ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

ভারত সফরের আগে ধর্মঘটে ক্রিকেটাররা

সাকিবদের ১১ দফা দাবি

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বেতন কাঠামো নিয়ে অসন্তোষ ছিল অনেক দিন থেকেই। তার উপর গত কয়েক বছর ধরে প্লেয়ার্স ড্রাফট নামক অদ্ভুত এক পদ্ধতিতে বেঁধে দেওয়া হয়েছে ক্রিকেটারদের হাত পা। অথচ ক্রিকেটই একমাত্র রুটিরুজির মাধ্যম খেলোয়াড়দের। বিন্দু বিন্দু করা জমানো দীর্ঘদিনের এ ক্ষোভের বিস্ফোরণ হলো গতকাল। তাতে টালমাটাল দেশের ক্রিকেট। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অসন্তোষ জানিয়ে সব ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। তাদের বক্তব্য- দেশের ক্রিকেট ঠিক পথে নেই। তারা মোট ১১ দফা দাবি পেশ করেছেন। দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট খেলা, ক্যাম্প ও অনুশীলন থেকে বিরত থাকবেন জাতীয় ক্রিকেটাররা।
গতকাল দুপুরে মিরপুরে একাডেমি মাঠে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘরোয়া আসরগুলোর পারিশ্রমিকসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে নিজেদের ক্ষোভের কথা জানিয়ে সাংবাদিকদের কাছে ১১ দফা দাবি তুলে ধরেছেন সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিক রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদসহ তারকা ক্রিকেটাররা।
বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের একটি সংগঠন আছে বটে, ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)। তবে তাদের দৃশ্যত কোনো কার্যক্রম নেই। সংগঠনের সভাপতি সাবেক অধিনায়ক নাঈমুর রহমান একই সঙ্গে বিসিবি পরিচালকও। সহ-সভাপতি খালেদ মাহমুদও বিসিবির প্রভাবশালী পরিচালক। ক্রিকেটারদের স্বার্থ রক্ষার কিছুই এই সংগঠন দিয়ে হচ্ছিল না। আর তাতেই নিজেদের পথ নিজেদেরই বেছে নিয়েছে ক্রিকেটাররা।
এবারের জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) শুরু হবার আগে ক্রিকেটাররা ভেবেছিলেন বাড়ানো হবে ম্যাচ ফি। যদিও শেষ পর্যন্ত হতাশ হতে হয়েছিল তাদের। অন্যদিকে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এবারের আসরে নেই ফ্রাঞ্চাইজি। তা নিয়েও আছে অসন্তোষ। আর তারই প্রেক্ষাপটে ১১ দফা দাবি জানানো শেষে সাকিব দিয়েছেন ধর্মঘটের ঘোষণা, ‘জাতীয় দল, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারসহ সবাই এই ধর্মঘটের অন্তর্ভুক্ত এবং সেটা আজ (গতকাল) থেকে। জাতীয় লিগ থেকে শুরু করে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট বলেন, জাতীয় দলের প্রস্তুতি বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বলেন, সবগুলোই এর অন্তর্ভুক্ত। আলোচনা সাপেক্ষে অবশ্যই সবকিছুর সমাধান হবে। দাবিগুলো যখন মানা হবে তখন আমরা আমরা স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরে যাব।’
ক্রিকেটারদের এই ঘোষণায় আগামী ২৪ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগের তৃতীয় রাউন্ড এবং ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় দলের ক্যাম্প নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। এর ফলে অনিশ্চয়তায় পড়ে গেছে ভারতের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজও। তবে সাকিব জানিয়েছেন, যেহেতু অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সামনে বিশ্বকাপ আছে, তাই তাদেরকে এই ধর্মঘটের আওতায় রাখা হচ্ছে না। আর দেশের নারী ক্রিকেটাররাও চাইলে তাদের সঙ্গে যোগ দিতে পারেন। তাদের এই আন্দলনের যৌক্তিকতা তুলে ধরে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার আরো বলেন, ‘আমরাও সবাই চাই ক্রিকেটের উন্নতি হোক। এখানে একটা ক্রিকেটার কেউ তিন-চার বছর খেলবে, কেউ দশ বছর আছে। যারা ভবিষ্যতে আসবে, তাদের জন্য আমরা একটা ভালো পরিবেশ রেখে যেতে চাই যেখান থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট সামনে এগিয়ে যাবে।’
তবে যাদের দিকে অভিযোগের তীর সেই বিসিবিই নাকি জানে এসবের কিছু! খেলোয়াড়দের ধর্মঘট ডাকার ব্যাপারে বিসিবির মুখপাত্র প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন বললেন, ‘আমরা মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি এসব ব্যাপারে। ক্রিকেটাররা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। তাদের বিষয়গুলো জেনে বোর্ডের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করব। পরবর্তীতে এই ব্যাপারে বোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে।’ ক্রিকেটারদের দাবী দাওয়া কতোটা পূর্ণ হবে জানতে চাইলে ফের বলেন, ‘আমি বলছি ব্যাপারটা মাত্র আমরা জানলাম। তারপরেও আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের জানানো হয়নি। আমরা মিডিয়ার মাধ্যমেই জানতে পেরেছি। বিষয়টি যত দ্রুত নিষ্পত্তি করা যায় সেটা আমরা দেখছি।’
সামনেই বহুল আকাক্সিক্ষত ভারত সফর। তার আগে ক্রিকেটপাড়ায় এমন অসন্তোষ হুমকিতে ফেলে দিতে পারে দেশের ক্রিকেটকেই। অনতিবিলম্বে এই সঙ্কট নিরসনের দাবি জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন