ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

নাম ও ধর্ম পরিবর্তন করা উচিত নুসরাতের : আসাদ কাসমি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:৩৬ পিএম

দেওবন্দভিত্তিক আলেম আসাদ কাসমি কলকাতায় পূজা উদযাপন করায় অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেসের মুসলিম সাংসদ নুসরাত জাহানের কঠোর সমালোচনা করেছেন। তিনি এ ধরণের উদযাপনকে ‘ইসলামবিরোধী’ বলে অভিহিত করে বলেছেন, অভিনেত্রী থেকে রাজনীতিবিদে পরিণত হওয়া নুসরাতের উচিত তার নাম এবং ধর্ম পরিবর্তন করা।

গত সোমবার টিভি চ্যানেলগুলিতে প্রচারিত বিভিন্ন ফুটেজে দেখা গেছে, নুসরাত পূজারির মন্ত্র পাঠের সময় চোখ বন্ধ করে শুনছিলেন এবং সঙ্গে ঠোঁট নাড়াচ্ছিলেন। তার দুই হাত প্রার্থনার ভঙ্গিতে জোড় করা ছিল। এর আগে তাকে ঢাক বাজাতে ও নাচতে দেখা যায়।

উৎসবে নুসরাতের অংশগ্রহণের বিষয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ইত্তেহাদ ওলামা-ই-হিন্দের সহ-সভাপতি মুফতি আসাদ কাসমি বলেছেন, ‘ইসলাম এবং মুসলিমদের অসম্মান করেছেন নুসরাত। পাশাপাশি তার দাবি, নিজের ধর্মকে অপমান করেছেন নুসরাত জাহান, এবং যেহেতু তিনি হিন্দু ব্যবসায়ী নিখিল জইনকে বিয়ে করেছেন, সেই কারণে, নিজের নাম পাল্টে নেওয়া উচিত তার। সংবাদসংস্থা পিটিআই ওই মৌলবী মুফতি আসাদ কাসমিকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, ‘এটা নতুন কিছু নয়। ইসলামে নির্দেশ আছে, শুধুমাত্র আল্লাহকে স্মরণ করার, তারপরেও, তিনি হিন্দু দেবীর পুজো করছেন। তিনি যা করছেন, তা ‘হারাম’। তিনি আরও বলেন, ‘তিনি ভিন ধর্মে বিয়ে করেছেন। তিনি নিজের ধর্ম এবং নাম পরিবর্তন করে নিতে পারেন। যিনি মুসলিম নামের অমর্যাদা করেন এবং ইসলাম ও মুসলিমদের অমর্যাদা করেন, তেমন কাউকে ইসলাম সম্প্রদায়ের প্রয়োজন নেই।’

ওই মৌলবীর জবাবে, উত্তরপ্রদেশের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভি বলেন, সিঁদুর এবং মঙ্গলসূত্র পড়ায় সম্পূর্ণ স্বাধীন নুসরত জাহান। তার কথায়, ‘সমস্ত সামগ্রি পড়তে ইসলামে বাধা নেই। কোনও সমস্যা নেই। কোনও ইসলাম সম্প্রদায়ের মানুষ যদি অন্য কোনও ধর্মে যেতে চান, তারা তা করতে পারেন, ইসলাম থেকে কেউ কাউকে তাড়াতে পারে না।’

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের টিকিটে জয়ী হন নুসরাত জাহান। সুরুচি সংঘের পুজোয় প্রার্থনা করা এবং ঢাক বাজানোয় ভারতে প্রশংসা পান সাংসদ এবং তার স্বামী।

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় নুসরাত জাহান বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতিকে তুলে ধরতে চান তিনি। তার কথায়, ‘আমি মনে করি, সমস্ত ধর্মের মধ্যে সম্প্রীতি বজায় রাখার আমার নির্দিষ্ট পদ্ধতি আছে। বাংলায় জন্ম এবং বড় হয়েছি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে অনুসরণ করে আমি ঠিক করছি বলেই মনে করি। আমরা এখানে সব ধর্মের উৎসব পালন করি।’ সূত্র : টিওআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
Md firoj hasan ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৩২ পিএম says : 1
Are you right Mr Assad kashmi
Total Reply(0)
jack ali ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৮:১৭ পিএম says : 0
She is not any more muslim...She is disbeliever....
Total Reply(0)
Nsnnu chowhan ৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৯:২৭ পিএম says : 0
Absueliutly right Mr.assad kasmi
Total Reply(0)
Mustafizur Rahman Ansari ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
She is a Musrik,So,Must be Change her Muslim / family name (Nusrat Jahan)
Total Reply(0)
Mustafizur Rahman Ansari ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
Now she is a Musrik.So,Should be her Muslim / Family name change (Nusrat Jshan).
Total Reply(0)
Mustafizur Rahman Ansari ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
Now she is a Musrik.So,Should be her Muslim / Family name change (Nusrat Jshan).
Total Reply(0)
Mustafizur Rahman Ansari ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
Now she is a Musrik.So,Should be her Muslim / Family name change (Nusrat Jshan).
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন