ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

প্রবাস জীবন

নিউইয়র্কের জামাইকা মুসলিম সেন্টার : ইবাদতের স্থান

মাহফুজ আদনান | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০১৯, ৯:০৭ এএম

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কলম্বাসের আগে মুসলমানদের আগমন একটি ইতিহাস । এমনকি কলম্বাস আসার সময় দুজন মুসলমান তাদের সাথে এসেছিলেন । তাই যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে অগণিত প্রাচীন মসজিদ । অগণিত প্রাচীন নিদর্শন ।

নিউইয়র্কে সময়ের ব্যবধানে অনেক মসজিদ বাংলাদেশী আমেরিকানসহ পাকিস্তানি ইন্ডিয়ান বা আরবের লোকজন দ্বারা নির্মিত হয়েছে । এই মসজিদগুলো বয়স্কদের জন্য যেমন একটি প্রিয় স্থান তেমনি সকল বয়সীদের জন্য মিলনমেলা।

সেখানে প্রতি ওয়াক্তের নামাযে যারা আসেন তারা যেমন অনেকের সাথে দেখা হয় কথা হয় । কুশল বিনিময় হয় । সবাই একসাথে নামায আদায় করেন । এ যেন অন্যরকম একটি প্রশান্তি দান করে সকল বয়সীদের ।

জামাইকা মুসলিম সেন্টার । ১৯৭৬ সালে ছোট পরিসরে একটি এপার্টমেন্টে যাত্রা শুরু করেছিল নিউইয়র্কের অন্যতম এই মসজিদ । সময়ের ধারাবাহিকতায় ১৯৮৩ সালের ২৫ আগস্ট ইনকরপোরেটেড হয় । এরপর ১৯৮৫ সালের ১২ আগস্ট ১ লক্ষ ষাট হাজার ডলারে নিজস্ব ভূমি ক্রয় করা হয় ১৬৮ স্ট্রিটে । ২০০৩ সালের সেপ্টেম্বর থেকে আল মামুর স্কুল প্রতিষ্ঠা হয় । পরে ২০১৩ সালে আল মামুর স্কুল পারসন বুলেভার্ডে স্থানান্তর করা হয় । ২০০৩ সালে জামাইকা মুসলিম সেন্টারে ইকরা লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠা করা হয় । সেটি বিভিন্ন বয়সীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয় ঐ বছরের ডিসেম্বর থেকে ।

১৯৯৪ সালে ইমাম মাওলানা সানাওয়ার চৌধুরী পবিত্র হজে গিয়ে ইন্তেকালের পর ইমাম হিসেবে দায়িত্ব নেন মাওলানা আবু জাফর বেগ ।

২০০১ সাল থেকে জামাইকা মুসলিম সেন্টারে হাফিজি মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করা হয় ।একসাথে বিপুল সংখ্যক মুসল্লি নামাযে অংশ নিতে পারেন নিউইয়র্কের অন্যতম এই বৃহৎ মসজিদে ।

ইমাম মাওলানা আবু জাফর বেগ বলেন, বিশ্ব মুসলমান সম্প্রদায়ের অন্যতম মিলনমেলা, ইবাদতের স্থান মসজিদ।

মসজিদে নামাজ আদায় যে কাউকে পরিতৃপ্তি দান করে । তিনি বলেন, আজ আমাদের মুসলমান সম্প্রদায়ের যে অনৈক্য তা কখনই মেনে নেয়া যায় না ।
তবে ইসলামের নামে যা কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে তা ইসলাম সমর্থন করে না ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন