ঢাকা শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ০৭ সফর ১৪৪২ হিজরী

সাহিত্য

এ সপ্তাহের কবিতা

| প্রকাশের সময় : ২ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম


নিঃশব্দ আহামদ
তীর ভাঙা স্রোত
কাঁদছি বর্ষায়,আবার কান্নার মতো ঘনপরিবেশ
লুকোয় স্বাভাবিকতার প্রলেপে
কোথাও ছলছল চোখ নেই সহানুভুতির আবেশ
দুঃসহ সময় এক তবু সুন্দর ,নির্বাণ প্রার্থনা জপে৷
দ‚রবর্তী এক শহরে,ভিজছে ঘুমঘর
শার্সি খুলে জলের ছাপ মুখময়
বালিশ ভিজে যে জলে,তার দাগ চোখময়
এভাবে জেগে থাকে দ‚রমুখে অপেক্ষা অতঃপর৷
চিত্রিতকাল রঙে এঁকে বেজে উঠে দ‚রের সাইরেন
মুখর ভোরে কোনো সে দ্যুতি গড়াগড়ি প্রথম
তাকেই ডেকে সখা ,নিভৃতচারি প্রিয়তম
বুকের সাথে মিশে একাকার প্রেমের স্ট্রোজেন৷
আহা অভিলাষ চেপে চেপে যতোটা বাড়ছে দীর্ঘরাত
সম্মিলনের স্রোতে সঙ্গপ্রিয় বুকে নামবে উ”ছল প্রপাত৷
বুঁদ হয়ে নাসিকায় ,মাতাল ঘ্রাণে এ ঘর
প‚র্ণ চাঁদের শোভায় দেহজ কাঠামো
ঝড় তুলে গাঙ এক,তীর ভাঙা স্রোত মাতলামো
নিঃশ্বাসে দুলে উল­াস,অনেকটা নিঃস্বর৷


কবিতার জমি
মোহাম্মদ মাসুদ
জীবন-রঙ কালো হাতে,
নীরবতায় নিস্তব্ধ
নিঃস্ব বর্ষার সকল গল্প
আমার নীরবতা
পরে থাকে ব্যস্ত শহরের নিঃস্ব ধুলোয়।

শাফায়েত হোসেন
বর্ষাকাল

আষাঢ়- শ্রাবণ জলে মেখে,
ভুবন মাঝে বৃষ্টি দেখে,
মাঝি উড়ায় পাল,
টাপুরটুপুর বৃষ্টি ভেতর
হাসে খুকির গাল।
বৃষ্টির ফোটা কদম ফুলে,
হাসনাহেনা টগর দুলে,
পাপড়ি মেলে জলে,
পানকৌড়িরা উড়ে আসে
হাওড়- নদীর জলে।
অনুভবের নীল আকাশে,
সবুজ বনের বিলের ঘাসে,
ছন্দমাখা বৃষ্টি,
মেঘের ভেতর রোদের হাসি
কাড়ে আমার দৃষ্টি।
গাঁয়ের বধূ কলসি খাঁকে,
শিকারি যায় নদীর বাঁকে
ধরতে নানান মাছ,
কালো মেঘে ঢাকা পড়ে
সবুজ -শ্যামল গাছ।


লাভলী ইসলাম
এই শ্রাবণে
কত বরষায় ভিজেছি জলে
শ্রাবণ হয়ে তুমি আসবে বলে
উঠোনে ভাসিয়েছি ভেলা
জলে ঢেউয়ে করে সে খেলা ।
নতুন জলে ফুটেছে নানা ফুল
সুরভি গন্ধে হৃদয় করে আকুল
বেলির গন্ধ ভিজা হাওয়ায়
মন ছুটে যায় কোন সে দোলায় ।
হাঁটু ভেঙে জলে এসো তবে
বাইবো দুজন মন খেয়ালে
এলোমেলো কচুরিপানা জলে
ভিজবো মন ভুলে নতুন শ্রাবণে ।
খুঁজবো শালুক শাফলার বনে
ডুবুরি হয়ে আনবো দুগ্ধজনে
কলা গাছের ভেলায় ভরে
শাফলা শালুক আনবো তুলে ।
চলে এসো ঘুরবো বন বাদুড়ে
এক শ্রাবণে কবিতার ছন্দে
জল বৃষ্টি সুরে নৃত্য আনন্দে
চলেই এসো তবে এই শ্রাবণে ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন