ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

সাড়ে ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করছে এলজিইডি

বরিশালে বারটান-এর আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

নাছিম উল আলম | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

বরিশালে প্রায় সাড়ে ১১ কোটি টাকা ব্যায়ে বাংলাদেশ ‘ফলিত পুষ্টি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট-বারটান’-এর বিভাগীয় আঞ্চলিক কমপ্লেক্স নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই বারটান-এর বরিশাল বিভাগীয় কার্যক্রম এ ভবন থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। সম্পূর্ণ দেশীয় তহবিলে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর মহানগরীর মহাবাজ এলাকায় প্রায় এক একর জমির ওপর বারটান কমপ্লেক্সের নির্মাণ কাজ শেষ করে এনেছে। ইতোমধ্যে অফিস ভবন ও প্রশিক্ষণ ভবনসহ মূল অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।

দরপত্র আহবানের পরে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৬ তলা ভিতের ওপর তিনতলা প্রশাসনিক ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। প্রায় পৌনে ৪ কোটি টাকা ব্যায় সাপেক্ষ এ ভবন নির্মাণে একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সাথে প্রায় ২ কোটি ৮৯ লাখ টাকার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ২০১৬-এর ১০ ফেব্রুয়ারি ৬ তলা ভীতের ওপর অপর একটি তিনতলা প্রশিক্ষণ ও ডরমেটরি ভবন নির্মানের লক্ষে ভিন্ন একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সাথে প্রায় ৫ কোটি টাকার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। প্রাক্কলিত মূল্য ছিল ৬ কোটি টাকা। কমপ্লেক্সটির মাটি ভরাটসহ ভূমি উন্নয়নে গত বছর ১১ জানুয়ারি ২৩ লাখ ৪০ হাজার টাকার অপর একটি চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়। যার মূল প্রাক্কলন ছিল ২৬ লাখ টাকা। গত বছর নভেম্বরে বারটান বরিশাল বিভাগীয় অফিস ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট’র সীমানা প্রাচীর ও মূল ফটক নির্মাণে ৮৭ লাখ ৪০ হাজার টাকার একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সাথে। এখানেও প্রাক্কলিত মূল্য ছিল প্রায় ৯২ লাখ টাকা। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির অভ্যন্তরীণ রাস্তা নির্মাণে ২১ লাখ ৬ হাজার টাকার বিনিময়ে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে গত জানুয়ারিতে।
প্রতিষ্ঠানটির ভবন নির্মাণসহ সমস্ত ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে ৯৫ ভাগ থেকে শতভাগই সম্পন্ন হয়েছে। তবে কোন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানই নানা জটিলতার কারণে এখানে সময়মত নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারেনি।
ইতোমধ্যে অভ্যন্তরীণ রাস্তা ও সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজও ৬০-৭০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে বারটান-এর বরিশাল বিভাগীয় অফিস ও প্রশিক্ষণ কমপ্লেক্স-এর সমদুয় নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে প্রতিষ্ঠানটির কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শরিফ মো. জামাল উদ্দিন।
বরিশালে বারটান-এর বিভাগীয় আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি নির্মিত হলে এ অঞ্চলের খাদ্যমান পর্যালোচনাসহ পুষ্টিগুনের ওপর গবেষণাসহ প্রশিক্ষণ প্রদান সহজতর হবে বলে আশা করছেন পুষ্টি বিজ্ঞানীগন। এতদিন ভাড়া বাড়িতে অতি ক্ষুদ্র পরিসরে শুধুমাত্র দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল প্রতিষ্ঠানটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন