ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন: কয়েক দিন আগে ইনকিলাবের প্রশ্ন উত্তর বিভাগের একটি উত্তরে জানতে পারলাম, লটারি হারাম। এটা জুয়ার মতোই। এখন প্রশ্ন হলো- যদি কেউ লটারি, জুয়া কিংবা হারাম উপায়ে সম্পদ অর্জন করে ফেলে। এমনকি জমিজমাও এভাবেই করে থাকে, তাহলে তার করণীয় কী?

আলী আকবর
ই-মেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৯, ৭:৩২ পিএম

উত্তর: হারাম উৎস বা পন্থা থেকে আগত অর্থসম্পদের মাধ্যমে যত সম্পদই আসুক, সবই হারাম। গোটা জিন্দেগি কেটে গেলেও এ সম্পদ হালাল হতে পারে না। এ ধরনের আর্থিক অপরাধ থেকে মুক্তির উপায় হারাম সম্পত্তি বর্জন করে হালাল উপায়ে জীবিকার সংগ্রামে লিপ্ত হওয়া। আল্লাহর নিকট তাওবা, ক্ষমা প্রার্থনার দ্বারা সকল গোনাহই মাফ হয়ে যায়। তবে অন্য মানুষের হক সরাসরিভাবে আল্লাহ মাফ করেন না। অতএব, অপরের অধিকার যেকোনো মূল্যে পৌঁছে দেয়ার পর আল্লাহর নিকট কৃত অপরাধের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করলে আল্লাহ মাফ করবেন। হারাম সম্পত্তির অভিশাপ থেকে মুক্তির জন্য কোনো বিজ্ঞ মুফতি বা ইসলামী আইনবিদের পরামর্শ গ্রহণ করলে পরিস্থিতি বিবেচনায় তারা উপযুক্ত পরামর্শ দিতে পারেন। 

সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফতওয়া বিশ্বকোষ।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোহাম্মদ ইদ্রিস আলম ২৯ জুলাই, ২০১৯, ৮:৪৭ পিএম says : 1
দুবাই এয়ারপোর্টে লটারি বিক্রি করে এবং সেই লটারি বিক্রি প্রাপ্ত অর্থ হতে কিছু টাকা একজন কে নির্বাচিত করে দেওয়া হয় এবং বাকি টাকা অনাথ বাচ্চাদের জন্য বরাদ্দ করা হয় যা ওখানে লেখা আছে। এখন কেউ যদি ঐ লটারির অর্থ পেয়ে তার সুদের টাকা পরিশোধ করে এবং বাকি টাকা হতে বেশির ভাগ অর্থ কোন এতিমখানায় দেয় আর কিছু টাকা দিয়ে ব্যবসা করে। তার কি হবে।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন