAJNITI KORE, SATRO DER R SATRO HOE THAKTE DILO NA, ODER KE ARMS SHONTRASHI BANIE SARLO ! DESHER MEDHA GULO KE CHADA BAJ, DRUGGI , DHORSHOK SHONTRASHI BANIE SARLO
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন