ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

কাশ্মীর ইস্যুতে পানি ঘোলা করার চেষ্টা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা: র‌্যাব ডিজি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০১৯, ২:০১ পিএম

কাশ্মীর ইস্যুতে পানি ঘোলা করার চেষ্টা করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেন, কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাদের নিজস্ব বিষয়ে আমাদের কোনো মন্তব্য নেই। তবে দেশে আল্ট্রা ইসলামিস্টের সংখ্যা বেশি নয়। যারা রয়েছে তারাও ২৪ ঘণ্টা নজরদারিতে রয়েছে। আশা করবো ভারতের আভ্যন্তরীণ বিষয় কিংবা কাশ্মীর নিয়ে দেশে পানি ঘোলা করার চেষ্টা করবেন না। এরপরও যদি কেউ সে চেষ্টা করে তবে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে ঈদে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। র‌্যাব ডিজি বলেন, কাশ্মীর দেশের সমস্যা নয়, বিষয়ও নয়, সেটি নিয়ে দেশে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে, অযাচিতভাবে ঝামেলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে অবশ্যই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্প্রতি র‌্যাব-৭ এর সাবেক অধিনায়ক (সিও) হাসিনুর রহমানকে ডিবি পরিচয়ে পল্লবীর বাসা থেকে তুলে নেয়ার অভিযোগ করেছে পরিবার। পরিবারের পক্ষ থেকে এ অভিযোগে গত বুধবার রাত ১টায় পল্লবী থানায় জিডি করা হয়েছে। হাসিনুর এক সময় র‌্যাব-৫ ও র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক ছিলেন। তিনি বিজিবিতেও বেশকিছু দিন দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

হাসিনুরকে খুঁজে বের করার বিষয়ে পদক্ষেপ জানতে চাইলে র‌্যাব ডিজি বলেন, ‘অনেক মানুষকেই তো খুঁজে পাওয়া যায় না। খুঁজে না পাওয়াটা শুধু বাংলাদেশে নয়, যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেন, ইউরোপেও মানুষ নিখোঁজ হয়। একজনকে খুঁজে না পাওয়াটা কোনো বাহিনীর ব্যর্থতা নয়। আমাদের পক্ষ থেকে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। আমরা জ্ঞাত আছি। এ বিষয়ে কাজ করছি। যদি কারো কাছে কোনো তথ্য থাকে তাহলে জানালে আমরা ব্যবস্থা নিবো।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Miah Muhammad Adel ৯ আগস্ট, ২০১৯, ৩:২১ পিএম says : 0
সরকার তো কিছু বলবে না। বেসরকারীভাবে একটু প্রতিক্রিয়া প্রদর্শনে সমস্যা কি?
Total Reply(0)
Miah Muhammad Adel ৯ আগস্ট, ২০১৯, ৮:৫১ পিএম says : 0
"হায় বুদ্ধিহীন মানবহৃদয়! ভ্রান্তি কিছুতেই ঘোচে না, যুক্তিশাস্ত্রের বিধান বহু বিলম্বে মাথায় প্রবেশ করে, প্রবল প্রমাণকেও অবিশ্বাস করিয়া মিথ্যা আশাকে দুই বাহুপাশে বাঁধিয়া বুকের ভিতরে প্রাণপণে জড়াইয়া ধরা যায়" - রবি ঠাকুর্ আমরা ভুলে যাই যে আমাদের জন্মলগ্নে একদেশের আভ্যন্তরীন বিষয়ে অন্য দেশের হস্তক্ষেপ ছিল; অন্যথায় অকল্পনীয় দুর্ভোগে কালাতিপাত করত হতো। যে দশায় আমরা ছিলাম অন্যের সে দশা কেন আমাদের বোধগম্য হয় না। নির্বাক নিষ্কৃয়তা সমর্থন করে না ধর্ম না মানবতা। একটা গণতান্ত্রিক দেশে কেন এমন রুদ্ধ শ্বাসের বাস? On the authority of Abu Sa’eed al-Khudree (ra) who said: I heard the Messenger of Allah (saw) say, “Whoso- ever of you sees an evil, let him change it with his hand; and if he is not able to do so, then [let him change it] with his tongue; and if he is not able to do so, then with his heart — and that is the weakest of faith.” [Muslim]
Total Reply(0)
Dusty Rusty ৯ আগস্ট, ২০১৯, ১১:১৪ পিএম says : 0
কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ বাধলে বাংলাদেশের সমর্থন ছাড়াই পাকিস্তান যথেষ্ট ভারতকে শিক্ষা দেয়ার জন্য। কারণ পাকিস্তান খুব ভাল করেই জানে ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ ভারতের ক্রীতদাস, তাই তারা আমাদের কাছ কোন সমর্থন পাওয়ার আশাও করে না। কিন্তু এইসব ব্যাক্তি বর্গ এতোই অপদার্থ যে তারা ভেবে দেখে না যদি কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের ভরাডুবি ঘটে তবে তা শুধুমাত্র আঞ্চলিক ইস্যু হিসেবে ঘটবে না। কারণ পৃথিবীর কোন দেশই এখন গ্লোবাল পাওয়ারের পলিটিক্সের আওতা বহির্ভূত নয়। তাছাড়া নরেন্দ্র মোদী সাধ করে ফাটা বাঁশে পা দিয়েছে। একাধারে তিনি চীন রাশিয়ার সাথে আঞ্চলিক সহযোগিতা চুক্তি করেছে, অন্যদিকে চীনা দখলাধীন কাশ্মীর অংশকে কেন্দ্র শাসনের আওতাভুক্ত করে সাপের লেজে পা দিয়েছে। আরেকদিকে ইসরাইলের সম্পাদিত অস্ত্র ক্রয় চুক্তি বাতিল করেছে এবং ট্রাম্পের কাছে কাশ্মীর ইস্যুতে সমঝোতার প্রস্তাবে মাথা ঝাঁকিয়ে সায় দিয়েছে। যার সবকিছু ভিডিও রেকর্ড আছে। সুতরাং মোদী কি বলেছেন আর কি বলেননি তার প্রমাণে কোন স্বাক্ষী লাগবে না। চীন রাশিয়ার সাথে চুক্তি করে পশ্চিমাদের বিরাগভাজন হয়েছেন একই সাথে চীনাদের চটিয়েছেন। কাশ্মীর ইস্যুটি জাতিসংঘের আওতাভুক্ত বিষয়, যেখানে পশ্চিমাদের দখনষল শক্তিশালী। অন্যদিকে ভারতীয় হুমকি মোকাবেলায় চীনের কাছে পাকিস্তান একটি অপরিহার্য অঙ্গ। বিধায় ভারতের ঝুলিতে কাশ্মীর ইস্যুতে চীনা সমর্থন ভারতের জন্য আকাশ কুসুম কল্পনা। এসব বিষয়াদি পর্যালোচনায় ভারতীয় পররাষ্ট্র নীতি এখন এতিম সময়ের সঙ্কটে। এমতাবস্থায় কাশ্মীর ইস্যু কামানের মুখে বা কলমের মুখে যেখানেই যাবে ভারতের ভাগ্যে ঝাটা ছাড়া আর কিছু জুটবে কিনা সন্দেহ আছে। আরেক সমস্যা এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয় সঙ্কট যা কিনা এখন মোদীর গলায় একটা দ্বিধার খঞ্জর। কিনলে পশ্চিম হারাবে, না কিনলে চীন রুশ হারাতে হবে। সুতরাং আওয়ামী লীগ যতোই লাফালাফি করুক তাদের ভারত পন্থী নতজানু এখন ঘুণে পোকায় খাওয়া বাঁশ। এটার কি পরিণতি হতে পারে তাকি মিষ্টার RAB রা টের পাচ্ছেন না।
Total Reply(0)
Moksed ১০ আগস্ট, ২০১৯, ১০:১১ এএম says : 0
আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় বুঝলাম কিন্তু এক মুসলমান আরেক মুসলমানেরা ভাই ভাই সেটা কি জানেন না রাসূল (স) বানী কি ভুলে কি নাস্তিকদের কৃতদাস সেজেছেন প্রতিবাদ করেন যদি সেটাও না পারেন মনে মনে ঘৃনা করুন সেটাও তো আপনারা করেন না বরং আপনারা নাস্তিকদের পাশে থাকার ঘোষনা দেন লজ্জা করে না আমাদের মা বোনদের উপর অত্যাচার হচ্ছে আর আপনারা চুপচাপ থাকেন আললাহ এগুলো সহ্য করবেন না
Total Reply(0)
Dusty Rusty ১০ আগস্ট, ২০১৯, ৪:৪২ পিএম says : 0
RAB এর ঘোষনা থেকে প্রতীয়মান হচ্ছে তারাই বাংলাদেশের সরকার। প্রজাতন্ত্রের একজন কর্মচারী, তারা কোন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নন। অথচ তিনি আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক সঙ্কটের উপর জনসাধারণকে হুমকি দিয়ে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন, যা তার এখতিয়ার বহির্ভূত। আমার জানা নেই কোথায় এর উৎস।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন