ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আমাজনে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টায় যুদ্ধবিমান ও সেনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

আমাজন জঙ্গলের আগুন নেভাতে বিমান থেকে পানি ফেলা হচ্ছে -সংগৃহীত


ভয়াবহ দাবানলের কারণে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ আমাজন জঙ্গল গত তিন সপ্তাহ ধরে পুড়ছে। আগুন নেভাতে অবশেষে পদক্ষেপ নিয়েছে ব্রাজিল সরকার। সেখানে ৪৪ হাজার সেনাসদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি যুদ্ধবিমানের সাহায্যে পানি ঢালা শুরু হয়েছে। এদিকে, আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে যত দ্রুত সম্ভব সাহায্য করার ব্যাপারে এবার একমত হয়েছেন বিশ্বনেতারা। রোববার চলমান জি-৭ সম্মেলনের ফাঁকে এক সংবাদ সম্মেলনে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাখোঁ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।


খবরে জানা গেছে, ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো রোববার আমাজনের আওতাধীন সাত এলাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সামরিক অভিযানের অনুমতি দিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, স্থানীয় সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তার অনুরোধের পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ফ্রান্সে বৈঠকরত জি-৭ দেশগুলোর নেতারা আগুনের বিষয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করার পর এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সময় গত শনিবার সন্ধ্যায় ব্রাজিলের প্রতিরক্ষা বিভাগের পোস্ট করা একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, যুদ্ধবিমান থেকে হাজার হাজার লিটার পানি ছিটানো হচ্ছে। ব্রাজিলের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য রন্ডোনিয়ায় আমাজনের অংশে এভাবে আগুন নেভানোর কাজ শুরু হয়েছে।

এর আগে, গত শনিবার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনেরো আমাজনের আগুন নেভাতে সেনাবাহিনী নামানোর কথা ঘোষণা দেন। ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ কে বাঁচাতে বিশেষ কোনো আগ্রহ না দেখানোয় বিশ্বজুড়ে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন তিনি।

জি-৭ সম্মেলনে আমাজনের আগুন নিয়ে বিশেষ আলোচনারও আহবান জানিয়েছিলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ। আমাজনের আগুন নিয়ে জি-৭ সম্মেলনে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর বাণিজ্যিক লেনদেন বন্ধ করার হুঁশিয়ারি দেন। পাশাপাশি আগুন আয়ত্তে আনতে না পারলে আর্থিকভাবে বয়কটের কথা ভাবছিল জি-৭ ভুক্ত দেশগুলোর অনেকেই। আমাজনের আগুনকে ‘আন্তর্জাতিক সঙ্কট’ বলে আখ্যা দিয়েছে জার্মানি, ফ্রান্স, ব্রিটেনের মতো দেশগুলো। ফ্রান্স ও আয়ারল্যান্ড হুঁশিয়ারি দেয় যে, তারা ব্রাজিলের সঙ্গে বড়মাপের বাণিজ্যিক চুক্তিতে যাবে না। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও আমাজনের আগুন নেভাতে ব্রাজিলকে সাহায্য করতে চেয়ে টুইট করেছেন।

ব্রাজিলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, আমাজন ঘেঁষা ছয়টি প্রদেশে ৪৪ হাজার সেনাসদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। স্থানীয় সরকারকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে। সেনাবাহিনীর দুটি হারকিউলিস সি-১৩০ বিমান যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আগুন নেভাতে শুরু করে দিয়েছে। বিমান দুটি থেকে ৩ হাজার ১৭০ গ্যালন পানি ফেলা হচ্ছে। আমাজনের আগুনে অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত পোর্তো ভেলহোতে পাঠানো হয়েছে ৭০০ সেনা।
রন্ডোনিয়ার রাজধানী পুর্ত ভেলহোর আশপাশে সামরিক কর্মীরা দমকল বাহিনীর কর্মীদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করছেন। বিচারমন্ত্রী সার্জিও মোরো সামরিক পুলিশের একটি বাহিনীকে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করার অনুমতি দিয়েছেন। এ উদ্দেশ্যে ৩০ জনকে ব্রাসিলিয়া থেকে পুর্ত ভেলহোতে পাঠানো হয়েছে। তবে, রন্ডোনিয়ার বাইরে অন্য এলাকাগুলোয় সরকার উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিতে পারেনি। বোলসোনারো এক টুইটে বলেন, আলোচনার পর তিনি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কাছ থেকে উড়োজাহাজ ও দমকল কর্মীদের সহায়তার প্রস্তাব নিয়েছেন।

আমাজনের অগ্নিকান্ড নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হওয়ায় আন্তর্জাতিক মহলে তীব্র সমালোচনার শিকার হয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো। এর আগে অগ্নিকান্ডের জন্য বেসরকারি সংস্থাগুলোকে (এনজিও) দায়ী করেন তিনি। যেসব এনজিওর তহবিল বরাদ্দ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে, তারা সরকারের ভাবমূর্তিক্ষুন্ন করতে আমাজনে আগুন দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন প্রেসিডেন্ট। তবে এর সপক্ষে কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি।
পৃথিবীতে মোট অক্সিজেনের প্রায় ২০ শতাংশই সরবরাহ করে আমাজন। প্রায় ৩০ লাখ স্বতন্ত্র প্রজাতির গাছপালা ও প্রাণীর আবাসস্থল এই আমাজন। প্রতিবছর মিলিয়ন মিলিয়ন টন কার্বন ডাই–অক্সাইড শোষণ করে নেয় আমাজনের বিস্তৃত বনাঞ্চল। আমাজনের আগুনের ভয়াবহতার কারণে এই বন রক্ষায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আবেদন জানানো হচ্ছে। সূত্র : রয়টার্স, ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন