ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

গ্রামীণফোনকে ৩০ কোটি টাকা জরিমানা

বিটিআরসির ৩ চিঠি হাইকোর্টে বাতিল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০২ এএম

গ্রামীণ ফোনকে করা ৩০ কোটি টাকা জরিমানা সংক্রান্ত বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)র তিনটি চিঠি বাতিল ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল রোববার বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ এবং বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন। গ্রামীণ ফোনের এক রিট পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। গ্রামীণ ফোন পক্ষীয় কৌঁসুলি ব্যারিস্টার জুনায়েদ আহমেদ চৌধুরী জানান, ‘গো’ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা দানের জন্য গ্রামীণফোনকে করা জরিমানার ৩০ কোটি টাকা চেয়ে বিটিআরসি’র তিনটি চিঠি বাতিল ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। তবে, বিটিআরসি আইনের ৬৩ ও ৬৫ নম্বর ধারা অনুযায়ী নতুন করে চারমাসের মধ্যে গ্রামীণ ফোনকে চিঠি দিতে বলা হয়েছে। আদালত তার আদেশে এনটিটিএন নামের ইন্টারনেট সার্ভিসের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও তা ২০১৬ সাল পর্যন্ত অব্যাহত রাখায় রাষ্ট্রের কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা অডিটর জেনারেলের মাধ্যমে নিরূপণ করতে বিটিআরসির প্রতি নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এদিকে বিটিআরসি’র পক্ষের কৌঁসুলি ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই-রাকিব বলেন, গ্রামীণ ফোন বিটিআরসি’র অনুমোদন ছাড়াই এনটিটিএন সার্ভিস চালু রাখে। যা আইনসিদ্ধ নয় বলে রায় দিয়েছেন আদালত। এই সার্ভিস চালু রাখার মাধ্যমে রাষ্ট্রের কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা অডিটর জেনারেলের মাধ্যমে নিরূপণের জন্য বিটিআরসিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, টেলিযোগাযোগ আইন অনুযায়ী- কোনো মোবাইল ফোন অপারেটর সরাসরি তাদের অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে এ ধরণের ‘লাস্ট মাইল কানেকটিভিটি’ সেবা দিতে পারে না। লাস্ট মাইল কানেকটিভিটি হচ্ছে অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে ইন্টারনেটের সর্বশেষ পর্যায়ের সংযোগ। কিন্তু গ্রামীণফোন ‘গো’ ব্রডব্যান্ড সেবার নামে সোনালী ব্যাংককে সরাসরি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে- এমন অভিযোগ তোলে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি)। ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রæয়ারি বিটিআরসি’র কাছে তারা লিখিত অভিযোগ দেয়। অবৈধ সেবা দেয়ার কারণ জানতে ওই বছরের মার্চের শেষ দিকে গ্রামীণফোনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় বিটিআরসি। কিন্তু সন্তোষজনক উত্তর না পাওয়ায় গ্রামীণফোনকে জরিমানার সিদ্ধান্ত হয়। এ সিদ্ধান্তের আলোকে ৩০ কোটি টাকা জরিমানা করে তা পরিশোধ করতে ওই বছরের ৬ ও ২৯ নভেম্বর এবং ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি পৃথক তিনটি চিঠি দেয় বিটিআরসি। ওই চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ২০১৭ সালে রিট করে গ্রামীণ ফোন। এ পরিপ্রেক্ষিতে ওই বছরের ৯ ফেব্রæয়ারি হাইকোর্ট রুল জারি করেন । তিনটি চিঠির কার্যকারিতা স্থগিত করেন। রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে গতকাল উপরোক্ত আদেশ দেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন