ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সিলেটে ৩ দিনে ৫ খুন

জনমনে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা

সিলেট ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সিলেটে ৩ দিনের মাথায় ৫ খুনের ঘটনা ঘটেছে। গত সোম-মঙ্গল ও বুধবার এই খুনের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে এক শিশু, দুই নারী, এক শিক্ষার্থী ও এক পুরুষ রয়েছে। ৩ দিনে ৫ খুনের ঘটনায় সিলেটে জনমনে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়লেও পুলিশ বলছে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো। এসব কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটলেও দায়ীদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ কাজ করছে।

বুধবার সিলেটের দক্ষিণ সুরমাস্থ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহপাঠীর হামলায় খুন হন এক শিক্ষার্থী। নিহত শিক্ষার্থী তানভীর হোসেন তুহিন (১৯) গোলাপগঞ্জ উপজেলার হেতিমগঞ্জের কোনাচর দক্ষিণভাগ পলিকাপন গ্রামের মানিক মিয়ার পুত্র। জুতা হারানোকে কেন্দ্র করে সহপাঠির হাতে খুন হন তুহিন। এ ঘটনায় ঘটনার সাথে জড়িত কামরানসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। ১০ জনকে আসামি করে মামলাও দায়ের হয়েছে।

মঙ্গলবার সিলেটের গোলাপগঞ্জে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামীর হাতে খুন হন স্ত্রী। মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার রণকেলী নুরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধূ মিনারা বেগম (৫০) এর ঘাতক স্বামীর নাম সুন্দর আলী (৬০)। এ ঘটনায় ঘাতক স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

এর পূর্বে এসএমপির জালালাবাদ থানার জালালাবাদ ইউনিয়নের আলীনগর গ্রামের আকিব আলীর ২ মাসের কন্যা শিশু সোনিয়া আক্তারকে লাথি মেরে ফেলে দেয় প্রতিপক্ষ। ওই শিশু ওসমানী হাসপাতালে তিনদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মৃত্যু বরণ করে। এ ঘটনায় জালালাবাদ থানায় মামলাও হয়েছে।

এছাড়া মঙ্গলবার সিলেট নগরীর করের পাড়ায় জানালার গ্রিলের সাথে গলায় ওড়না পেচানো অবস্থায় দুই সন্তানের জননী ওলি সরকার (২৮) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃত্যুটি রহস্যজনক হওয়ায় ওই নারীর স্বামী রাতুল সরকারকে আটক করা হয়।
অন্যদিকে সোমবার রাতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় আপন চাচাতো ভাইদের হাতে খুন হন আরেক চাচাতো ভাই ছালিক মিয়া (৪৫)। সোমবার দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বরইকান্দি ইউনিয়নে তালুকদারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে এসএমপির দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ জানান, প্রতেকটি ঘটনার সাথে জড়িতদের যদি দ্রুত বিচার হতো, তাহলে এ ধরণের ঘটনাগুলো ঘটাতে কেউ সাহস করতো না। সুশাসনের অভাবে সমাজে এ সকল অপরাধ ঘটছে বলেও তিনি জানান।
সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর বলেন, খুনের ঘটনায় জড়িতদের যত দ্রুত সম্ভব আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। তখন সমাজে খুনের মতো এতো বড় ধরণের অপরাধ করতে কেউ সাহস পাবে না।
এ ব্যাপারে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান, নগরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে বিপুল জনসংখ্যার শহরে বিছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটছে। এ সকল ঘটনায় জড়িত কোন অপরাধীকে ছাড় দেয়া হবে না। সকল অপরাধীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। প্রত্যেকটি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হচ্ছে।

এদিকে, সিলেটের দক্ষিণ সুরমার আলমপুরের কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সহপাঠীর আঘাতে তানভীর হোসেন তুহিন (১৯) নামে শিক্ষার্থী খুনের ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১০ জনকে আসামি করে বুধবার রাতে মহানগর পুলিশের মোগলাবাজার থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন নিহতের চাচা নাজিম উদ্দিন।

মোগলাবাজার থানার ওসি আখতার হোসেন বলেন, নিহতের চাচা বাদী হয়ে বুধবার রাতেই কামরান নামে এক ব্যক্তিকে প্রধান আসামি উল্লেখ করে আরও ১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় তাহের নামের একজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বুধবার সকালে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার আলমপুরের কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে কাঠের টুকরো দিয়ে সহপাঠীর মাথায় আঘাতে গুরুতর আহত হন তানভীর হোসেন তুহিন। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে প্রথমে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। বিকেলে ঢাকায় যাওয়ার পথে তিনি মারা যান।
নিহত তানভীর হোসেন তুহিন গোলাপগঞ্জ উপজেলার হেতিমগঞ্জের কোনাচর দক্ষিণভাগ পলিকাপন গ্রামের মানিক মিয়ার পুত্র।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন