ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দুর্নীতির আরো ৪১ কোটি টাকা ফেরত দিলেন ইফা ডিজি

দু’দফায় সরকার পেল ৭৩ কোটি টাকা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সরকারি বিশেষ নিরীক্ষায় ধরা খেয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মো. আফজাল আরো প্রায় ৪১ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছেন। এ নিয়ে দুই দফায় ইফার ডিজির ফেরত দেয়া টাকার পরিমাণ দাঁড়াল সোয়া ৭৩ কোটিতে।

প্রথম দফায় গত ২৩ অক্টোবর সোনালী ব্যাংক পাবলিক সার্ভিস কমিশন শাখায় একটি চেকের মাধ্যমে প্রায় ৩২ কোটি টাকা এবং দ্বিতীয় দফায় গত ৩১ অক্টোবর সোনালী ব্যাংকের একই শাখায় ৩টি চেকের মাধ্যমে ৪২ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেন তিনি। সরকার ফিরে পেল তার হারিয়ে যাওয়া সোয়া ৭৩ কোটি টাকা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন আর্থিক অনিয়ম ও দুর্নীতি পরীক্ষার জন্য সরকার একটি বিশেষ নিরীক্ষা দল প্রেরণ করেন। ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অব বাংলাদেশ কার্যালয় থেকে এ নিরীক্ষা দল প্রেরণ করা হয়। সিভিল অডিট বিভাগের এ নিরীক্ষা দল অন্যান্য অনিয়মের সাথে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের কয়েকটি বড় ধরনের আর্থিক ঘাপলা খুঁজে পান। তারা কেবলমাত্র ৯/৭/১৯ থেকে ৮/৮/১৯ পর্যন্ত সময়ে প্রকল্পের ডিপিপি, বরাদ্দ ও ব্যয়, ক্যাশবহি, লেজার বুক ও রেকর্ডপত্র যাচাই করে ৩১,৯৯,১৫,২২০/- টাকার একটি বড় ধরনের অনিয়ম খুঁজে পান। বিষযটি নিয়ে মহাপরিচালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তার পক্ষ থেকে বলা হয় এ টাকা ৬৪ জেলায় প্রেরণ করা হয়েছে। জেলা পর্যায়ে খবর নিলে দেখা যায় সেখানে এ টাকা প্রেরণ করা হয়নি। ফলে বিষয়টি ইসলামিক ফাউন্ডেশনে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। প্রতিনিধিদল ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়সহ মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে বিষয়টি অবহিত করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে গত ২৩ অক্টোবর মহাপরিচালক সামীম মো. আফজাল একদিনেই উক্ত ৩১,৯৯,১৫,২২০/- টাকা চেক নং-১৪৬০৭০৮ মারফত ফেরত দেন। চেকের টাকা চালান নং টি-৩১ তারিখ ২৩ অক্টোবর, সোনালী ব্যাংক লি:, পাবলিক সার্ভিস কমিশন শাখা, আগারগাঁও, ঢাকা-১২০৭-এ সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হয়।

এরপর একই ব্যাংকে আরো ৩টি চেকের মাধ্যমে চালান নং টি-৯৮, চালান নং টি-৯৯ এবং চালান নং টি-১০০ মারফত মোট ৪১,২৭,৩০,০৪৪ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হয়। যে তিনটি চেকের মাধ্যমে প্রায় ৪১ কোটি টাকা ফেরত দেয়া হয় তা হলো চেক নং-১৪৬০৭৩১ মারফত ২৪,০৫,৫২,২২৫ টাকা, চেক নং -১৪৬০৭৩২ মারফত ৪,৫৫,০৪,৮১৯ টাকা এবং চেক নং-১৪৬০৭৩৩ মারফত ১২,৬৬,৭৩,০০০ টাকা। মোট ৪১,২৭,৩০,০৪৪ টাকা গত ৩১ অক্টোবর সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হয়। এত টাকা ফেরত দেয়ার ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেন সরকারের বিশেষ নিরীক্ষা দলের সদস্যবৃন্দ। তারা বলেন, সরকারের বিশেষ নিরীক্ষা দল না এলে এ অর্থ কখনোই পাওয়া যেত না।

এ দিকে মহাপরিচালক সামীম মো. আফজালের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের পর রোববার এক জরুরি সভায় মিলিত হন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ইসলামিক ফাউন্ডেশন আগারগাঁও সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় সকল পরিচালক এবং কর্মচারী সমিতির নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। তারা বলেন, সামীম মো. আফজালের দুনীতি নজিরবিহীন। স্বজনপ্রীতিতে তিনি চ্যাম্পিয়ন এবং অর্থ আত্মসাতে বিশ্বরেকর্ড স্থাপন করেছেন। নিয়োগ কমিটির সভাপতি থেকে নিজের আত্মীয়স্বজনকে নিয়োগ দিয়েছেন। রাতের বেলায় নিজের রুমে খাতায় লিখিয়ে আত্মীয়স্বজনকে নিয়োগ পরীক্ষায় পাস করানো, জাল সনদপত্রে চাকরি দেয়া, কোটা না থাকায় নিজের ভাতিজা ও ভাগ্নিকে ভিন্ন জেলার বাসিন্দা দেখিয়ে চাকরি দেয়াসহ বিভিন্ন নির্লজ্জ কর্মের মাধ্যমে নিজেকে দুর্নীতির বরপুত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন।

এ ছাড়াও বোর্ডের অনুমোদন ছাড়াই বিভিন্ন বেসরকারি ব্যাংকে টাকা এফডিআর করে কমিশন খাওয়া শুরু করেছেন। ঢাকার ব্যাংক বাদ দিয়ে তিনি ফার্মার্স ব্যাংকের কুমিল্লা শাখায় সাড়ে ২৯ কোটি টাকা এফডিআর করে রাখেন। আর এখন তা ফেরত আনতে ব্যর্থ হন। তারা বলেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড সভায় সদস্যবৃন্দ প্রকাশ্যে যে ব্যক্তিকে দুর্নীতিবাজ আখ্যায়িত করেন তিনি কিভাবে মহাপরিচালক পদে আসীন থকেন? বক্তারা ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (17)
Md Rahad ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৫ এএম says : 0
এবার চিন্তা কর কত বড় চোর একটা গুরুত্বপূর্ণ পূর্ণ পদে তাও আবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের। নির্লজ্জতারও একটা সীমা থাকা দরকার।যেমন সরকার তেমনি কর্মকর্তারা
Total Reply(0)
Mustafa Ali ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৫ এএম says : 0
দুর্নীতিপরায়ণ লোকদের যথাযথ বিচার হাওয়া উচিৎ।
Total Reply(0)
Abdullah Al Mamun ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
এই লোকটা সারাদিন জামাত শিবির বইলা বইলা মুখের ফেনা তুলে ফেলতো, অথচ সে আজকে ছোরের কাড়কড়ায়, আল্লাহর বিছার বড় বিছার।
Total Reply(0)
Harun Bappy ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
শিক্ষিত চোর
Total Reply(0)
Shimul SK ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
ফেরত না দিলে আমরা জানতাম ই না উনি কোটি টাকা দূর্নীতি করেছেন,মন্ত্রী,এমপিরদেরটা কি আমাদের কি সাহস আছে জানার ?
Total Reply(0)
Riaz Uddin Patwary ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
এর পরেও এই চোরটা তার চাকরিতে বহাল থাকে কিভাবে??
Total Reply(0)
Md Anowar Hossain ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৭ এএম says : 0
অত কিছুর পরও ঐ পদে বসে আছেন কি করে?লজ্জা কি বিক্রি করে দিয়েছে?নূন্যতম জ্ঞান/বুদ্ধি ,ইজ্জত থাকলে তার পদত্যাগ করা উচিত ছিল।
Total Reply(0)
Masudur Rahman Shohag ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৭ এএম says : 0
একে আর কিছুদিন ইসলামিক ফাউন্ডেশন এ রাখলে পুরো ফাউন্ডেশন ই বেছে ফেলবে।
Total Reply(0)
Nur Nabi ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৭ এএম says : 0
রিমান্ডে নিলে আরো বের হবে
Total Reply(1)
Yourchoice51 ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:০৫ এএম says : 0
ছিঃ! ছিঃ! কি বলেন, কার রিমান্ডে তাকে দেয়া যায়; কোটি কোটি টাকা যিনি এতদিন পকেটে ঢুকিয়েছেন; ওখান থেকে ছিটে-ফোটা দিলে উনিতো জামাই আদর পাবেন। একটু সবুর করুন, কবর তো ওনাকে ডাকা-ডাকি করছে; ওখানে গেলে সব ফায়সালা হয়ে যাবে।
Shaheed S Hasan ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:১৩ এএম says : 0
ধার্মিক হলেই যে সে ভাল মানুষ হবে এমন কথা কেউ বলতে পারবেনা। আর ভাল মানুষ সে ধার্মিক না হলেউ হতে পারে। আমাদের ধার্মিক হবার চেয়ে ভাল মানুষ হওয়াটা অনেক বেশী জরুরী ।
Total Reply(0)
Muhammad Abdul Quiyum ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:১৮ এএম says : 0
Strong action should be taken against all corrupted government officers. If this type of corruption going on, whole country will be in great problem in future. Government should alert.
Total Reply(0)
Md.Harun al Rashid ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:১৯ এএম says : 0
Is this thief above the law and order of the country?Why he is speared repeatedly? He deserve lashing publicly for misappropriation of public money.
Total Reply(0)
Mustafa Ahsan ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:০০ এএম says : 0
সরকারের প্রতিটি সেক্টরে তাদের দূরনীতিবাজ তলপিবাহকদের বসানো হয়েছে এবং উপর থেকে নীচ পর্যন্ত চোরের নির্ভয়ে দেশবাসির সামনেই সিনা ফুলিয়ে দিনের পর দিন রিতীমতো ডাকাতি করে দেশ ফাঁকা করে দিয়েছে,এখন যখন সরকার দেখছে এই চুরি ডাকাতি সামাল দেওয়া সম্ভব না হলে .........................
Total Reply(0)
আপন ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:১৯ এএম says : 0
তিনি কাপুরুষতো তাই শরম কম, তার সাথে অারো রাঘবরা অাছে
Total Reply(0)
মজলুম জনতা ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:৩৭ এএম says : 0
এরা যেন কোন রকম ছাড়া না পায়।তা হলে দুর্নিতীর মাত্রা বেড়ে যাবে।
Total Reply(0)
Abu Saleh akon ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:১৬ পিএম says : 0
তার এখন বিচার হয়নি তাহলে দুনিতি রোধ হবে কি করে
Total Reply(0)
unknown ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
how this thief still in the job? is it the picture of the religious leader with a beard and cap? how come is above all the law and order. Sheikh Hasina should hang the person in front of Baitul Mukarram masjid. So people will learn about bribe and dishonesty. Where is RAB? People should wake up these types of people who wear a religious cap and keep the beard. Where is Bangali? Where is Satraleague? Where is Awami league? Punish this guy in front of masjid after Jumah prayer, so all religious people can see.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন