ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

প্রত্যাশার কিছু নেই ভারতের কাছে

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ এএম

নয়া পল্টন বিএনপি কার্যালয়ে যৌথ সভায় বক্তব্য রাখেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর -ইনকিলাব


ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ঢাকা সফরে অমীমাংসিত সমস্যা সমাধানে দেশটির কাছে বিএনপির প্রত্যাশার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, আমরা খুব বেশি প্রত্যাশা করছি না। কারণ, আমরা গত ১০-১২ বছরে শুনলাম এই আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক সুউচ্চ পর্যায়ে আছে, খুব ভালো পর্যায়ে আছে। এখন পর্যন্ত আমাদের তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা পাইনি, সীমান্তে হত্যা বন্ধ হয়নি, আমাদের বাণিজ্যে যে ঘাটতি রয়েছে, ইম-ব্যালেন্স রয়েছে; সেটাকে পূরণ করার জন্য কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আমাদের কোনো সমস্যারই সমাধান হয়নি। যেটা হয়েছে ভারতের সমস্যাগুলোর সমাধান হয়েছে। সেজন্যই আমরা খুব একটা আশাবাদী হতে পারছি না।

গতকাল (সোমবার) দুপুর ১২টায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের সভাপতি শফিউল বারী বাবু ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েলের নেতৃত্বে নেতাকর্মীদের নিয়ে বিএনপি মহাসচিব শেরেবাংলা নগরে দলের জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় তারা মরহুম নেতার রূহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ত্রিপুরায় বিমানবন্দর সম্প্রসারণের জন্য ভারত সরকার বাংলাদেশের কাছে জমি চাওয়ার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, পত্রিকায় খবর এসেছে। এই খবর আমরা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করেছি। বাংলাদেশ সরকার এখন পর্যন্ত এটাতে রাজি হয়নি। রাজি হওয়ার প্রশ্নই নেই। কারণ, আমার দেশের জমি অন্য কাউকে দেয়ার প্রশ্নই উঠতে পারে না।

১৫ আগস্টের ঘটনার সাথে জিয়াউর রহমান জড়িত ছিল- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই বক্তব্যের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা (আওয়ামী লীগ) দীর্ঘকাল ধরে এই ইতিহাসকে বিকৃত করার চেষ্টা করেছেন। এটা ধ্রুবতারার মতো সত্য যে, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন, মুক্তি দিয়েছিলেন। তিনি কোনো মতেই কোনো হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ছিলেন না- এটা ইতিহাস প্রমাণিত। জড়িত ছিলেন তাদের (আওয়ামী লীগ) লোকেরা, যারা পরবর্তীতে সরকার গঠন করেছে এবং তার পরবর্তীতে পার্লামেন্টে গেছেন, পার্লামেন্ট গঠন করেছেন তারাই এর সঙ্গে জড়িত।

চামড়া সঙ্কটে বিএনপি জড়িত বলে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ হুয়ায়ুন যে বক্তব্য রেখেছেন, সে প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এরা (সরকার) তো কেউ দেশ চালাতে পারছে না, তারা ব্যর্থ হয়েছে। একটা অনির্বাচিত সরকার অবৈধ, জনগণের ম্যান্ডেট তাদের প্রতি নেই। পার্লামেন্ট বলুন আর সরকার বলুন এখানে জনগণের কোনো প্রতিনিধিত্ব নেই। এ ধরনের অর্বাচীনের মতো কথাবার্তা বলা ছাড়া তাদের তো কিছুই করার নেই।

এ সময়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, ফজলুল হক মিলন, আজিজুল বারী হেলাল, মীর সরফত আলী সপু, আবদুল আউয়াল খান, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, তাবিথ আউয়াল, যুবদলের সাইফুল আলম নিরব, এস এম জাহাঙ্গীর, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, গোলাম সারোয়ার, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাদরেজ জামান, ইয়াসীন আলী, ফখরুল হাসান রবিন, এস এম জিলানী, নজরুল ইসলাম, রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ প্র্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা : দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ঢাকাসহ সারাদেশে র‌্যালি, আলোচনা সভাসহ দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। গতকাল দুপুরে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথ সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা জানান। তিনি বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমরা ঢাকায় র‌্যালি করতে চাই ১ সেপ্টেম্বর। একইভাবে সারাদেশে জেলা-উপজেলাগুলোতে একই কর্মসূচি করব। এরপরের দিন আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে আলোচনা সভা করব। আমরা এই র‌্যালিকে শুধু প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালি হিসেবে দেখতে চাই না। আমরা এটাকে গণতন্ত্রকে যে অবরুদ্ধ করা হয়েছে তার যে পুনরুদ্ধারের সংগ্রাম চলছে, সেটাকেও আমরা সামনে আনতে চাই।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা যিনি সারা জীবন গণতন্ত্রের জন্য উৎসর্গ করেছেন, সেই নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে আটকে রাখা হয়েছে, সেই বিষয়টিও আমরা সামনে আনতে চাই এবং তার মুক্তির সংগ্রামকেও সবার কাছে নিয়ে আসতে চাই। এ দু’টি বিষয় হচ্ছে আমাদের এই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রতিপাদ্য বিষয়।

বিএনপির কর্মসূচি ঘোষণা করে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন ভোরে দলের কেন্দ্রীয় ও চেয়ারপারসনের কার্যালয়সহ সারাদেশে দলের অফিসে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে সকাল ৬টায়, সকাল ১০টায় শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হবে। দিবসটি উপলক্ষে পোস্টার ও ক্রোড়পত্র প্রকাশ এবং বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন আলোচনা সভার আয়োজন করবে।

বিএনপি মহাসচিবের সভাপতিত্বে যৌথ সভায় বিএনপির শামসুজ্জামান দুদু, রুহুল কবির রিজভী, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, ফজলুল হক মিলন, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, মাহবুবের রহমান শামীম, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, বিলকিস জাহান শিরিন, আবদুস সালাম আজাদ, মুহম্মদ মুনির হোসেন, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, অঙ্গসংগঠনের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, আবুল হোসেন, মহানগর বিএনপির এ বি এম রাজ্জাক, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Nadim ahmed ২০ আগস্ট, ২০১৯, ৭:২৩ পিএম says : 0
You can not expect anything positive from India ever.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন