ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

১৭৬ বছর ধরে...

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

১৭৬ বছর ধরে কাচের জারে রেখে দেয়া হয়েছে এক ব্যক্তির কাটা মাথা! কে এই ব্যক্তি? কেন রেখে দেয়া হয়েছে তার মাথা? সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা গেল সেই ঘটনা। যে ব্যক্তির মাথা রেখে দেয়া হয়েছে তার নাম দিয়োগো আলভেজ।

১৮১০ সালে স্পেনে জন্ম, ১৯ বছর বয়সে কাজের তাগিদে দেশ ছেড়ে পর্তুগালে চলে আসে দিয়োগো। কিন্তু পর্তুগালে মরিয়া হয়ে কাজ খুঁজে বেরিয়েও শেষমেশ হতোদ্যম হতে হয় তাকে। আর এই হতাশা থেকে ধীরে ধীরে নেশার জগত এবং সেখান থেকে অপরাধ জগতে নাম লেখায় সে। প্রথমে ছোটখাটো অপরাধ দিয়ে হাত পাকানো শুরু করে। তার পর চুরি, ডাকাতি, রাহাজানির মধ্য দিয়ে ধীরে ধীরে সিরিয়াল কিলার হয়ে ওঠে সে। গোটা লিসবনে সাড়া ফেলে দিয়েছিল সে।

১৮৩৬ থেকে ১৮৪০-এর মধ্যে ৭০টি খুন করে দিয়োগো। তার শিকারের তালিকার বেশিরভাগটাই ছিল কৃষক। সারাদিন কাজ শেষে তারা যখন বাড়ি ফিরতেন, লিসবন নদীর সেতুর উপরে দাঁড়িয়ে থাকত দিয়োগো। তাদের লুঠ করার পর দেহ টুকরো টুকরো করে নদীতে ভাসিয়ে দিত। একটা গ্যাংও তৈরি করে ফেলে সে। ধীরে ধীরে বিশাল নেটওয়ার্ক তৈরি হয়ে যায় তার। যথেচ্ছ লুঠপাট, খুন করতে থাকে সে ও তার গ্যাং। পরে এক ডাক্তার ও তার পরিবারকে খুন করাটাই তার কাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তল্লাশি চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আদালতে দিয়োগো স্বীকার করে ৭০ জনকে নিষ্ঠুর ভাবে খুন করেছে সে। তার অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পর আদালত তাকে মৃত্যুদন্ড দেয়।

কী ভাবে এত নিষ্ঠুরতার সঙ্গে খুন করত দিয়োগো, তা জানতে উৎসুক হয়ে ওঠে মেডিক্যাল-সার্জিক্যাল স্কুল অব লিসবন-এর বিজ্ঞানীরা। তার মস্তিষ্ক নিয়ে গবেষণা করার জন্য ফাঁসির পর দিয়েগোর মাথা কাটা হয়। তবে বহু গবেষণার পরও বিজ্ঞানীরা দিয়েগোর নিষ্ঠুরতার রহস্য ভেদ করতে পারেননি। দিয়োগোর সেই মাথাই কাচের জারে সংরক্ষিত করা আছে লিসবন বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যানাটমিক্যাল থিয়েটারে। সূত্র : রিপ্লিস ডট কম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন