ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

রশিদকে নিয়ে সতর্ক সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ এএম

বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট খেলতে আসবে আফগানিস্তান। এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ছাড়াও বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নেবে আফগানরা। দুটি সিরিজকে সামনে রেখে দলের নেতৃত্ব ভার দেওয়া হয়েছে স্পিনার রশিদ খানকে। বাংলাদেশের আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে গরমে অভ্যস্ত হতে আবুধাবির ট্রেনিং ক্যাম্পে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে আফগানরা। যে গতিতে উন্নতি করছে আফগানিস্তান তাতে তাদের বিপক্ষে যে কোনো সংস্করণেই খেলা চ্যালেঞ্জিং। সেই চ্যালেঞ্জ নিতে সবচেয়ে ভালোভাবে সামলাতে হবে এই রশিদকেই। চট্টগ্রাম টেস্টে এই লেগ স্পিনার বাংলাদেশের জন্য বড় হুমকি হতে পারেন বলে মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

টেস্টখেলুড়ে দেশের খেতাব অর্জনের পর সাদা পোশাকে আফগানরা খেলেছে মাত্র দুটি ম্যাচ। ২০১৮ সালের জুনে বেঙ্গালুরুতে অভিষেক ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে হেরেছে ২৬২ রানে আর চলতি বছরের মার্চে টেস্টের আরেক নবাগত সদস্য আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দেহরাদুনে জিতেছিল ৭ উইকেটের ব্যবধানে। ভারতের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচে ফলোঅনে পড়ে আফগানরা। সেই ম্যাচে ৩৪.৫ ওভারে ১৫৪ রান খরচায় রশিদ খান নিয়েছিলেন মাত্র দুটি উইকেট। তবে, আইরিশদের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ১২ ওভারে ২০ রান দিয়ে দুটি আর দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪ ওভারে ৮২ রান দিয়ে ৫টি উইকেট তুলে নেন।

পরিসংখ্যানই বলছে, সীমিত ওভারের ক্রিকেটে সময়ের সেরা বোলারদের একজন হিসেবে নিজেকে এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠিত করেছেন রশিদ। ২০ বছর বয়সী স্পিনার ৬৮ ওয়ানডেতে ১৭.৮০ গড়ে নিয়েছেন ১৩১ উইকেট। ৩৮ টি-টোয়েন্টি ১১.৫৬ গড়ে তার উইকেট ৭৫টি। এখন পর্যন্ত দুটি টেস্ট খেলে ২৮.৪৪ গড়ে ৯ উইকেট নিয়েছেন রশিদ। তার নেতৃত্বে টেস্ট খেলতে বাংলাদেশে আসবে আফগানিস্তান। সাকিব মনে করেন, সীমিত ওভারের ক্রিকেটের মতো টেস্টেও সফল হতে পারেন রশিদ, ‘অভিজ্ঞতার দিক থেকে যদি বলি, আমরা এগিয়ে থাকব। কিন্তু ও বিশ্বমানের একজন বোলার। টেস্ট খেলেছে কেবল দুটি। সেদিক থেকে এই সংস্করণে ও একটু নতুন। তবে ও যে পরীক্ষিত খেলোয়াড় তা নিয়ে কোনো সংশয় নেই। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ও সফল হয়েছে। আর যেহেতু অন্য দুই সংস্করণে সাফল্য পেয়েছে টেস্টেও সফল না হওয়ার কোনো কারণ নেই।’

জয়-পরাজয়ের হিসাবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডেতে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ, পিছিয়ে আছে টি-টোয়েন্টিতে। সাকিব মনে করেন, টেস্টে হবে প্রবল প্রতিদ্ব›িদ্বতার, ‘চ্যালেঞ্জ তো থাকে সব সময়ই। আফগানিস্তান যেভাবে উন্নতি করেছে তাতে তাদের বিপক্ষে যেকোনো সংস্করণে খেলা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। তাদের বেশ কিছু মানসম্পন্ন খেলোয়াড় আছে যারা আমাদের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। আমাদের খুব ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। ব্যক্তিগত দুই একটি পারফরম্যান্স দিয়ে জেতার সুযোগ খুব বেশি একটা থাকবে না। টিম হিসেবে ভালো খেলতে হবে।’
আবু জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ঘাঁটি থেকেও রশিদ জানালেন, ম্যাচের ফল নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না তারা। নিজেদের শতভাগ উজাড় করে প্রস্তুতি আর ম্যাচের ফোকাসটা ধরে রাখার দিকে নজর দিচ্ছে দল। দুই টেস্টে ৯ উইকেট পাওয়া রশিদ জানালেন, ‘আমাদের প্রথম ম্যাচের থেকে অনেক ভালো খেলেছি দ্বিতীয় ম্যাচে। প্রতিটি ম্যাচেই আমরা পজিটিভ দিকগুলো অর্জন বলে মনে করি। দল হিসেবে আমাদের প্রতিনিয়ত উন্নতি হচ্ছে। বাংলাদেশ সফরে আমরা একটা শক্তিশালী দল নিয়েই যাচ্ছি। দলে অনেক অভিজ্ঞ এবং তরুণ ক্রিকেটার আছে, যা আমাদের একটা দল হিসেবেই খেলতে সহায়তা করবে।’

বাংলাদেশ সফরের জন্য আলাদা করে আফগান দলপতি জানালেন ১৭ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান ইব্রাহিম জাদরান এবং পেসার আহমাদ শিরজাদের কথা। সাদা পোশাকে ইয়ামিন আহমাদ জাজাইয়ের কথাও বললেন রশিদ, ‘ইব্রাহিম কদিন আগে বাংলাদেশ সফরে গিয়ে ‘এ‘ দলের হয়ে খেলে এসেছে। দারুণ করেছে সেই সফরে। সে আমাদের অনেক সহায়তা করবে এই আসন্ন সিরিজে।’

একমাত্র টেস্টের জন্য আফগানরা রেখেছে ১৫ সদস্যকে। আর ত্রিদেশীয় সিরিজে রাখা হয়েছে ১৭ ক্রিকেটারকে। টেস্টের জন্য অধিনায়ক রশিদ খানের দলে আছেন আসগর আফগান, মোহাম্মদ নবী, হাসানউল্লাহ জানাত, ইব্রাহিম জাদরান, রহমত শাহ, হাশমতউল্লাহ শহিদী, ইকরাম আলী খিল, জহির খান, জাভেদ আহমাদি, আহমাদ শিরজাদ, ইয়ামিন আহমাদজাই, আফসার জাজাই এবং কায়েস আহমাদ।

অবধারিতভাবে ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের নেতৃত্বেও আছেন রশিদ খান। দলের বাকি সদস্যরা হলেন আসগর আফগান, মোহাম্মদ নবী, হজরতউল্লাহ জাজাই, নাজিব তারাকাই, মুজিব উর রহমান, শরাফুদ্দিন আশরাফ, নাজিব জাদরান, শহীদউল্লাহ কামাল, করিম জানাত, গুলবাদিন নাইব, ফরিদ আহমাদ মালিক, শফিউল্লাহ শাফাক, ফজল নিয়াজাই, দৌলত জাদরান, নাভিদ উল হক এবং রহমানউল্লাহ গুরবাজ।

একমাত্র টেস্টসহ সিরিজে অংশ নিতে ৩০ আগস্ট ঢাকায় পৌঁছাবে আফগানিস্তান দল। ১ সেপ্টেম্বর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে বিসিবি একাদশের বিপক্ষে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে তারা। এরপর ৫-৯ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের একমাত্র টেস্টে টাইগারদের মুখোমুখি হবে আফগানরা।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন