ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

মহানগর

আবরার হত্যা নিয়ে বিবৃতি দেওয়ায় জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারীকে ডেকে সরকারের অসন্তোষ প্রকাশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০১৯, ৪:১৩ পিএম

গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মী। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিবৃতি দেওয়ায় বাংলাদেশে নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পোকে ডেকে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে সরকার।

আজ রোববার সকালে মিয়া সেপ্পোকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের (জাতিসংঘ অনুবিভাগ) মহাপরিচালক নাহিদা সোবহানের দপ্তরে তলব করা হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এই তথ্য জানা যায়।

একই ইস্যুতে যুক্তরাজ্য হাইকমিশন তাদের ফেসবুক পেজে বিবৃতি দেওয়ায় গত ১০ অক্টোবর ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট ডিকসনকে ডেকে পাঠায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মিয়া সেপ্পোকে ডেকে কী বলা হয়েছে, জানতে চাইলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আবরার হত্যাকাণ্ড নিয়ে জাতিসংঘের সমন্বয়কারীর ঢাকা দপ্তর থেকে যে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, সেটি মোটেও ঠিক হয়নি। কারণ, সরকার এখানে মতপ্রকাশ বা মুক্তচিন্তাকে প্রতিহত করেনি। তা ছাড়া এ বিষয় নিয়ে সরকার ইতিমধ্যে পদক্ষেপ নিয়েছে। যে হত্যাকাণ্ড নিয়ে তদন্ত ও বিচারপ্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, তা নিয়ে এ ধরনের বিবৃতি অনাকাঙ্ক্ষিত ও অনভিপ্রেত।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, সরকার মনে করে, এটি (বিবৃতি) অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ। এ ধরনের বিবৃতি দিয়ে অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়াকে ব্যাহত করা যাবে না।

গত ৯ অক্টোবর জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারীর দপ্তর থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়, অবাধ মতপ্রকাশের অভিযোগে বুয়েটের এক তরুণ শিক্ষার্থী হত্যার ঘটনায় জাতিসংঘ নিন্দা জানাচ্ছে। বছরের পর বছর ধরে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিচার না করায় বাংলাদেশের ক্যাম্পাসগুলোতে সহিংসতায় অনেকেই প্রাণ দিয়েছেন। জাতিসংঘের বাংলাদেশ দপ্তর লক্ষ করছে, অভিযুক্ত ব্যক্তিদের ধরার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিয়েছে। ফলে স্বাধীন তদন্তকারীরা একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে স্বচ্ছ বিচারের পথে যাবেন, যা ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে সহায়ক হবে। মতপ্রকাশের স্বাধীনতা একটি মানবাধিকার। মতপ্রকাশের স্বাধীনতা চর্চার জন্য কাউকে হয়রানি, নির্যাতন ও হত্যা করা উচিত নয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Aatkutri Noydirja ১৩ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৩৯ পিএম says : 0
Here is an ugly bitter analysis - Chinese President will visit India tomorrow. But why? US & western claimed Saint Martin Islam from Bangladesh to establish a military base, probably to look after China, NK & Arakani under sea hydro Carbon reserve, which was Myanmar leased to China & Russ. Besides this China faces Hong Kong crisis. So China doubts that presence of US base in BD will create difficulties for them. Similarly Indian doesn't want US presence here. On this strategy China India intend to organise an ally on the issue to prevent US in bay of Bengal. Definitely it's result Pakistan be to face a deprive attitude from China on Kashmir issue. While China India intend to reduce their on going crisis on the above purpose westerns importance & power exercising in Asia must reduce & this is plus point for Sheikh Hasina. Mentionable here that Trump is Sheikh Hasina's western backbone, but since Trump holds zero patriotism so Hasina's negativity to serve Saint Martin island will create nothing against her from Trump and India is Trump's biggest drug market. Majority drugs of the world used in India, which isTrump majör source of personal benefit, so he will do nothing against India if it show hip to US. Because BNP will serve privilege to western to establish base in BD island, it caused the opposition BNP's ongoing anti Awamee movement fall down impact. Conclusive opinion : while we know Khazarian Mafia is controller of world, Marxism Washingtonism Saudism(Wahhabism), Nazi nationalism, Secularism, Hindu sectarianism Buddhaism. Evey isms are various branches of Khazar Zionism. So hiddenly all of them are untrusted enemy of Muslim. Just they are utilising Muslims as their match stick when & where necessary. After ignition drops like as useless.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন