ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আগুন নেভাতে জি-৭ এর ২২ মিলিয়ন ডলার প্রত্যাখ্যান ব্রাজিলের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:৫৭ পিএম

দাউ দাউ করে জ্বলছে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ খ্যাত ব্রাজিলের আমাজন মহাবন। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা এই দাবানল নিয়ন্ত্রণে এরই মধ্যে দেশটিতে ২২ মিলিয়ন ডলারের অর্থ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সদ্য সমাপ্ত জি-৭ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বিশ্ব নেতারা। যদিও ইতোমধ্যে সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল।

দেশটির সরকারের বরাতে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ‘বিবিসি নিউজ’ জানায়, অ্যামাজন মহাবনে লাগা আগুন নেভানোর জন্য বিশ্বের শিল্পোন্নত দেশগুলোর সংগঠন ‘গ্রুপ অব সেভেনে’র (জি-৭) ৪৫তম সম্মেলনে বরাদ্দ হওয়া ২২ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ২০০ কোটি টাকা তারা নেবেন না। যেখানে এই অর্থ গ্রহণ না করার কারণ হিসেবে কোনো যুক্তি দাঁড় করাননি ব্রাজিলীয় কর্মকর্তারা।

এ দিকে অ্যামাজন সঙ্কট নিয়ে চলমান জি-৭ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রো এসব পদক্ষেপে এরই মধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়ের বলসোরানো। যে কারণে তিনি এই বিষয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্টের ভূমিকাকে একটি ‘ঔপনিবেশিকতামূলক মানসিকতা’ বলেও মন্তব্য করেছেন।

তাছাড়া দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এর আগেই দাবি করেছিলেন, ‘অ্যামাজনের আগুন নিয়ন্ত্রণের বাইরে নয়।’

অপর দিকে সোমবার (২৬ আগস্ট) ফ্রান্সের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় বায়ারিতজ শহরের এক রিসোর্টে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাখোঁ বলেন, ‘অ্যামাজনে সৃষ্ট দাবানলে যেসব দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে; এবার তাদের যত দ্রুত সম্ভব সাহায্য করার ব্যাপারে আমরা সকলে ঐক্যমতে পৌঁছেছি। অনাকাঙ্ক্ষিত এই আগুন নিয়ন্ত্রণে জি-৭ সম্মেলনে উপস্থিত নেতারা সংশ্লিষ্টদের ২২ মিলিয়ন ডলারের অর্থ দিতে যাচ্ছে।’

যদিও এই বৈঠকের আগে বিশ্বের সর্ববৃহৎ রেইন ফরেস্টটির বিধ্বংসী দাবানল সম্পর্কে আপৎকালীন আলোচনার জন্য সকল বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন ফরাসি এই প্রেসিডেন্ট। ম্যাখোঁ আরো বলেন, ‘আমাদের প্রতিনিধি দল সকল অ্যামাজন দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করছে; যাতে আমরা কোনো মজবুত সিদ্ধান্তের ব্যাপার তাৎক্ষণিক চূড়ান্ত করে ফেলতে পারি; যার মাধ্যমে পর্যাপ্ত অনুদান ও কারিগরি সহায়তা পাঠানো যাবে।’

ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্পেস রিসার্স’ এক বিবৃতিতে জানায়, চলতি বছর এ পর্যন্ত অ্যামাজনের গভীর জঙ্গলে এই নিয়ে প্রায় ৭২ হাজার ৮৪৩ বার আগুন লেগেছে; যা গত বছরের তুলনায় ৮৪ শতাংশ বেশি। বিশ্লেষকদের মতে, ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ খ্যাত এই অ্যামাজনের ৬০ শতাংশ ব্রাজিলের অন্তর্গত হলেও আরও মোট আটটি দেশের ভেতর এই বিরাট জঙ্গলের বিভিন্ন অংশ রয়েছে। যার মধ্যে— কলম্বিয়া, বলিভিয়া, ইকুয়েডর, গুয়ানা, পেরু, ফ্রেঞ্চ গুয়ানা, সুরিনাম ও ভেনেজুয়েল‌া।

যদিও এই আগুন নেভাতে ব্রাজিল ইতোমধ্যে অ্যামাজনে সামরিক বাহিনীর অন্তত ৪৪ হাজার সদস্য মোতায়েন করেছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি, ৭টি রাজ্যে সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপের বিষয়টিও অনুমোদন করা হয়েছে। এমনকি ব্যবহার করা হচ্ছে যুদ্ধবিমানও।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন