ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

খেলাধুলা

কেন ডোমিঙ্গো, জানালেন পাপন

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

জাতীয় দলের কোচের পদটি বেশ ইর্ষনীয়ই। বহুল কাক্সিক্ষত এই পদে আসীন হতে হলে থাকা চাই নিষ্ঠা, প্রতিশ্রুতি এবং আত্মনিয়োগ। যেমনটি দেখিয়েছেন রাসেল ডোমিঙ্গে। আগ্রহী বাকিদের মধ্যে কেউ কাজে যোগ দিতে চান ছয় মাস পর, কেউ বা বছরে ১০০ কিংবা ২০০ দিন কাজ করতে চান। এমন কোনো শর্ত ছিল না রাসেল ডোমিঙ্গোর। তিনি কাজ শুরু করতে প্রস্তুত এই মুহূর্ত থেকে। সিরিজ শেষে ছুটির প্রয়োজন নেই। সব সময় থাকতে চান শিষ্যদের পাশে। এই ব্যাপারগুলোই ডোমিঙ্গোকে নতুন প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ করতে বিসিবিকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করেছে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে ডোমিঙ্গোর নাম ঘোষণা করেন, ‘শেষ পর্যন্ত তিন জন ছিল আমাদের টপ লিস্টে। কবে থেকে পাওয়া যাবে আর কতটা সময় দিতে পারবে সেটা বিবেচনায় নেওয়ার পর দুই জন ছিলেন আমাদের তালিকায়। সেখান থেকে রাসেল ডোমিঙ্গোকে আমাদের প্রধান কোচ হিসেবে চূড়ান্ত করেছি। দুই বছরের জন্য চুক্তি হয়েছে। ডোমিঙ্গো বলেছে, ‘আমার কোনো ছুটি দরকার নাই। আমার কোনো পিছু টান নাই। আমি এখানে থেকে খেলোয়াড়দের সঙ্গে সময় কাটাতে চাই।’ এগুলোই হচ্ছে মূল জায়গা, যেখানটায় আমরা মনে করেছি ও অন্যদের চেয়ে এগিয়ে আছে।’

‘একান্ত গোপনীয় ব্যাপার’ বলে নতুন কোচের পারিশ্রমিকের দিকটা এড়িয়ে গেছে বিসিবি। ডোমিঙ্গোর কাজের পরিধি সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়েছেন বোর্ড সভাপতি, ‘২০২৩ বিশ্বকাপে আমাদের বেশ কিছু নতুন খেলোয়াড়ের দলে ঢোকার সম্ভাবনা আছে। কয়েকটা জায়গায় হয়তো রিপ্লেসমেন্ট প্রয়োজন হতে পারে। সেদিক থেকে যদি চিন্তা করেন, তাহলে আপনাকে নতুন ছেলেদের একটা পরিকল্পিত উপায়ে আমাদের সুযোগ দিতে হবে। এই ধরনের কাজ করার জন্য ডোমিঙ্গো উপযুক্ত আর সে এটাই করতে চাচ্ছে। সে জাতীয় দলের পাশাপাশি ‘এ’ দল, হাই পারফরম্যান্স দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে চাচ্ছে। আর এই কাজই সে করে এসেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। সে চার বছরের লম্বা একটা পরিকল্পনা আমাদের দিয়েছে।’

তবে জানা গেছে, গত দশ বছরে বাংলাদেশ দলের হেড কোচদের গড়পড়তা বেতন ছিল ১৭ থেকে ১৮ কিংবা ২৮ থেকে ৩০ হাজার ডলার। চন্ডিকা হাথুরুসিংহে থেকে সবশেষ স্টিভ রোডস ২৫ থেকে ২৮ হাজার ডলারের মধ্যে বেতন পেতেন। তবে ভারতের কোচ হতে সাক্ষাৎকার দিয়ে আসা মাইক হেসনের চাহিদা ৫০ হাজার ডলারের উপর। এই অল্পমেয়াদী কোচের জন্য মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করতে চায়নি বোর্ড। সে কারণেই ডোমিঙ্গোকে ২৫ হাজার ডলারের আশপাশে বেতনে চুক্তিবদ্ধ করতে পেরেছে বলে জানিয়েছে বিসিবি নির্ভরযোগ্য এক সূত্র।

আপাতত দুই বছরের জন্য চুক্তি হলেও সব মিলে গেলে লম্বা সময়ের জন্য রাসেলকে রেখে দেওয়ার ভাবনার কথা জানান নাজমুল হাসান, ‘আমাদের এখন সবচেয়ে বেশি দরকার ভালো একজন কোচ, যে নাকি এখানে থেকে, ছেলেদের সঙ্গে থেকে একটা পরিকল্পনা নিয়ে দুই-চার বছর কাজ করবে। ডোমিঙ্গোর সঙ্গে সেভাবে ইন্টারঅ্যাকশন হয়নি, একটা সাক্ষাৎকার হয়েছে। সে এসে কাজ করুক, আমাদের দেখুক, আমরা ওকে দেখি। যদি মিলে যায় তাহলে লম্বা সময়ই থাকতে পারে।’

দক্ষিণ আফ্রিকা ছেড়ে কেন বাংলাদেশে কোচ হয়ে আসতে চান ডোমিঙ্গো সেই প্রশ্ন ৪৪ বছর বয়সী এই কোচকে করেছিল বিসিবি, ‘উত্তরে ও বলেছিল, ‘বাংলাদেশে এসে সে যত বড় দেশই হোক না কেন তার জন্য জেতা কঠিন। সামনে বিশ্বকাপ হবে ভারতে। বাংলাদেশেরও শিরোপার অন্যতম দাবিদার হওয়া উচিত। ভারতের পর উপমহাদেশে বাংলাদেশই সবচেয়ে বড় শক্তি।’ এই ধরনের চিন্তা তার। আমরাও বিশ্বাস করি, আগামী (ওয়ানডে) বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অন্যতম দাবিদার হওয়া উচিত।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন