ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সম্রাটের চিকিৎসায় সাত সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

অবৈধ ক্যাসিনো ও টেন্ডারবাজিসহ নানা দুর্নীতির সাথে জড়িত গ্রেফতারকৃত খালেদ মাহমুদ-জি কে শামীম রিমান্ডে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করছে। তাদের দেয়া তথ্য নিয়ে জড়িত সহযোগী ও মদদদাতাদের গ্রেফতার এবং তথ্য যাচাই-বাছাই করতে মাঠে নেমেছে গোয়েন্দারা। অন্যদিকে ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দেয়া তথ্য নিয়ে কাজ করছে র‌্যাবের গোয়েন্দারা। এরই মধ্যে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সম্রাটের দেয়া তথ্যের ভিক্তিতে মদদদাতা ও পৃষ্ঠপোষকের সম্পর্কে তদন্তে মাঠে নেমেছে গোয়েন্দারা। এ ছাড়া দেশের বাইরে কোথায় কত টাকা রয়েছে সম্রাটের সে বিষয়ে তদন্ত করছে একটি সংস্থা।

হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে সম্রাট
যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে ২৪ ঘণ্টা অবজারভেশনে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট। তবে তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হবে কি না, বুধবার সকালে বোর্ড মিটিং শেষে জানানো হবে। তার অবস্থা ভালো এবং স্থিতিশীল। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৩টায় জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. আফজালুর রহমান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের অবস্থা স্থিতিশীল। তার সুচিকিৎসার জন্য সাত সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। ইমিডিয়েট (জরুরি) কিছু পরীক্ষার রিপোর্ট আমরা পেয়েছি, সেগুলোর রিপোর্ট ভালো। তবুও তাকে ২৪ ঘণ্টার জন্য অবজারভেশনে রাখতে হচ্ছে। কারণ যেকোনো হৃদরোগের রোগী এলে অবজারভেশনে (পর্যবেক্ষণে) রাখা হয়। সম্রাটকে ছাড়পত্র কখন দেয়া হতে পারে জানতে চাইলে ডা. আফজালুর বলেন, তার চিকিৎসার কোনো অবহেলা করা হচ্ছে না। ছুটির দিন সত্তে¡ও চিকিৎসকরা সময় দিচ্ছেন। মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বুধবার মেডিক্যাল বোর্ড মিটিংয়ে বসবে। সেখানেই সবকিছু বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, তার চিকিৎসা চলবে নাকি ডিসচার্জ করা হবে। তিনি এখন স্টেয়াবল। রিপোর্টও ভালো।

উল্লেখ্য, যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগে ভুগছিলেন। মঙ্গলবার সকালে তার অবস্থার অবনতি হলে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেয়া হয়। এর আগে বুকে ব্যথা অনুভব করলে সকাল সাড়ে ৭টায় সম্রাটকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে প্রথমে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর ঢামেক চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নেয়া হয়। গত রোববার (৬ অক্টোবর) ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয় আত্মগোপনে থাকা সম্রাটকে। তার সঙ্গে যুবলীগ নেতা আরমানকেও আটক করা হয়। পরে ঢাকায় এনে তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদও করে র‌্যাব।

সম্রাটকে দেশের বাইরে নেয়ার দাবি আইনজীবীদের
ক্যাসিনো-বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার সম্রাটকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা। তারা বলছেন, সম্রাটের শারীরিক অবস্থা সঙ্কটাপন্ন। তার হৃদযন্ত্রে পেসমেকার বসানো প্রয়োজন। বরাবরই দেশের বাইরে চিকিৎসা নেয়া সম্রাটকে তাই তারা চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়ার দাবি জানাচ্ছেন। গতকাল সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে (এনআইসিভিডি) চিকিৎসাধীন সম্রাটকে দেখতে গিয়ে তারা সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। সম্রাটের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাগুলোর প্রধান আইনজীবী হিসেবে আদালতে লড়বেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের আইন সম্পাদক ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হীরা। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আজ আমরা আমাদের ক্লায়েন্ট ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে দেখতে এসেছিলাম। কিন্তু আমাদের দেখতে দেয়া হয়নি। তার (সম্রাট) শারীরিক অবস্থা অনেক খারাপ। সম্রাটের এই আইনজীবী আরো বলেন, গত সোমবার আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে জেলগেটে গিয়েছিলাম। সেখানে অনেক প্রসিডিউর মেইনটেইন করে অনেক কষ্টের পর তার সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয়েছিল। আমরা দেখতে পেয়েছি, তার শারীরিক কন্ডিশন ভীষণ খারাপ ছিল। দূর থেকেই তিনি বলছিলেন, তার বুকে ব্যথা। তিনি খুবই অসুস্থ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
সাইফ ৯ অক্টোবর, ২০১৯, ৯:৫০ এএম says : 0
এবার চিকিৎসার নামে জামাই আদর।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন