ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

মহানগর

প্রয়োজনে থানায় ওসিগিরি করব: নতুন ডিএমপি কমিশনার

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৪ পিএম

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নতুন কমিশনার বলেছেন, অধীনস্থ কোনো থানায় যদি জনগণ কাঙ্ক্ষিত সেবা ও ভালো আচরণ না পায়, আমার সিনিয়র অফিসারদের থানায় বসাবো প্রয়োজনে আমি নিজে থানায় বসে ওসিগিরি করব। এলাকার লোকদের কথা বলব।

আজ রোববার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন ডিএমপির নতুন কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, থানায় সেবা নিতে যাওয়া কাউকে যেন কোনো ধরনের হয়রানি না করা হয়, সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, আমি দায়িত্ব নেয়ার পরেই ঢাকার সব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও উপ-কমিশনারদের (ডিসি) সঙ্গে বসেছিলাম। তাদের প্রয়োজনীয় ও কঠোর মনিটরিংয়ের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষ যাতে পুলিশভীতি থেকে বের হতে পারে সেই ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি বলেন, থানায় যেন অসহায় বা অপরাধের শিকার হয়ে কোনো মানুষ হয়রানি ছাড়া মামলা ও জিডি করতে পারে, থানা থেকে বের হলে যেন তার মধ্যে এই বোধ থাকে যে পুলিশ তার সহযোগিতা করবে, তা নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ যাতে পুলিশের দ্বারা হয়রানি, চাঁদাবাজির শিকার, পুলিশি সেবার বিপরীতে যাতে আর্থিক লেনদেন না হয়, সেদিকে নজর রাখব। কারও বিরুদ্ধে যদি কোনো অভিযোগ থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২:০৬ পিএম says : 0
সম্মানিত কমিশনার মহোদয় আইন শৃংখলা উন্নয়নের জন্য বিশাল কর্মসূচি নিন। প্রতিটি থানায় ওয়াড়ে ওয়াড়ে পূলিশ পাবলিক সমাবেশ জনগণের মতামত নোড করুন। পঞ্চাশ থানার কর্মকর্তারা স্হায়ীয় গন্যমান্য ব্যক্তি ব্যবসায়ী ছাত্র শিক্ষক সমাজের সদ্দার সভাপতি ও সমাজ সেবী সংঘটন ঐ এলাকায় মসজিদের ঈমাম সহ রাজনৈতিক নেতা দের পরিপুন্য ডেটা বেজ তালিকা প্রস্তুত করুন। প্রথমে এক বৎসরের সামাজিক নিরাপত্তা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা পুলিশ জনগণের বন্ধু হতে চাই শিরোনামে পঞ্চাশ টি ওয়াড়ে তিন চারশত সভা করেন। সাফল্যের ব্যাপারে শতভাগ বিশ্বাস রাখতে পারেন। কারণ আপনি অত্যন্ত যোগ্য মেধাজ্ঞান সম্পন্য ব্যক্তি। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর ভীষণ বাস্তবায়নে আইনের শাসন সাধারণ মানুষের জীবনের নিরাপত্তা অত্যন্ত জরুরী। আমি পুলিশের বন্ধু ওরা আছেন বলেই আটার কোটি মানুষ রাতে ঘুমাতে পারেন। আর পুলিশের মানবীক রাজনৈতিক বদলী বানিজ্য ব্যাপারে মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সাথে আইজিপি সাথে কথা বলুন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী পুলিশের উন্নয়ন অগ্রগতি অগ্রাধিকার দিবেন। ইতিমধ্যে ব্যাংক প্রতিষ্ঠা হলো। শেষ কথা আপনি স্বাধীন ভাবে রাজধানী কে শান্ত রাখার পরিকল্পনা করুন। আল্লাহ আপনার সহায়। আপনার নিঃসার্থ বন্ধু।
Total Reply(0)
nirob ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৩৫ পিএম says : 0
সাধারণ মানুষ পুলিশের দ্বারা হয়রানি, চাঁদাবাজির শিকার হয়, জনগণ কাঙ্ক্ষিত সেবা ও ভালো আচরণ পায় না ,পুলিশি সেবার বিপরীতে আর্থিক লেনদেন হয় ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন