ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

তেহরান যাবেন পম্পেও সমঝোতা চান রুহানি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০১৯, ১২:০১ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সমঝোতা করতে ইরান প্রস্তুত বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। তবে, এই সমঝোতা বলতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে আত্মসমর্পণ নয় বলেও জানান রুহানি। এসময়, পারস্য উপসাগরে কোনো ধরনের হটকারী তৎপরতা ও আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক আইন লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কড়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ওই অঞ্চলের নিরাপত্তায় তার দেশ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। পাশাপাশি হরমুজ প্রণালীতে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীকে সবসময় সতর্ক থাকার কথাও জানান রুহানি। অপরদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, ইরানের পরমাণু কর্মসূচি প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা নিয়ে তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সৃষ্ট উত্তেজনা নিরসনে তিনি ‘খুশি মনে’ উপসাগরীয় এই দেশে যাবেন। খবর এএফপি’র। বøুমবার্গকে বৃহস্পতিবার দেয়া এক সাক্ষাতকারে পম্পেও দাবি করেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের এ নিষেধাজ্ঞা আরোপের পেছনের কারণ ব্যাখ্যা করতে স্বেচ্ছায় ইরানের টেলিভিশনে হাজির হবেন। তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে ইরানের জনগণকে সরাসরিভাবে কিছু বলতে দেয়ার সুযোগকে আমি স্বাগত জানাবো। এ ব্যাপারে আমি তাদেরকে বলতে চাই এমন উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি ইরানের নেতা ‘সৃষ্টি করেছে’। আর তা ইরানের জন্য কতটা ক্ষতিকর।’ ইরানের পরমাণু কর্মসূচির লাগাম টেনে ধরার কথা বলেই ২০১৫ সালে তেহরানের সাথে করা পরমাণু চুক্তি থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বছর বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর থেকে ইরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। যুক্তরাষ্ট্র এ চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ইরানের ওপর নতুন করে বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। যুক্তরাষ্ট্র গত সপ্তাহে ইরানের একটি ড্রোন গুলি করে ভূপাতিত করার দাবি করলেও ইরান তা অস্বীকার করেছে। এদিকে তেহরান জুন মাসে যুক্তরাষ্ট্রের একটি অত্যাধুনিক সামরিক ড্রোন গুলি করে ভূপাতিত করে। ইরানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করায় ড্রোনটি ভূপাতিত করা হয় বলে জানায় তেহরান। এমন উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতিতে ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত বিমান হামলা চালানোর নির্দেশ দিলেও একেবারে শেষ মূহূর্তে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে পিছুহটে তিনি তা বাতিল করেন। রয়টার্স, ইরনা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন