ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বশেমুরবিপ্রবি’র ভিসির পদত্যাগে আল্টিমেটাম

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

 গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) এর ভিসি প্রফেসর খোন্দকার নাসির উদ্দীনকে পদত্যাগে ২৪ ঘন্টার সময় বেঁধে দিয়েছে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’। একই সাথে ওই বিশ^বিদ্যালয় থেকে ‘অন্যায়ভাবে’ বহিষ্কৃত সাংবাদিক ফাতেমা তুজ জিনিয়াসহ আরও ৩৪ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়ার আহŸান জানিয়েছে তারা। অন্যদিকে ভিসির এ ধরনের ঘটনা একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌলিক ভিত্তির ওপর কুঠারাঘাত এবং সংবিধান প্রদত্ত একজন নাগরিকের বাকস্বাধীনতা ও মত প্রকাশের অধিকারের প্রতি স্পষ্ট অঙ্গুলী প্রদর্শন উল্লেখ করে সারাদেশের ক্যাম্পাসগুলোতে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুমকি দিয়েছে বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্ণালিস্টস ফেডারেশন।

গতকাল সোমবার ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের (ঢাবি) রাজুভাষ্কর্যের সামনে এক প্রতিবাদী সমাবেশ ও মানববন্ধনে ভিসির পদত্যাগ দাবি করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সংগঠনিটর আহŸায়ক ও ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. আ ক ম জামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে এতে সংহতি বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রায়হানুল ইসলাম আবির, সাধারণ সম্পাদক মাহদী আল মুহতাসিম নিবিড় প্রমূখ।

ড. আ ক ম জামাল উদ্দীন বলেন, খন্দকার নাসির উদ্দীন বিশ^বিদ্যালয়ে স্বৈরশাসন কায়েম করেছেন। গত কয়েক মাসে তার বিরুদ্ধে পত্রপত্রিকায় বিস্তর লেখালেখি করা হয়েছে। কিন্তু আমি জানি না শিক্ষা মন্ত্রণালয়, বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ঘুমিয়ে আছে কিনা। ভিসি তার কর্মকাÐের ম্ধ্যামে বঙ্গবন্ধুকে অপমান করেছেন মন্তব্য করে ঢাবির এ প্রফেসর বলেন, ছাত্রজীবনে তিনি স্বাধীনতাবিরোধী রাজনীতি করতেন। এরকম কুলাঙ্গার ভিসিকে আমরা জাতির জনকের জন্মভূমিতে থাকতে দেবো না। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে তাকে অপসারণ করতে হবে। একই সাথে বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের ছাত্রত্ব ফিরিয়ে দিতে হবে। দাবি মানা না হলেও শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের ঘোষণা দেন তিনি। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের ঢাবি শাখার সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন প্রমুখ।

অন্যদিকে ক্যাম্পাসটিতে কর্মরত সাংবাদিক ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কারের ঘটনা ও অন্য সাংবাদিকদের ডেকে নিয়ে হয়রানি, জোরপূর্বক সাংবাদিক সমিতি থেকে বহিষ্কার করানো, হুমকি-ধমকি ও সর্বশেষ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার ক্যাম্পাস প্রতিনিধি শামস জেবিনের ওপর হামলার ঘটনায় ক্ষুব্ধ ও বিস্মিতি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস ফেডারেশন। সংগঠনটির সভাপতি আসিফ ত্বাসীন ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান নয়ন স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বহিষ্কৃত সাংবাদিকের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও অন্য সাংবাদিকের উপর হামলাকারীদের বিচার করা না হলে সারাদেশের ক্যাম্পাসগুলোতে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলোর হুমকি দেয়া হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, প্রফেসর ড. খন্দকার মো. নাসিরউদ্দিনের নারী কেলেঙ্কারি, আর্থিক অনিয়ম, নিজ স্বার্থে ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ব্যবহারের অভিযোগগুলো ধামাচাপা দিতে তাঁর প্রত্যক্ষ মদদে এ ঘটনাগুলো ঘটছে বলেই প্রতীয়মান হয়। ফাতেমা তুজ জিনিয়া এসব বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে লিখে যাচ্ছিলেন, যা ভিসির ক্ষোভের প্রধান কারণ।

ক্যাম্পাস জার্ণালিস্টস ফেডারেশন আগামী বুধবারের মধ্যে বশেমুরবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পুরো ঘটনার ব্যাখ্যা ও তাঁদের অবস্থান জানাতে বলে। এ বিষয়ে সন্তোষজনক ব্যাখ্যা না দিতে পারলে তাদের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়। কর্মসূচির অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয়ভাবে আগামী বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় ঢাবির অপরাজেয় বাংলায় পাদদেশে মানববন্ধনের ডাক দেয়া হয়েছে।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন