ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

কাশ্মীর প্রসঙ্গে কংগ্রেসে শুনানি হবে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

দক্ষিণ এশিয়ায় মানবাধিকার প্রশ্নে আগামী ২২ অক্টোবর মার্কিন কংগ্রেসের উপকমিটি একটি শুনানি করবে। শুনানিতে কাশ্মীর পরিস্থিতির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। কংগ্রেসের উপকমিটির এশিয়াবিষয়ক চেয়ারম্যান ব্র্যাড শেরম্যান গত ৩০ সেপ্টেম্বর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি এ কথা জানান। এতে আরো বলা হয়েছে, উপকমিটির শুনানিতে অধিকৃত কাশ্মীরে মানবিক পরিস্থিতি এবং সেই সাথে কাশ্মীরিদের খাদ্য, ওষুধ এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর ‘পর্যাপ্ত সরবরাহ’ রয়েছে কি না তা পর্যালোচনা করা হবে। গত ৫ আগস্ট ভারত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে নেয়ার মাধ্যমে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর অঞ্চলটিতে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। কারফিউ ও জরুরি অবস্থা জারির মাধ্যমে কাশ্মীরকে বিশ্ব থেকে এক প্রকার বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে। কাশ্মীরে ইন্টারনেট সংযোগ ও শান্তিপূর্ণ সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা, রাজনৈতিক নেতা ও অ্যাকটিভিস্টদের আটক করাসহ মানবাধিকার পরিস্থিতি খুবই নাজুক অবস্থায় রয়েছে। ব্র্যাড শেরম্যান বলেন, ‘আগস্টে আমি ও আমার সহকর্মী কংগ্রেস সদস্য আন্দ্রে কারসনের (ডি-আইএন) কাশ্মীরের সান ফার্নান্দো উপত্যকার আমেরিকানদের সাথে সাক্ষাৎ করার সুযোগ হয়েছিল। তাদের কাছ থেকে আমরা উপত্যকাটির কঠিন পরিস্থিতি সম্পর্কে শুনেছি। তারা এ-ও জানিয়েছে যে, কাশ্মীরের বসবাসরত স্বজনদের বিষয়ে তারা উদ্বিগ্ন। এর পর থেকে কাশ্মীরি আমেরিকানদের সাথে আমার বেশ কয়েকটি বৈঠক হয়েছে। আমি কাশ্মীরে মানবাধিকার সম্পর্কে আরো জানার অপেক্ষায় রয়েছি, বলেন মার্কিন কংগ্রেসম্যান শেরম্যান। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষস্থানীয় স্টেট ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা অ্যালিস ওয়েলস এবং গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও শ্রম বিভাগের উপসহকারী সচিব স্কট বাসবি ২২ অক্টোবরের শুনানিতে অংশ নেবেন। শেরম্যান আরো বলেছেন, শুনানিতে অন্য স্টেট ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তাদের আমন্ত্রিত করা হয়েছে এবং তারা বেসরকারি মানবাধিকারকর্মীদের কাছ থেকেও এই বিষয়ে শুনবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। গত সপ্তাহে ওয়েলস বলেছিলেন, অধিকৃত কাশ্মীরে যে অচলাবস্থা সৃষ্টি করে রাখা হয়েছে, তা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুতর উদ্বেগ রয়েছে। ওয়েলস সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘আমরা জরুরি অবস্থা তুলে নিতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আশা করি এবং যারা আটক হয়েছেন তাদের মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানাই।’ দ্য ডন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
জামিল ৪ অক্টোবর, ২০১৯, ২:১৭ এএম says : 0
কাশ্মীরকে স্বাধীন করা হোক
Total Reply(0)
Mohammad alamgir hosan ৪ অক্টোবর, ২০১৯, ২:৫৪ এএম says : 0
Kashmir shadin howk
Total Reply(0)
আনোয়ার আলি ৪ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:৩৮ এএম says : 0
আমরা কাশ্মীরাকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে দেখতে চাই
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন