ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

খেলাধুলা

এবার ফুটবলেও হার আফগানদের কাছে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৩০ পিএম

এক হারের ক্ষত দগদগে থাকার পরও আসলো দ্বিতীয়টির খবর। ক্রিকেটের পর এবার ফুটবলেও আফগানদের কাছে হারলো বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে আগের দিন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল চট্টগ্রাম টেস্ট হেরেছে ২২৪ রানের বিশাল ব্যবধানে। লজ্জাজনক সেই হারের পরের দিনই আফগানদের সামনে ফের মুখ থুবরে পড়ে লাল-সবুজের ফুটবলাররা। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরেই মিশন শুরু করেছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। মঙ্গলবার নিরপেক্ষ ভেন্যু তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবের রিপাবলিকান সেন্ট্রাল স্টেডিয়ামে আফগানিস্তান ১-০ গোলে হারায় বাংলাদেশকে। বিজয়ী দলের হয়ে অধিনায়ক ফারশাদ নুর একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন।

এটা আফগানিস্তানের কাছে টানা দ্বিতীয় হার বাংলাদেশের। আগের দেখায় ২০১৫ সালের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে আফগানদের বিপক্ষে ৪-০ গোলে হেরেছিল লাল-সবুজরা।

সোমবার চট্টগ্রামে একমাত্র টেস্টে স্বাগতিকদের বিপক্ষে আফগানদের অসাধারণ জয়ে লাল-সবুজের ফুটবলপ্রেমীদের চোখ ছিল দুশানবে। তাদের আশা ছিল যেখানে আফগান ক্রিকেটাররা সব অংক ভুল প্রমাণ করে বাংলাদেশকে হারায়, সেখানে হয়তো একই কাজ করতে পারবেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা। কিন্তু না, মাঠে মিলে গেলো সহজ সমীকরণ- ফেভারিট দলটিই জিতে ঘরে ফিরলো।

চট্টগ্রামে আন্ডারডগ আফগান ক্রিকেটাররা জিতলেও, দুশানবেতে আন্ডারডগ বাংলাদেশ জিততে পারলো না।

ম্যাচে আফগানিস্তান একটি মাত্র গোল দিলেও আরো বড় ব্যবধানে জিতলে অবাক হওয়ার কিছু ছিল না। শারীরিক শক্তি আর গতিতে এগিয়ে থাকা আফগান ফুটবলাররা ম্যাচের শুরু থেকে চড়াও হয়ে খেলতে থাকলেও ২৭ মিনিট পর্যন্ত তাদের আটকে রাখতে সক্ষম হয় বাংলাদেশের জমাট রক্ষণভাগ। শুরু থেকে আক্রমণাত্বক ফুটবল খেললেও বাংলাদেশের গোলরক্ষককে তেমন কোনো পরীক্ষায় ফেলতে পারছিল না ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা আফগানিস্তান। আগের ম্যাচে কাতারে কাছে ৬-০ ব্যবধানে বিধ্বস্ত হওয়া আফগানরা ম্যাচের ২১ মিনিটে লক্ষ্যে প্রথম শট নেয়। অবশ্য তা সহজেই ফেরান বাংলাদেশ গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। ২৭ মিনিটে সেট পিস থেকে পিছিয়ে পড়ে বাংলাদেশ। ফ্রি কিকে আফগান অধিনায়ক ফারশাদ নুরের হেড লাফিয়ে ফিস্ট করার চেষ্টা করেও আটকাতে পারেননি রানা। বল তার গ্লাভস ছুঁয়ে জালে জড়ায় (১-০)।

এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া হয়ে আক্রমণ চালায় আফগানিস্তান। কিন্তু বিরতির আগে ওই এক গোলেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের। প্রথমার্ধে নিজেদের রক্ষণ সামলাতেই ব্যস্ত ছিলেন বাংলাদেশের ডিফেন্ডাররা। এ সময় ফরোয়ার্ডরা প্রতিপক্ষের সীমানায় তেমন কোনো আক্রমণই করতে পারেনি।

এক গোলে পিছিয়ে বিরতিতে গেলে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও বাংলাদেশের কৌশলে পরবির্তন আসেনি। তা খেলতে থাকে রক্ষণভাগ সামলেই। ৪৮ মিনিটে গোলরক্ষক রানার বুদ্ধিদ্বীপ্ত সেভে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায়নি আফগানিস্তান। আফগান ফরোয়ার্ড বলের নাগাল পাওয়ার আগেই ছুটে এসে বিপদমুক্ত করেন রানা। একটু পর জুবায়ের আমিরির নেয়া শটও ফেরান তিনি।

ম্যাচের ৫৭ মিনিটে বিপলু আহমেদকে তুলে রবিউল হাসানকে নামান বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম পর্বে লাওসের মাঠে জেতা ম্যাচে একমাত্র গোলটি করেছিলেন ২০ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। ছয় মিনিট পর সতীর্থের বাড়ানো বলে ঠিকঠাক হেড নিতে পারেননি টুটুল হোসেন বাদশা। ফলে সমতায় ফেরার সুযোগ নষ্ট হয় বাংলাদেশের। সময় যতই গড়ায় গোলের আশায় একটু একটু করে ওপরে উঠতে শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু রবিউল-নাবীব নেওয়াজ জীবনরা শেষ পর্যন্ত কাঙ্খিত গোল এনে দিতে পারেননি। ফলে হারের গ্লানি নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় লাল-সবুজদের।

এ জয়ে ফিফা স্বীকৃত ম্যাচের পরিসংখ্যানে মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে গেলো আফগানিস্তান। দু’দলের সাতবারের দেখায় আফগানিস্তানের জয় যেখানে দুটি, সেখানে বাংলাদেশ জিতেছে এক ম্যাচ। বাকি চার ম্যাচ ড্র হয়েছে। ১৯৭৯ সালে এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে ৪-১ গোলে জিতেছিল বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতারের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আগামী ১০ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে খেলাটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Hm Faisal ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৯:৪৪ এএম says : 0
বাংলাদেশ বিশ্বকাপেে সুযোগ পেতে কতটা ম্যাচ জিততে হবে?
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন