ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

ডেঙ্গু রোগী ঢাকায় কমে বাইরে বাড়ছে, মৃত্যু ১৪

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ১৮৮০ জন রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরমধ্যে ঢাকা শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৭৫৫ জন। ঢাকার বাইরে ভর্তি হন ১ হাজার ১২৫ জন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ঢাকা থেকে ঢাকার বাইরেই বেশিসংখ্যক ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন।

মূলত রাজধানী ঢাকায় ডেঙ্গু রোগীর হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা কমলেও ঢাকা শহরের বাইরে বেড়ে গেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। গত ১৩ আগস্ট মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ১৪ আগস্ট বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার হিসেবে জানা যায়, ৬৪ জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ৭৮৬৯ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। ডেঙ্গু রোগ নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের দৈনিক প্রতিবেদনে গতকাল বুধবার এ তথ্য জানানো হয়। এই ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার বাইরে দেশের অন্যান্য জেলা শহরগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ১ হাজার ১২৫ জন। এছাড়া, রিপোর্টটিতে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সর্বমোট মৃত্যুর সংখ্যা বলা হয়েছে ৪০ জন। যদিও বেসরকারি হিসেব অনুয়ায়ী এই সংখ্যা প্রায় শতাধিক। গতকালও ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত তিন জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হিসেব অনুযায়ী ঢাকা শহরের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৪ ১৪৩ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। ঢাকার বাইরে ৩ হাজার ৭২৬ রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। সরকারি ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ৪৬ হাজার ৩৫১ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে ৩৮ হাজার ৪৪২ জন রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ৭ হাজার ৮৬৯ জন রোগী।
ঢাকা শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীদের মধ্যে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) ১৪৭ জন, মিটফোর্ড হাসপাতালে ৮৩ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ২০ জন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৭৩ জন, বিএসএমএমইউতে ৩১ জন, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে ১৫ জন, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪৭ জন, পিলখানা বিজিবি হাসপাতালে ৩ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ১১ জন, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৫২ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন।

এছাড়াও ঢাকা শহরের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে নতুনভাবে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন ২৭৩ জন রোগী। এদের মধ্যে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ২০ জন, বারডেম হাসপাতালে ৯ জন, বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১১ জন, ধানমন্ডি ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬ জন, স্কয়ার হাসপাতালে ১০ জন, ধানমন্ডি কমফোর্ট নার্সিংয়ে ৩ জন, শমরিতা হাসপাতালে ৮ জন, মিরপুর ডেল্টা মেডিকেল কলেজে ৪ জন, ল্যাব এইড হাসপাতালে ৫ জন, সেন্ট্রাল হাসপাতালে ১৮ জন, হাই কেয়ার হাসপাতালে ২ জন, হেলথ এন্ড হোপ হাসপাতালে ১ জন, গ্রীন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৫ জন, কাকরাইল ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ২৫ জন, খিদমা জেনারেল হাসপাতালে ৯ জন, ইউনাইটেড হাসপাতালে ৫ জন, অ্যাপোলো হাসপাতালে ১৪ জন, আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৪ জন, ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০ জন, বিআরবি হসপিটালস লিমিটেডে ২ জন, আজগর আলী হাসপাতালে ১২ জন, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৭ জন, বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ৫ জন, সালাউদ্দিন হাসপাতালে ৯ জন, পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৩ জন, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০ জন ও কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে ৪ জন রাগী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন।

এছাড়া রাজধানীর বাইরে ঢাকা বিভাগের জেলা শহরগুলোতে ২৭৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৯৪ জন, খুলনা বিভাগে ১৬৫ জন, রংপুর বিভাগে ১১৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ১৩২ জন, বরিশাল বিভাগে ১৫৬ জন, সিলেট বিভাগে ২১ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৭০ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুম সূত্রে জানায়, গত এক সপ্তাহে দেশের হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ধীরে ধীরে কমছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ৭ দিনে হাসপাতালে ভর্তিকৃত ডেঙ্গু রোগীদের মধ্যে ৭ আগস্ট ছিল ২ হাজার ৪২৮ জন, ৮ আগস্ট ২ হাজার ৩২৬ জন, ৯ আগস্ট ২ হাজার ২ জন, ১০ আগস্ট ২ হাজার ১৭৬ জন, ১১ আগস্ট ২ হাজার ৩৩৪ জন, ১২ আগস্ট ২ হাজার ৯৩ জন, ১৩ আগস্ট ১ হাজার ২০০ জন এবং গতকাল ১৪ আগস্ট ১ হাজার ৮৮০ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে ভর্তি হন। সুতরাং পরিসংখ্যানে দেখা যায় গত এক সপ্তাহে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত রোগীর হাসপাতালে ভর্তি সংখ্যা খুব অল্প হলেও কমেছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে সারা দেশের হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ৭ হাজার ৮৬৯ জন; যার মধ্যে ঢাকায় ৪ হাজার ১৪৩ এবং ঢাকার বাইরে ৩ হাজার ৭২৬ জন। ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ৩৮ হাজার ৪৪২ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী হাসপাতালগুলো থেকে চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র নিয়ে ফিরে গেছেন। তবে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন মোট ৪৬ হাজার ৩৫১ জন রোগী।
বরিশাল ব্যুরো জানায়, বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলে ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখনো উদ্বেগজনক। বুধবার সকালের পূর্ববর্তী ৭২ ঘণ্টায় দক্ষিণাঞ্চলের ৬টি জেলায় আরো প্রায় পৌনে ৫শ’ রোগী ডেঙ্গুজ্বর নিয়ে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এনিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তির সংখ্যা প্রায় দু’ হাজারে পৌঁছল।

এদিকে দীর্ঘ প্রচেষ্টার পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্তদের জন্য একটি ওয়ার্ড চালু করা সম্ভব হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন প্রায় সোয়া ৩শ’ রোগীকে একটি ওয়ার্ডে স্থানান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে বলে পরিচালক ডা. বাকির হোসেন ইনকিলাবকে জানিয়েছেন।
দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্নস্থানে এ পর্যন্ত ৬ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই মারা গেছেন ৪ জন। এর বাইরে বরিশালের গৌরনদীতে ১ জন ও বরগুনাতে আরো এক ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু ঘটেছে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে ডেঙ্গু জ্বরে ১৪ জন নিহত হয়েছেন। গত তিনদিনে নিহতদের মধ্যে রাজধানী ঢাকায় ৩, খুলনা, ল²ীপুর, নারায়ণগঞ্জ, পাবনা, মাদারীপুর, রাজশাহী, কুমিল্লার, লালমনিরহাট, ময়মনসিংহ, নোয়াখালী ও ফরিদপুরে একজন করে।
ঢাকা : রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত মঙ্গলবার এক শিশুর মৃত্যু হয়।হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া জানান, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকালে ডেঙ্গু আক্রান্ত আট বছর বয়সী সামিয়া নামের এক মেয়ে মারা গেছে। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) গত মঙ্গলবার সকালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যান বাপেক্সের ম্যানেজার (প্রকৌশলী-খনন) মাহবুবুল্লাহ হক। তার বাড়ি রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলায়।

এদিকে, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) কর্মরত জামাল আহমেদের মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। জামাল আহমেদ কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ মনিপুরঘাট এলাকার বাাসিন্দা। তার বাবার নাম আব্দুল মান্নান। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। তার স্ত্রী ও দুই ছেলে রয়েছে।

খুলনা : খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাসেল নামে এক ডেঙ্গু রোগী মারা গেছেন। গত সোমবার বিকেলে ওই রোগী মারা যান বলে মঙ্গলবার সকালে জানান খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. পার্থ প্রতিম দেবনাথ।
ল²ীপুর : ল²ীপুরের কমলনগরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ৪ বছরের শিশু পরশের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার রাতে ল²ীপুর থেকে নোয়াখালীতে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয় বলে জানান স্বজনরা। পরিবারের দাবি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সে মারা গেছে।

নারায়ণগঞ্জ : ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরো এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার রাত ১টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। শিশুটির নাম অভিজিৎ সাহা (১১)। সে শহরের আমলাপাড়ার মন্টু সাহা ও পদ্মা সাহা দম্পতির ছেলে। অভিজিৎ চাষাঢ়ায় ইংরেজি মাধ্যম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাউন্টেন একাডেমির পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

পাবনা : পাবনায় গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মোস্তফা নামে এক কলেজছাত্র মারা গেছেন। এটিই পাবনা জেলায় ডেঙ্গু রোগে প্রথম মৃত্যু বলে কর্তৃপক্ষের দাবি।
মাদারীপুর : মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার বহেরাতলা উত্তর ইউনিয়নের সোতারপাড় গ্রামে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে আব্দুল মজিদ (৭৫) নামের এক ব্যক্তি বুধবার দিবাগত রাত একটার দিকে মারা যায়।
রাজশাহী : গত সোমবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে মারা গেছেন ডেঙ্গু আক্রান্ত আবদুল মালেক নামে এক যুবক। পেশায় রাজমিস্ত্রি আবদুল মালেক চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বহরম হাউসনগর মহল্লার গোলাম নবীর ছেলে।

কুমিল্লা : কুমিল্লার হোমনা উপজেলায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফাতেমা আক্তার সোনিয়া (২৬) নামে এক স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যু হয়েছে। মৃত ফাতেমা আক্তার উপজেলার মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা এবং হোমনা সদরের সরকার বাড়ির মাস্টার মো. মোকবল হোসেনের মেয়ে। গত রোববার ভোরে রাজধানীর আনোয়ার খান মডেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

লালমনিরহাট : ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মনিরুল ইসলাম (৩২) নামে লালমনিরহাটের এক কাপড় ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। গত রোববার সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তিনি লালমনিরহাট জেলা সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের কালমাটি বাগডোরা গ্রামে নিমচালা শেখের ছেলে।
ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতেরর নাম ফরহাদ আহমেদ (২০)। তিনি কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল কলেজের স্নাতক ২ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার বড়ি বাড়ি গ্রামের ফেরদৌস আহমেদের ছেলে।

নোয়াখালী : নোয়াখালীতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আমির হোসেন (৬০) নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। রোববার ভোর ৬টার দিকে নোয়াখালী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আমির হোসেনের গ্রামের বাড়ি লক্ষীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জের দত্তপাড়ায়।
ফরিদপুর : ফরিদপুরে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে তানজিদ মোল্লা (৯) নামের এক শিশু মারা গেছে। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশুটি। তানজিদ ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মাঝকান্দি এলাকার বাসিন্দা ভ্যানচালক জাহিদ মোল্লার ছেলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন