ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

রাজাপুর বিষখালী নদীর তীরবর্তী এলাকার মানুষ আতংকিত

রাজাপুর ( ঝালকাঠি) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৩১ পিএম

লঘুচাপের প্রভাবে ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার বিষখালী নদীতে স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় ৯০ থেকে ১২২ সেঃমিঃপানি বৃদ্ধি পাওয়া বিষখালী নদীর তীরবর্তী নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।বিষখালী নদীর তীরবর্তী এলাকার মানুষ আতংকিত। বুধবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকায় নদীর পানি ঢুকতে শুরু করেছে। রাজাপুরে ভেড়ি বাঁধ না থাকায় বিষখালী নদীর পানিতে তলিয়ে গেছে ফসলের ক্ষেত ও পুকুর জলাশয়। বন্যা আতঙ্কে রয়েছে নদী তীরবর্তী এলাকার মানুষ।
জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম আতাউর রহমান জানান, সুগন্ধা ও বিষখালী নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৩/৪ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। মঠবাড়ি ইউপি চেয়্যারম্যান মোঃ মোঃ মোস্তফা কামাল সিকদার,বলেন - মানকি,সুন্দর বাদুরতলা, পুখরীজনা গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।পুকুর ও বীজ তলা পানিতে ডুবে গেছে। রাজাপুরের বড়ইয়া ইউপি চেয়্যারম্যান মোঃ শাহ আলম মন্টু বলেন- বড়ইয়ার দক্ষিনাঞ্চল সমস্ত বাড়ি উঠান ডুবে গেছে, স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় ৩-৪ ঠুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে, পালট,নিজামিয়া, দঃ পালট, উত্তর পালট,উত্তর পালট, উঃ বড়ইয়া বীজতলা, মাছের ঘের,পুকুর তলিয়ে গেছে। রাজাপুর কৃষিকর্মকর্তা রিয়াজ উল্লাহ বাহাদুর বলেন- লঘু চাপের প্রভাবে ৯০ থেকে ১২২ সেঃমিঃ পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।উপজেলার নিম্নাঞ্চল এলাকা আমনের বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। বিজতলা র এখন পর্যন্ত কোন ক্ষতি হয়নি,পানিটা আর ৪/৫ দিন স্থায়ী হলে বিজতলার ক্ষতির আশংকা রয়েছে।তবে পানি নেমে যেতে পারে ২ /৩ দিনের মধ্যে।বিষখালীর তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা আতংকে রয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন