ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

নোবিপ্রবি’তে ভর্তি পরীক্ষা পরীক্ষার্থীদের সর্বাত্নক সহযোগীতা করছে নোয়াখালীবাসী

নোয়াখালী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৪ পিএম

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়য়ে ভর্তি পরীক্ষা আজ (শুক্রবার) থেকে শুরু হয়েছে। শনিবারও ভর্তি পরীক্ষা চলবে। এবার ৩০টি বিভাগে ১২৮০টি আসনের জন্য ৬৮ হাজার ৭৪৩ জন পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র করে যে বিষয়টি দেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশেও আলোচিত হচ্ছে, সেটা হল নোয়াখালীবাসীর আতিথেয়তা। পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকসহ প্রায় পৌনে দুই লাখ মানুষের বিনা পযসায় থাকা, খাওয়া, যাতায়াত, চিকিৎসাসহ সর্বাতœক সেবা দিচ্ছে নোয়াখালী জেলা প্রশাসন, উপজেলা, পৌরসভা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ নোয়াখালীর সর্বস্তরের মানুষ।
বেগমগঞ্জের চৌমুহনী চৌরাস্তা থেকে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পর্য্যন্ত প্রায় ১৭ কিলোমিটার সড়ক জুড়ে পরীক্ষার্থীদের সহযোগীতায় কাজ করছে শত শত স্বেচ্ছাসেবক। সড়ক মোড়ে মোড়ে তথ্য অনুসন্ধন ও প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সোনাপুর থেকে মাইজদী বাজার পর্য্যন্ত মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ, আইনজীবি সমিতি, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, বিভিন্ন ক্লাব ও বাসাবাড়িতে পরীক্ষার্থীদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এরআগে নোবিপ্রবি ভিসি প্রফেসর ড. দিদার উল আলম, জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস, পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন জেহান, নোয়াখালী পৌর মেয়র সহিদ উল্লা খান সোহেলসহ কর্মকর্তারা দফায় দফায় বৈঠক করেন। নোয়াখালী জেলা শহর ও চৌমুহনীতে আবাসিক হোটেল মোটেলগুলোতে বড়জোর ৫/৭’শ লোক থাকার ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু পৌনে দুই লাখ মানুষের থাকা, খাওয়া, চিকিৎসাসহ সার্বিক নিরাপত্তা দিচ্ছে প্রশাসনের পাশাপাশি সর্বস্তরের নোয়াখালীবাসী।

বৃহস্পতিবার থেকে পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা নোয়াখালীতে আসতে শুরু করেছে। এদের থাকা খাওয়াসহ সার্বিক বিষয় মনিটর করছে নোবিপ্রবি’র ভিসি, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, উপজেলা চেযারম্যান, নোয়াখালী পৌর মেয়র। পরীক্ষার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তায় তিনদিন বিভিন্ন স্পটে দিনরাত পুলিশ মোতায়েন থাকবে। পরীক্ষার্থীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং তাদের সাথে ভাল ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে প্রশাসন। চট্রগ্রাম থেকে আগত কয়েকেজন পরীক্ষার্থী দিদার, মাসুদ, শাহীন, মাসুম ও তাদের অভিভাবকরা জানান, এটা অবিশ্বাস্য ঘটনা। আমরা কল্পনাও করতে পারিনি, নোয়াখালীর মানুষ স্বেচ্ছায় এত বিশাল আয়োজন করবে। এখানকার প্রতিটি মানুষ অতিথি পরায়ন। খুলনা ও বরিশাল থেকে আসা পরীক্ষার্থী দেলোয়ার হোসেন ও ইসতিয়াক জানান, গত বছর এমনটা হয়েছে বলে আমরা শুনেনি। এবার আমরা নিজেরা দেখে গেলাম। এখানকার মানুষ আমাদেরকে নিজের আতœীয় স্বজন হিসেবে গ্রহন ও সর্বাতœক সেবা প্রদান করছে। এটা চীরদিন মনে থাকবে।
নোয়াখালীর প্রায় আট লক্ষাধিক অধিবাসী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। নোয়াখালীর ভাল কিছু খবরে তারা ফেসবুকে ঝড় তোলে। এবার তার ব্যতিক্রম নয়। পরীক্ষার্থীদের স্বাগত জানিয়ে প্রবাসীরা বিভিন্ন লেখা পোস্ট করছে। এক কথায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র করে এখানে উৎসব মুখর পরিবেশ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
ahammad ১ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:০২ পিএম says : 0
এই ধরনের পদখ্খেপ অবশ্যই প্রসংসার দাবীদার। দেশের প্রত্যেকটি খেএে যদি, দলীয় প্রভাবে কলঙ্কিত না করতো সৌহার্ধ্য আর সম্পিতি বজায় থাকতো, তাহলে আমরা কতইনা শান্তিতে বসবাস করতে পারতাম। দেশবসী সর্গীয় সুখ উপভোগ করতো। আমাদের জাতীর ভাগ্যে সেই সুখ কখনো আসবে কি ???রাজনিতী নামক দলীয় লেবাসে পেটনিতী থেকে জাতী মুক্তি পাবে কি ????
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন