ঢাকা, শুক্রবার , ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঢাকা মহানগর আ.লীগে পরিবর্তনের হাওয়া

১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্মেলন

ইয়াছিন রানা | প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সম্মেলনের মৌসুম চলছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে। কেন্দ্র থেকে শুরু করে ঢাকা মহানগর, জেলা ও উপজেলায় দলীয় আলোচনার মূল বিষয় বস্তু সম্মেলন। নেতাকর্মীদের আড্ডার বিষয় দলে নতুন কে কে পদ পাচ্ছেন আর কে কে বাদ পড়ছেন।

আগামী ২১ ও ২২ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ২১তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। দলীয় সম্মেলনের আগে মেয়াদোত্তীর্ণ সহযোগী সংগঠন আগামীকাল ৬ নভেম্বর কৃষক লীগ, ৯ নভেম্বর শ্রমিক লীগ, ১৬ নভেম্বর সেচ্ছাসেবক লীগ, ২৩ নভেম্বর যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের বিষয়টিও নির্ধারিত হয়েছে ইতোমধ্যে, তবে তারিখ ঘোষণা হয়নি। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের মতে, ১২ ডিসেম্বর ঢাকা উত্তর ও ১৩ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হতে পারে। পদ পাওয়ার জন্য আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়েই দৌড়ঝাপ শুরু হয়ে গেছে। সম্মেলনের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ ইনকিলাবকে বলেন, সম্মেলনে পরিবর্তন আসবে তা নিয়মিত বিষয়। প্রবীনদের জায়গায় নবীনরা আসবে তা চিরাচরিত নিয়ম। সম্মেলনের বিষয়ে একটা কথাই বলবো, স্বচ্ছ, সৎ, দক্ষ, দুর্নীতিমুক্ত নেতারাই সব জায়গায় পদে আসবেন।

এদিকে সম্মেলন নিয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগেও বইছে পরিবর্তনের হাওয়া। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগে শীর্ষ পদে আসতে শুরু হয়েছে দৌড়ঝাপ। মহানগর দুটির বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আগামী সম্মেলনে আর পদে থাকছেন না বলে নেতাকর্মীদের মাঝে আলোচনা রয়েছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শীর্ষ পদে আলোচনায় রয়েছেন, মহানগরের উপদেষ্টা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাড. কামরুল ইসলাম, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সহ-সভাপতি আবুল বাশার, ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির, নুরুল আমিন রুহুল, ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র সাঈদ খোকন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলিপ রায়, প্রচার সম্পাদক ও ঢাকা দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আখতার হোসেন, সাবেক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল আজিজের ছেলে, মহানগর দক্ষিণের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ওমর বিন আব্দুল আজিজ তামিম।

এছাড়াও থানা নেতাদের মধ্যে আলোচনায় আছেন, ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু, সূত্রাপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গাজী আবু সাঈদ। গতবার লালবাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি থেকে সরাসরি মহানগর সভাপতি হয়েছিলেন আবুল হাসনাত।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাড. কামরুল ইসলাম অবিভক্ত মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এবং বর্তমানে মহানগরের উপদেষ্টা। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ আবারও পদে আসার চেষ্টা করছেন। তিনি এবার সভাপতি হতে চান। সাবেক ত্যাগী ছাত্র নেতা হিসেবে দলের জন্য অবদান রয়েছে এবং এক এগারোর সময় দলের পরীক্ষিত নেতা হিসেবে বেশ খ্যাতি রয়েছে তার। শাহে আলম মুরাদ ইনকিলাবকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে যেখানে দায়িত্ব দিবেন আমি তাতেই খুশি।

সহ-সভাপতি আবুল বাশার অরিজিনাল ঢাকাইয়্যা হিসেবে পরিচিত। তিনি রমনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন দীর্ঘদিন। মহানগরের রাজনীতিতে ভাল অবস্থান রয়েছে তার। আরেক সহ-সভাপতি ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুময়ুন কবিরও আদি ঢাকাইয়্যা হিসেবে বেশ পরিচিত। দীর্ঘদিন ধরেই কাউন্সিলরের দায়িত্ব পালন করছেন। স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতা হিসেবে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তার। হুমায়ুন কবির ইনকিলাবকে বলেন, দীর্ঘ ৪০ বছরের রাজনীতিতে এখন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন যে দায়িত্ব দিয়েছেন তা সুন্দরভাবে পালন করেছি। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করেছি। আগামী সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতাদের বাছাই করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মরহুম এম এ আজিজের বড় ছেলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওমর বিন আব্দাল আজিজ তামিম তরুণ নেতা হিসেবে আলোচনায় আছেন। লন্ডন থেকে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনকারী এ নেতা বর্তমানে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদকের পদে আছেন। তার দাদা মরহুম পিয়ারো সরদার ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে শহীদদের স্মরণে প্রথম শহীদ মিনার তৈরী করেছিলেন। পুরান ঢাকাইয়্যা ও তরুণ নেতা হিসেবে মহানগরের সাধারণ সম্পাদকের আলোচনায় রয়েছেন তিনি। তামিম ইনকিলাবকে বলেন, যেকোন আন্দোলন সংগ্রামে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভূমিকা ছিল অন্যতম। বিরোধী দলের আন্দোলন মোকাবেলা করতেও মহানগর ভূমিকা পালন করেছে। আগামী দিনে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যোগ্য নেতৃত্ব বাছাই করবেন আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের নেতারাও নড়ে চড়ে বসছেন। সম্মেলনের আলোচনায় নেতারা বেশ সক্রিয় ও তৎপর হয়ে উঠেছেন। এখানে সভাপতি হিসেবে আলোচনায় আছেন, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, সহ সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এম এ কাদের খান। এছাড়াও মহানগরের সহ-সভাপতি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ও আসলামুল হক সভাপতি হতে পারেন বলে আলোচনায় আছে। সাধারণ সম্পাদকের আলোচনায় আছেন মহানগরের দুই যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, হাবিব হাসান। দুইজনই ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও আলোচনায় আছেন উপ-প্রচার সম্পাদক আজিজুল হক রানা।

শেখ বজলুর রহমান ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ থেকে শুরু করে মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন ও দুইবার সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। সিনিয়র নেতা হিসেবে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিত্ব তিনি।

এস এম মান্নান কচি অবিভক্ত ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক ছিলেন। ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাবিব হাসান ১৯৮৮ সালে হরিরামপুর ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। এরপর বৃহত্তর উত্তরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন দীর্ঘদিন। ঢাকা মহানগর ভাগ হলে তিনি যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান।
সম্মেলনের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ইনকিলাবকে বলেন, সম্মেলনের মাধ্যমে সংগঠন গতিশীল হবে। যারা বিতর্কিত, ক্যাসিনোর সঙ্গে জড়িত, অপকর্মের সঙ্গে জড়িত তারা কেউ পদে আসবে না।###

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
Badsha Islam ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
খুব ভালো উদ্যোগ গ্রহন করেছে আওয়ামীলীগ । আমরা চাই আওয়ামীলীগের দল শুদ্ধি অভিযান ভালো ভাবে পুরন হোক । যারা দলে প্রবেশের মাধ্যমে দলের বিরুদ্ধে কাজ করে সেসব নেতাকর্মীদের সনাক্ত করা হলে আওয়ামীলীগ আরো শক্তিশালী হয়ে উঠবে ।
Total Reply(0)
Akash Rohman ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
আমরা জনগণ খুবই খুশি আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের ঘোষণায়। আমরা জনগণ আশা রাখি আওয়ামী লীগের শুদ্ধি অভিযানে যে সব নেতাকর্মীরা থাকবে অনেক যোগ্য হবে ও দলকে সামনে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে।
Total Reply(0)
আরিফুল ইসলাম রিপন ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
Good news
Total Reply(0)
Alam Chowdhury ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
রাজনৈতিক ঝাকুনিতে নতুন র্কমি সৃষ্টির প্রেরণা ও শক্তি যোগায়। শুভকামনা রহিল।
Total Reply(0)
MD MOSTAFIZUR RAHMAN ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
I do highly appreciate the thoughts and actions being taken by our Honourable Prime Minister Shekh Hasina. May Allah protect her from all adversities and grant her longer life with good returns on this earth and hereafter. May Allah save the nation
Total Reply(0)
Md Mostafizur Rahman Banijjo ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১০ এএম says : 0
সৎ ও ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করতে হবে।
Total Reply(0)
আলাউদ্দীন ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:২০ এএম says : 0
নেত্রী আপনার নিকট সমস্ত নেতাদের রাজনৈতিক জীবনি আছে।আপনার বিবেচনা যাকে ভাল মনে করবে তাকে দিবেন।এমন নেতা দিবেন যে নেতা কর্মীদের মূল্যাাায়ন করে।ঐ নেতার প্রতি জনগনের আস্হা আছে।এমন নেতা দিবেন যারা নির্বাচনে জয় লাভ করতে পারে।এমন নেতাদের নাম পত্রিকা আসতেছে,যারা স্হানীয় নির্বাচনে সকলের চাইতে কম ভোট পাইয়া পরাজয় বরন করবে।এমন নেতা দিবেন স্হানীয় নির্বাচন সকল নির্বাচনে জয় লাভ করতে পারে।
Total Reply(0)
Akter Hossain Tutul ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৪৪ পিএম says : 0
আমরা চাই এম এ কাদেরখান ভাইয়ের মতো একজন কর্মী বান্ধব মানুষের
Total Reply(0)
লিটু ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:১৫ পিএম says : 0
ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ নাজিম উদ্দিনের বিকল্প নেই।ত্যাগি এই নেতাকে মহানগর কমিটির শীর্ষ পদে দেখতে চাই।
Total Reply(0)
Moin ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:০৬ পিএম says : 0
বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম এ কাদের খানকে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে চাই
Total Reply(0)
এ. ই মাহবুব ৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:০৪ এএম says : 0
২৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জনাব হুমায়ুন কবির কে আমি ব্যক্তিগতভাবে জানি, একজন সৎ ভদ্র ও তার এলাকায় একজন জনপ্রিয় নেতা , তিনি এলাকার জনগণের সমস্যা সমাধানে সর্বদা সচেষ্ট থাকেন
Total Reply(0)
Muhammad Ziaur Rahmank ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
পুরান ঢাকার গৌরব ফিরিয়ে আনতে তামিম ভাইকে শীর্ষ পদে দেখতে চাই।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন