ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

মসজিদে দুর্বৃত্তের আগুন অক্ষত কোরআন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মসজিদে অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। গত বুধবার রাতে শহরের পূর্ব মেড্ডা এলাকার শান্তিবাগ জামে মসজিদে এ অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। তবে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মসজিদের ভেতরের কোরআন মজীদ ব্যতীত সমস্ত জিনিসপত্র পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

স্থানীয় মুসল্লি এবং মসজিদ কমিটির কোষাধ্যক্ষ মো. বিল্লাল মিয়া জানান, রাত প্রায় দেড়টার দিকে আশুগঞ্জ ফার্টিলাইজারের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোমিনুল হক প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাথরুমে যান। এসময় তিনি ভেন্টিলেটর দিয়ে আগুনের শিখা দেখতে পেয়ে শয়ন কক্ষে এসে জানালা খুলে দেখতে পান মসজিদের ভেতরে আগুন জ্বলছে। মুহূর্তের মধ্যে আগুন সমস্ত মসজিদে ছড়িয়ে পড়ে। মসজিদ সংলগ্ন প্রতিবেশীরা প্রায় দেড় ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। এর মধ্যে মসজিদের ২৪টি সিলিং ফ্যান, ৭০ হাজার টাকার কার্পেট, লাশ ধোয়া ও বহনের খাটিয়া, চেয়ার, মাদুরসহ মসজিদের অভ্যন্তরের সমস্ত মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে সেলফে রাখা কোরআন শরীফ অক্ষত রয়েছে।

আগুনে মসজিদের বিভিন্ন অংশের পলেস্তারা খসে পড়েছে। মসজিদ কমিটির সভাপতি হাজী নুরুল হক জানান, দাহ্য পর্দাথ দিয়ে কে বা কাহারা ছিটিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মো. সেলিম জানান, রাতের আধারে কে বা কাহারা আগুন দিয়েছে তা আমরা জানি না। মসজিদের অবকাঠামোসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার সাকরিয়া হায়দার জানান, এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত করে এর প্রতিবেদন দেয়া হবে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন জানান, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ফায়ার সার্ভিসও ঘটনাস্থলে এসেছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খান জানান, ঘটনাটি শুনেছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন