ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ভিক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে ধর্ষণ

তরুণীসহ শিকার আরো ৫ কারাগারে রিহ্যাবের ২ পরিচালক

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

৫৫ বছর বয়সী এক নারী ভিক্ষায় জীবিকা নির্বাহ করেন। প্রতিদিনে ন্যায় গত রোববারও ভিক্ষাশেষে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে তার ওপর কু-নজর পড়ে স্থানীয় যুবক শাকিলের। তাকে জোরপূর্বক তুলে ধর্ষণ করে সে। এ কাজে তাকে সহযোগিতা করে দিলদার নামে আরেক ব্যক্তি। ধর্ষণশেষে ওই নারীকে ঘটনা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়া হয়। রাজধানী ঢাকায় চাকরির প্রলোভনে এক তরুণীকে ধর্ষণ ঘটনায় রিহ্যাবের ২ পরিচালককে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। কিশোরগঞ্জে জিন তাড়ানোর নামে তরুণীকে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। লালমনিরহাটে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় থানায় অভিযোগ করে বিপাকে পরিবার। এছাড়া পাবনায় শিশু ও সেনবাগে যুবতী ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ মামলায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঢাকা : রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) দুই পরিচালকের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। গতকাল সোমবার শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী এ আদেশ দেন। কারাগারে যাওয়া রিহ্যাবের দুই পরিচালক হলো- শাকিল কামাল চৌধুরী ও মো. মহিউদ্দিন সিকদার।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধানমন্ডি মডেল থানার ওসি (অপারেশন) মো. আশফাক রাজীব হাসান আসামিদের আদালতে হাজির করেন। এ সময় মামলার সুষ্ঠু তদন্তে আসামিদেরকে জেলহাজতে আটক রাখার আবেদন করেন তিনি। শুনানির সময় বিচারক এ মামলায় কেন রিমান্ড চাওয়া হলো না সেই বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এরপর বিচারক জামিনের আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এর আগে গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৯টায় গণধর্ষণের অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

মামলার আবেদনে বলা হয়, আসামি শাকিল কামাল চৌধুরীর সাথে ভিকটিমের ৭-৮ মাস আগে ফেসবুকে পরিচয় হয়। ভিকটিমকে চাকরির কথা বলে আসামি তাকে ঢাকার আসার জন্য বলে। গত ২৬ সেপ্টেম্বর ওই তরুণীর সঙ্গে আসামি দেখা করে। এর দুই দিন পর তরুণীর ভাইয়ের নাম্বারে কল দিয়ে তরুণীকে তার অফিসে এসে দেখা করতে বলে। সেই কথা অনুসারে ওই তরুণী অফিসে এলে এ দুই আসামি তাকে ধর্ষণ করে। প্রাথমিক তথ্য বিবরণে ধর্ষণের সত্যতা পাওয়া গেছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) সমন্বয়কারী চিকিৎসক বিলকিস বেগম জানান, ওই নারীর ফরেনসিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশ ডিএনএ টেস্টের জন্য পরনের কাপড় দিয়েছে। সেগুলোর ডিএনএ পরীক্ষাও করা হবে। প্রতিবেদনগুলো পেলে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেয়া হবে। তবে ফরেনসিক পরীক্ষা-নিরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলেও জানান তিনি।
পুলিশ জানিয়েছে, বেশ কিছুদিন থেকেই চাকরির জন্য রিহ্যাবের একজন পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন ওই তরুণী। পরিচালক তাকে চাকরির বিষয়ে আশ্বস্ত করেন। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য রোববার ধানমন্ডির ১৩ নম্বর সড়কের একটি বাসায় তরুণীকে আসতে বলেন। ওই বাসায় যাওয়ার পর একটি কক্ষে আটকে রেখে তাকে দুই পরিচালক ধর্ষণ করেন। ওই ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়।
রংপুর : রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় ৫৫ বছর বয়সী এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ গতকাল সোমবার এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার ব্যক্তির নাম দিলদার হোসেন (৪০)। তিনি তারাগঞ্জের বাসিন্দা।

মামলা ও পুলিশ স‚ত্রে জানা গেছে, ওই নারী ভিক্ষা করতেন। গতরোববার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে ভিক্ষা শেষে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন। এ সময় স্থানীয় যুবক শাকিল হোসেন (২২) তাকে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের সময় সহযোগিতা করেন দিলদার হোসেন। ধর্ষণ শেষে ওই নারীকে ঘটনা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেওয়া হয়।
তারাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিন্নাত আলী বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় ওই নারীর ছেলে বাদী হয়ে গতকাল সোমবার সকালে থানায় মামলা করেন। মামলায় শাকিল হোসেন ও দিলদার হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে দিলদার হোসেনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা : চার বছরের এক শিশু ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতান গ্রামে নাইম হোসেন (১৫) নামে এক কিশোরের বিরুদ্ধে। সে ঐ গ্রামের মোকলেসুর রহমানের পুত্র।
গত রোববার সন্ধ্যায় সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে। শিশুটির চিৎকারে আশেপাশের লোকজন শিশুটিকে হেফাজতে নিয়ে থানায় খবর দেয়। ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ খরব পেয়ে শিশুটিকে থানায় নিয়ে আসে এবং গত রোববার দিবাগত রাত ৭ টার দিকে শিশুটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
লালমনিরহাট : লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকের স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টায় জবরদস্তি করে বিবস্ত্র করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী হামিদুল ইসলামের (২২) বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ করে এখন বিপাকে পড়েছে ঐ ভিক্ষুক পরিবারটি। থানা থেকে অভিযোগ তুলে না নিলে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী মেয়েটির পরিবার। হামিদুল ইসলাম ঐ এলাকার মেছের আলীর ছেলে। এ বিষয়ে লম্পট হামিদুল ইসলাম ও তার বাবা মেছের আলীর সাথে কথা বলার জন্য তার বাড়িতে গেলেও দেখা পাওয়া যায়নি। তবে হামিদুলের মা হনুফা বেগম বলেন, এসব মিথ্যা কথা, তারা উল্টো আমার মেয়ের নামে বদনাম ছড়াচ্ছে।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জে করিমগঞ্জ উপজেলায় জিন তাড়ানোর চিকিৎসার নামে এক তরুণী ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতার হওয়া শরিফ উদ্দিনকে (৬০) আদালতে পাঠানো হয়েছে। গত রোববার কিশোরগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আব্দুন ন‚র এ আদেশ দেন। এর আগে শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলার এজহার স‚ত্রে জানা যায়, তরুণী দীর্ঘদিন ধরে নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। এক নারী তার চিকিৎসার জন্য শরিফ উদ্দিন কবিরাজের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন। তার কথা মতো তরুণীকে তার মা-বাবা ১৫ তেকে ২০ দিন আগে কবিরাজের কাছে নিয়ে যান এবং তার কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে দুটি তাবিজ নিয়ে যান। তাবিজ নেওয়ার পরেও সুস্থ না হওয়ায় ওই তরুণীকে পুনরায় শুক্রবার রাতে কবিরাজের বাড়ি নিয়ে যান তার মা। তখন কবিরাজ জিনের আছর পড়েছে বলে তরুণীর মাকে জানান। পরে তরুণীর মাকে বসিয়ে রেখে তরুণীকে আরেকটি ঘরে নিয়ে কবিরাজ ধর্ষণ করে পালিয়ে যান।

সেনবাগ (নোয়াখালী) : নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের এক যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে আলমগীর হোসেন প্রকাশ দুখু মিয়া (২২) নামের এক লম্পট ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে সেনবাগ থানা পুলিশ। লম্পট দুখু মিয়া উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মেস্তুরী বাড়ির নুরুল হক মেস্তুরীর ছেলে ও একটি মসজিদের মোয়াজ্জিম। গত শনিবার দুপুরে সেনবাগ থানার এসআই সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স কবিরহাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।
নেছারাবাদ (পিরোজপুর) : নেছারাবাদ উপজেলায় চতুর্থ শ্রেণির (১০) এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে মোক্তার হোসেন নামের পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারীর ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। গত রোববার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার আবদুল্লা আল মামুন বাবু ওই দন্ড প্রদান করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (11)
Sudangsu Saha ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
এই সমস্ত শিক্ষিত লোকগুলিকে কটোর বিচার করা উচিত। যাতে মেয়েরা নিরাপদ থাকতে পারে
Total Reply(0)
Mdmannan Mannan ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
খুব দ্রুত ফাঁসি দেওয়া হোক জেনাকারিদের!!
Total Reply(0)
Mustafiz Rahman ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
বিচার চাই না, তাদের নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে যাওয়া হউক।
Total Reply(0)
Ashraf Nasir ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
হাতে গোনা দুই একটা ঘটনা প্রকাশ পায় তাও আবার বেরিয়ে যায় বিচার হয়না
Total Reply(0)
Mosharaf Hosain ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
ধর্ষণের জন্য মৃত্যুর আইন পাস করা হোক,
Total Reply(0)
MD Ruhul Amin ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
রাষ্টীয় ভাবে এদের বিচার হয়না এরা টাকা দিয়ে পার পেয়ে যায় এদের কে আমাদের জনগণের হাতে তুলে দিন আমরা এদের বিচার করতে চাই এই নর পশুদের।
Total Reply(0)
Munir Hussain ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
এরা দুজন কি অবিবাহিত ? বিবাহিত হলে অর্ধেক মাটিতে গেড়ে পাথর মারা হোক মৃতের আগ পর্যন্ত ।
Total Reply(1)
Yourchoice51 ১ অক্টোবর, ২০১৯, ৯:১১ এএম says : 0
এটাই হবে প্রকৃত ন্যায়বিচার; তবে বাংলাদেশে এমন রায় দেয়ার কোনো সম্ভাবনা দেখছিনা।
Mohammad Salauddin Ahamed ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
আমি কোন বিচার চাই না আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাই এদের কে শাহবাগে মোড়ে নিয়ে প্রকাশ্য গুলি করার হুকুম করেন,কোন রিমান্ডে নেওয়ার প্রয়োজন নাই ।
Total Reply(0)
md sharifuzzaman ১ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:১৪ এএম says : 0
ধর্ষণের বিচার মৃত্যুদন্ড ছাড়া এ অবস্থা থেকে নারীরা রেহাই পাবে না।
Total Reply(0)
Ahad ২ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৪৬ এএম says : 0
৫৫ বৎসর বয়সী একজন বৃদ্ধার পড়ন্ত শরীরের দিকেও তাদের নজর যায়।সেই শরীরের প্রতিটি অংশও তারা খুটে খুটে ভোগ করে,খায়।
Total Reply(0)
নিরাক হাসান প্রেম ২ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:১৭ পিএম says : 0
নিউজে অনেক বানান ভুল আছে এগুলো সংশোধন করা উচিৎ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন