ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

শিশুকে যৌন নিপীড়ন করে পরিবারকে ভীতি প্রদর্শন

কলাপাড়ায় হাত বেঁধে ধর্ষণসহ শিকার আরো ৪ : আটক ৫

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

কলাপাড়ায় এক কিশোরীকে হাত বেঁধে ধর্ষণ করা হয়েছে। অপরদিকে, রাজশাহীতে সৎ মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করে মাদকাসক্ত বাবা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক শিশুকে যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া নওগাঁয় শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, বোয়ালমারীতে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ২ জনসহ বিভিন্ন স্থানে ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় ৮ বছর বয়সী এক শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের ঘাটুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনা কাউকে জানালে প্রাণনাশের হুমকি দেয় ধর্ষণ চেষ্টায় অভিযুক্ত পাবেল।

যৌন নিপীড়নের শিকার শিশুটি ঘাটুরা গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। বর্তমানে শিশুটি জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অভিযুক্ত কাজী পাবেল ঘাটুরা গ্রামের কাজী বাড়ির মৃত কাজী আনু মিয়ার ছেলে।

শিশুটির পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ঘাটুরা গ্রামের কাজী পাবেলের বাড়িতে প্রতিদিন গরুর দুধ বিক্রি করে ওই শিশুর পরিবার। বৃহস্পতিবার স্কুলে যাওয়ার পথে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শিশুটিকে আনু মিয়ার বাড়িতে দুধ দিতে পাঠায় তার মা। বাড়িতে যাওয়ার পর আনু মিয়ার ছেলে কাজী পাবেল শিশুটিকে ঘরে আটকে রেখে যৌন নিপীড়ন করে। এসময় কেউ একজন এসে দরজায় ধাক্কা দিলে শিশুটিকে ছেড়ে দেয় কাজী পাভেল।

শিশুটির মা জানান, দুধ দিয়ে বাড়ি ফিরে এসে কাঁদতে কাঁদতে সে আমাকে সবকিছু খুলে বলে। ঘটনাটি জানার পর পাভেল আমাদের হুমকি দেয় কাউকে যেন না জানাই। কিন্তু এলাকায় জানাজানির পর এবং রাতে মেয়ের শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ার পর তাকে বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি করি।

জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক জিনান রেজা জানান, শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত জানা যাবে। তবে অভিযোগের ব্যাপারে বক্তব্য জানতে কাজী পাবেলের মুঠোফোনে ফোন করলে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন জানান, আমাদের কাছে ওই শিশুর পরিবার কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেনি। তবে খবর পেয়ে সদর হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।
কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কলাপাড়ায় ১৩ বছরের এক কিশোরীকে হাত বেঁধে মুখ চেপে ধর্ষণ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে পৌর শহরের নাচনাপাড়া এলাকায় বর্বর এ ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ রাতেই অভিযুক্ত ধর্ষক, বখাটে জুয়েল (২০) ও তার সহযোগী মাদক কারবারি মিঠুকে (২০) গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় হতভাগী কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে কলাপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা ও ভিকটিম সূত্রে জানা গেছে, সারা দিনের কাজ শেষে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় বাসায় ফিরে কিশোরীর বাবা নদীতে মাছ ধরতে যায়। আর মা ওই কিশোরী মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি থেকে একটু দুরের পুকুরে গোসল করতে যায়। এরই মধ্যে কিশোরী একা ঘরে ফিরছিল। পথিমধ্যে ওৎ পেতে থাকা অভিযুক্ত জুয়েল ও মিঠু জাপটে ধরে কিশোরীকে একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে হাত বেধে মুখ চেপে ধর্ষণ করে। দারিদ্রতার কারনে দুই বছর আগে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়া শেষে ওই কিশোরীর শিক্ষাজীবন ঝরে গেছে।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, এঘটনায় দুই জনকে আটক করা হয়েছে। ভিকটিমকে সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী প্রেরণ করা হয়েছে।
রাজশাহী : রাজশাহী নগরীর বাদুরতলা এলাকায় সৎ মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টার সময় গতকাল সকালে আজিমুদ্দিন ওরফে কাচু (৫০)। এক ব্যক্তিকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। সে তালাইমারি বাদুরতলার আব্দুল মালেকের ছেলে। কাচু মাদকসক্ত বলে পুলিশ জানিয়েছে।

মতিহার থানার ওসি জানান, নিজ বাড়িতে সৎ মেয়েকে (২৮) ধর্ষণের চেষ্টা করে কাচু। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয় লোকজন গিয়ে তাকে হাতেনাতে ধরে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে নেয়। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নওগাঁ : নওগাঁর মান্দায় চাচাতো ভাইয়ের দ্বারা ধর্ষণের শিকার হয়েছে ছয় বছরের এক শিশু। ঘটনার পর বিভিন্ন মহল ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করলেও পুলিশ বিষয়টি জানার পর ধর্ষক আবু বক্কর সিদ্দিককে (১৯) আটক করেছে। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ধর্ষককে তার বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার গনেশপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর মধ্যপাড়া গ্রামে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ধর্ষক আবু বক্কর সিদ্দিক ওই গ্রামের মমতাজ হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিশুটি ধর্ষকের চাচাতো বোন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিশুটি তার বাবার দোকান থেকে বাড়ি ফেরার পথে চাচাতো ভাই আবু বক্কর সিদ্দিক তাকে ফুসলিয়ে আম বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে শিশুটি রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে পরিবারকে জানায়। রাতেই তাকে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তখন থেকেই স্থানীয় প্রভাবশালীরা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছিল। মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) তারেকুর রহমান বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ সকালে ধর্ষককে বাড়ি থেকে আটক করে। শিশুটির মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

বোয়ালমারী (ফরিদপুর) : ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের গঙ্গানন্দপুর গ্রামে এক কিশোরীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে বোয়ালমারী থানায় মামলা হয়েছে। ওই কিশোরীর অভিযোগের ভিত্তিতে গঙ্গানন্দপুর গ্রামের আলী কসাইয়ের ছেলে জুয়েল (১৯), আব্বাস আলীর ছেলে জসিম (১৮) ও বাচ্চু মাতুব্বরকে (৩৫) আসামি করে গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মামলাটি নথিভূক্ত করা হয়। মামলা নম্বর ৫। পুলিশ গতকাল ভোরে অভিযান চালিয়ে জসিম ও বাচ্চু মাতুব্বরকে গ্রেফতার করে।

বোয়ালমারী থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম শামীম হাসান বলেন, খবর পেয়ে ওই রাতেই পুলিশ গিয়ে মেয়েকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। পরে মেয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা নথিভূক্ত করে দুই আসামিকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন