ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

মহাবিশ্ব থেকে আসছে রহস্যময় সঙ্কেত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ এএম


মহাবিশ্ব থেকে পৃথিবীতে অসংখ্য সঙ্কেত (রিপিটেড সিগন্যাল) পাঠানো হচ্ছে বলে দাবি করছেন বিজ্ঞানীরা। গবেষকরা আটবার শক্তির ক্রমাগত বিস্ফোরণ বা ফাস্ট রেডিও বার্স্ট (এফআরবি) সনাক্ত করেছেন, যা পৃথিবীর টেলিস্কোপে ধরা পড়েছে। তারা রহস্যজনক সঙ্কেতগুলির উৎস আবিষ্কার করার চেষ্টা করছেন। এই আবিষ্কারের ফলে পৃথিবীর বাইরে প্রাণের নিদর্শন পাওয়ার ক্ষেত্রে একটি বিশাল অগ্রগতি হতে পারে।

বিজ্ঞানীরা ২০০৭ সালে প্রথম এফআরবি সঙ্কেত পেয়েছিলেন এবং এর পরে আরো অনেকবার এমন সঙ্কেত পান। তবে তারা কেবল দু’বার এমন সঙ্কেতের পুনরাবৃত্তি নিশ্চিত করেতে পেরেছেন।

একই সঙ্কেতের বারে বারে পুনরাবৃত্তি ধরতে পারা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ গবেষকরা এটি কোথা থেকে আসছে তা অনুমান করার এবং আরও বিশদে সেগুলো বোঝার সুযোগ পান। এজন্য, আরও আটটি পুনরাবৃত্ত সঙ্কেত আবিষ্কার গবেষকদের জন্য সেগুলো কোথা থেকে আসছে তা সন্ধানের জন্য বিশাল সুযোগ করে দিয়েছে।
আশ্চর্যজনকভাবে এই সঙ্কেতের উৎস কাছাকাছি কোথাও হতে পারে। গবেষকরা ধারণা করছেন, একটি সঙ্কেত আমাদের ছায়াপথের মধ্যেই অবস্থিত প্রতিবেশী কোন সৌরজগত থেকে আসছে। তবে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে এই সঙ্কেত সম্পর্কে আরও অনুসন্ধান করার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

নতুন সঙ্কেত কানাডার হাইড্রোজেন ইনটেনসিটি ম্যাপিং এক্সপেরিমেন্টে ধরা পড়েছে। বিজ্ঞানীরা আশা করছেন এই টেলিস্কোপ ‘এফআরবি’ ধরতে বড় ভ‚মিকা রাখবে। ইতিমধ্যেই এটি আরও আটটি সঙ্কেত ধরতে পেরেছে বলে আর্ক্সিভ (এআরএক্সআইভি) এ প্রকাশিত একটি নতুন গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে।

‘এফআরবি’ গুলো কোথা থেকে আসছে বা সেগুলো কি হতে পারে নিশ্চিত হওয়া যায়নি এখনো। সঙ্কেতের গভীর তীব্রতা থেকে বোঝা যায় যে এগুলি কোন বড় ঘটনায় প্রেরণ করা হয়েছে। তবে এটি যে কোনো কিছুই হতে পারে। বø্যাকহোলে কোন নক্ষত্রের পতনও হতে পারে, কিংবা বিশ্বজগতের মাধ্যমে পাঠানো কোনো এলিয়েনের বার্তাও হতে পারে। সঙ্কেতের উৎসটি বোঝার চেষ্টা করতে বিজ্ঞানীরা আরো সঙ্কেতের সন্ধান করেছেন। পুনরাবৃত্ত সঙ্কেতগুলো পাওয়ায় এক্ষেত্রে আরো বেশি নিশ্চিত হতে বড় সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

নিশ্চিত হওয়া দুটি সঙ্কেতের পাশাপাশি অন্যান্য গবেষকরা আরও দুটি সঙ্কেত পাওয়ার কথা জানিয়েছেন, যেগুলো পিয়ার-পর্যালোচিত জার্নালে প্রকাশিত হবে। নতুন আবিষ্কার এক্ষেত্রে সঙ্কেতগুলোর উৎস সম্পর্কে আরও বিস্তারিত গবেষণা সহায়ক হবে। সূত্র : ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন