ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

কোটালীপাড়ায় সরকারি ওষুধ বাণিজ্যের অভিযোগ

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) উপজেলা সাংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া প্রাণীসম্পদ দপ্তরের উপ-সহকারী কর্মকর্তা রাধা গোবিন্দ দাস (প্রানী স্বাস্থ্য) এর বিরুদ্ধে সরকারি ঔষধ বানিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনুসন্ধানে এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে, অভিযোগ রয়েছে তিনি একই স্থানে দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে চাকরি অবস্থায় থাকার ফলে সেচ্ছাচারী হয়ে উঠেছেন এবং বছরের পর বছর অফিস থেকে সরকারি ঔষধ বাহিরে নিয়ে রোগীর চিকিৎসা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। অপরদিকে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অফিসে রোগী দেখার নিয়ম থাকলে ও সেটা না করে বাহিরের কল আসলেই তিনি ঔষধ নিয়ে চলে যান সেখানে।

অফিস সূত্রে জানা যায়, সাধারণ মানুষদের গৃহপালিত গরু, ছাগল, হাস-মুুরগি চিকিৎসার জন্য প্রতিবছর সরকার বিনামূল্যে এক লাখ টাকার ঔষধ দিয়ে থাকেন, উক্ত ঔষধ গুলো বিনামূল্যে দেয়ার কথা থাকলেও সেটা করা হচ্ছে না, নামমাত্র দুই একটি ঔষধ ব্যবহার করে বাকি ঔষধ গুলো বাহিরে নিয়ে বানিজ্য করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন তিনি। গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার বঙ্কুরা গ্রামের বদু শেখের বাড়িতে রোগী দেখতে গেলে উপ-সহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা রাধা গোবিন্দ দাসের কাছে সরকারি ঔষধ দেখতে পাওয়া যায়। এ সময় তার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন এটা অন্যায়। সরকারি ঔষধ বাহিরে আনা ঠিক হয়নি বলে তিনি জানান এই বলে তিনি দ্রæত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।
উপজেলা প্রাণীসম্পদ দপ্তরের উপ-সহকারী প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ছিদ্দিকুর রহমান, ইদ্রিস আলী হাওলাদার, আবুল কালাম খাঁন ও হেমায়েত উদ্দিন খাঁন বলেন সরকারি ঔষধ বাহিরে নিয়ে যাওয়ার কোন বিধান নেই। এ ব্যপারে উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা: পলাশ কুমার দাশ বলেন সরকারি ঔষধ বাহিরে নিয়ে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই, এটা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ, বাহিরে যখন তার কাছে ঔষধ পাওয়া গেছে তখন তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আজিজ আল মামুন বলেন এটা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। কোন ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না, তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন