ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আরো চীনা পণ্যে নতুন করে শুল্কারোপ ট্রাম্পের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০২ এএম


আরও ৩০ হাজার কোটি ডলার সমমূল্যের চীনা পণ্যে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, স্মার্টফোন, পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্যে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে এ শুল্ক কার্যকর হতে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার টুইটারে ট্রাম্প নতুন এ শুল্ক আরোপের ঘোষণা দেন। ২৫০০০ কোটি ডলার সমমূল্যের চীনা পণ্যে যে আগে থেকেই ২৫ শতাংশ শুল্ক আছে, তাও স্মরণ করিয়ে দেন তিনি।
চীনের সঙ্গে বিপুল বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনার লক্ষ্য নিয়ে গত বছর থেকে বেইজিংয়ের রফতানি পণ্যের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ শুরু করে ট্রাম্প প্রশাসন। ‘মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন’ আর ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নামের কথিত সংরক্ষণশীল নীতির ঘোষণা দিয়ে ক্ষমতায় আসা ট্রাম্প প্রশাসনের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে বেইজিং-ও মার্কিন পণ্যের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ শুরু করে। বাণিজ্য নিয়ে উত্তেজনা কমাতে এ বছর ওয়াশিংটন ও বেইজিং কয়েক দফা বৈঠকও করেছে। গত সপ্তাহে দুই দেশের প্রতিনিধিদের সর্বশেষ দফা বৈঠক হয়। আর এরপর বৃহস্পতিবার টুইটারে ট্রাম্প নতুন করে আরও ৩০ বিলিয়ন ডলারের চীনা পণ্যে শুল্ক আরোপের ঘোষণা দেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এ ঘোষণার ফলে ‘কার্যত’ সেপ্টেম্বর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আমদানিকৃত সব চীনা পণ্যেই শুল্ক বসতে যাচ্ছে।
সাংহাইয়ে গত সপ্তাহের বৈঠকে চীন ‘আরও বেশি মার্কিন কৃষিপণ্য নেওয়ার প্রতিশ্রæতিকে সম্মান’ না দেখানোয় ট্রাম্প দেশটির কড়া সমালোচনা করেন। টুইটার পোস্টে যুক্তরাষ্ট্রে ফেনটানিল বিক্রি বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা না নেওয়ায় চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভও প্রকাশ করেন তিনি।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট পরে সাংবাদিকদের জানান, ৩০০ বিলিয়ন ডলারের চীনা পণ্যে ‘স্বল্প সময়ের’ জন্য এ ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। ধাপে ধাপে বেড়ে এটি ২৫ শতাংশও ছাড়িয়ে যেতে পারে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। ট্রাম্প বলেন, ‘চীনের সঙ্গে এমনটা কারও না কারও অনেক আগেই করা উচিত ছিল’।
মার্কিন প্রেসিডেন্টের নতুন শুল্ক আরোপের ঘোষণায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়ি। ব্যাংককে আসিয়ানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের এক ফাঁকে তিনি বলেন, ‘অর্থনৈতিক ও বাণিজ্য সংক্রান্ত বিরোধ মেটানোর জন্য শুল্ক আরোপ কোনও গঠনমূলক পথ নয়। সঠিক কোনও পথ নয় এটি।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন