ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭, ০৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাজারে পেঁয়াজের দরে ডিম-আপেল: নেটিজেনদের যে প্রতিক্রিয়া

আবদুল মোমিন | প্রকাশের সময় : ২৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৪:০২ পিএম

বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজের কেজি এখন ১০০-১১০ টাকা। সে হিসেবে, বড় আকারের একটি পেঁয়াজের দাম ১০ টাকার মতো। একটি আপেলের দামও তাই। একটা ডিমের দাম ১০ টাকা। সঙ্গত কারণেই অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন- পেঁয়াজ খাবেন, নাকি আপেল? পেঁয়াজ দিয়ে ডিম ভাজা খাবেন, নাকি ডিম দিয়ে পেঁয়াজ ভাজা?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নেটিজেনরা। পেঁয়াজের এমন অসহনীয় ঝাঁজে রসিকতা করে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন কেউ কেউ। সব মিলিয়ে আজকে ফেইসবুকের অন্যতম হট টপিকস ‘পেঁয়াজের দরে ডিম-আপেল’।

সরেজমিনে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে গতকাল রোববার দেখা যায়, দামের দিক থেকে পেঁয়াজ, ডিম ও আপেল- এই তিনটি পণ্য এখন একই কাতারে।

এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক প্রতিক্রিয়ায় বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট মেহেদী হাসান পলাশ লিখেছেন, ‘‘ভালোই তো এখন থেকে আপেল খাবো। আপেল দিয়ে ডিম ভাজা হবে। আপেল দিয়ে তরকারি রান্না হবে, ডাক্তার দূরে থাকবে।’’

মাহাবুব রহমান লিখেছেন, ‘‘আমাদের কৃষক আছে, জমি আছে। আমরা পারিশ্রমিক মানুষ। আমরা অন্যের উপর কেন ভরসা করবো? পেঁয়াজ চাষিদের জন্য ভর্তুকি দেয়া হোক। তাতেই আমাদের পেঁয়াজের অভাব মিটবে।’’

ফেইসবুকে মজা করে সাঞ্জিনা প্রধান লিখেছেন, ‘‘আপেল খাব, আর অর্ধেক পেঁয়াজ দিয়ে ডিম ভাজব, ভেজাল শেষ।’’

‘‘দুদিকেই চলে! আগে পেঁয়াজ দিয়ে ডিম ভাজি করতাম এখন না হয় ডিম দিয়েই পেঁয়াজ ভাজি করবো। তাদের গন্তব্য তো একই জায়গায়! আপেল না খেয়ে অনেকেই বেঁচে আছে যেমন অতীত ভুলে অনেকেই বেঁচে থাকে’’ আক্ষেপ করে কথাগুলো লিখেছেন বেলী রহমান।

বাপ্পি ফয়সাল লিখেছেন, ‘‘অফিসে সন্ধ্যায় নাস্তা দেয় ৪০ টাকার। আজ বলে দিছি নাস্তা দেবার দরকার নাই নাস্তার সমপরিমাণ টাকার পেয়াজ দিয়ে দাও। পিয়নও রাজী হয়েছে।’’

ফেইসবুক ব্যবহারকারী গাজী শামিম আহমেদ লিখেছেন, ‘‘গরীব মানুষ আমি, গতকাল ২ কেজি পেয়াজ কিনেছি ২৪০ টাকা দিয়ে! পেয়াজ আর মুরগীর দাম এখন সমানুপাতিক হারে একই। এখন ইচ্ছে হলে এক কেজি পেয়াজের দাম দিয়ে আপনি এক কেজি ওজনের একটি মুরগীও কিনতে পারবেন!’’

‘‘দুটোইতো সাধারণ লোকের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে! তাই বাণিজ্যমন্ত্রীর ভাষ্যানুযায়ী আপাততঃ ১ মাসের জন্য দুটোকেই অস্থায়ীভাবে তালাক প্রদান করলাম’’ মন্তব্য রুস্তম খানের।

মজা করে ফিরোজ কবির লিখেছেন, ‘‘সকালে বউকে বলে দিয়েছি পাঁচটা ডিম দিয়ে একটা পেঁয়াজের অর্ধেক ভাজি করে ফ্রিজে রেখে দিতে। দুদিন খেতে হবে।’’

এইচ এম জাকারিয়ার মন্তব্য, ‘‘পেঁয়াজের বাজারে গেলেই মনে হয় দেশে দুর্ভিক্ষ চলছে। কৃষি প্রধান দেশ হয়েও আমাদের নিজেদের জন্যেই আজ এই অবস্থা।’’

সাইফুজ্জামান লিখেছেন, ‘‘উন্নয়ন খান, উন্নয়ন।কিসের আপেল, পেঁয়াজ, ডিম!! ফ্লাইওভার খাবেন, পদ্মাসেতু খাবেন, মেট্রোরেল খাবেন। কত কি খাওয়ার আছে, আপনারা শুধু পেঁয়াজ নিয়ে পড়ে আছেন।’’

আফতাবুজ্জামান জুয়েল লিখেছেন, ‘‘ভারতের উপর নির্ভরশীল হওয়া বুদ্ধিমানের কাজ নয়। তাদের দিয়েও লাভ নেই। আমাদের দেশের কৃষক যেন তার পণ্যের ন্যায্যমূল্য পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় ধানের ক্ষেত্রেও পেঁয়াজের অবস্থা দাঁড়াবে।’’

আকলিমা জাহান লিখেছেন, ‘‘পিঁয়াজের মজুতদারদের জন্য আল্লাহর লানত অনিবার্য! অনেকক্ষেত্রে দেখা গেছে বা ছবি ভাইরাল হয়েছে এমন যে বস্তা ভেদ করে পিঁয়াজের চারা গজিয়ে হাত খানেক লম্বাও হয়েছে!’’

‘‘পেঁয়াজ আমদানি হয় কেজিপ্রতি ৩৫-৪৫ টাকায়। সেটা বাজারে ১১০-১১৫ টাকা। মধ্যস্বত্বভোগী নামক দালালরা ৭৫-৮৫ টাকা খেয়ে নিচ্ছে। বাঙালি বলে আমাদের নিয়ম নৈতিকতার কোনো বালাই নাই’’ এমন ক্ষোভ জানিয়েছেন আবদুল্লাহ আল মামুন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন