ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

গান্ধী পরিবারের বিশেষ নিরাপত্তা প্রত্যাহার

অমিত শাহর বাড়ির সামনে কংগ্রেসের বিক্ষোভ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বিশেষ নিরাপত্তার আওতায় আর থাকছে না গান্ধী পরিবার, তাঁদের জন্যে বরাদ্দ এসপিজি সুরক্ষা তুলে নেয়া হচ্ছে এবার। মোদি সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে এখন থেকে শুধুমাত্র জেড প্লাস নিরাপত্তা পাবেন কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। যদিও গান্ধী পরিবার সূত্রে দাবি, কেন্দ্রীয় সরকারের নেয়া এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে তাঁদের এখনো কিছু জানানো হয়নি। স¤প্রতি একটি নিরাপত্তা পর্যালোচনা শেষে গান্ধী পরিবারের উপর থেকে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা অর্থাৎ এসপিজি সুরক্ষা তুলে নেওয়ার এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে। এখন থেকে এসপিজি সুরক্ষা পাবেন শুধুমাত্র দেশের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী। এসপিজি সুরক্ষায় ৩০০০ জন নিরাপত্তা রক্ষী সুরক্ষা দেয়ার দায়িত্বে থাকেন।
তবে জেড প্লাস সুরক্ষা ব্যবস্থাতেও যথেষ্ট নিরাপত্তার কড়াকড়ি থাকে। জেড প্লাস সুরক্ষা মানে সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে সবসময় বহাল থাকবেন কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) প্রায় ১০০ জন কর্মী।
১৯৯১ সালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর হত্যার পর থেকেই এসপিজি-র আওতায় ছিল গান্ধী পরিবার। তবে মোদি সরকারের সা¤প্রতিক এই সিদ্ধান্তে তাঁদের নিরাপত্তা স্তর কিছুটা হলেও লঘু করা হল বলে মনে করছেন কংগ্রেস নেতা কর্মীরা। মনে করা হচ্ছে গান্ধী পরিবারের এসপিজি সুরক্ষা ব্যবস্থা তুলে নিয়ে জেড প্লাস নিরাপত্তা দেয়াকে ঘিরে রাজনীতি রং চড়তে পারে।
ইন্দিরা গান্ধীকে তার দেহরক্ষীরা হত্যা করার এক বছর পরে ১৯৮৫ সাল থেকে দেশের প্রধানমন্ত্রী এবং তার পরিবারকে বিশেষ সুরক্ষা দিতেই এসপিজি সুরক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রাজীব গান্ধী হত্যার পরে, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এবং তার পরিবারকেও ১ বছর থেকে ১০ বছর পর্যন্ত এসপিজি সুরক্ষা দেয়ার জন্য এসপিজি আইনটি সংশোধন করা হয়েছিল। প্রয়োজনে ওই সুরক্ষার মেয়াদ বাড়ানোর কথাও বলা রয়েছে ওই আইনে।
তবে সরকারি সূত্র মতে, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর পরিবারে এই এসপিজি সুরক্ষা ব্যবস্থাটি নিয়ে প্রতি পাঁচ বছর অন্তর পর্যালোচনা করার বিধান রয়েছে। গত আগস্টেই, সরকার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের এসপিজির নিরাপত্তা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবেগৌড়া এবং ভিপি সিংয়ের কাছ থেকেও ওই সুরক্ষা ব্যবস্থা প্রত্যাহার করা হয়েছিল। তবে ২০১৮ সালে প্রয়াত হওয়ার আগে পর্যন্ত এসপিজি সুরক্ষা পেয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী।
এদিকে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রত্যাহারের পর গতরাতে ভারতীয় জনতা পার্টি বিজেপি সভাপতি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ করেন কংগ্রেস দলের কর্মী-সমর্থকরা। তার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে অবিলম্বে এসপিজি পুনর্বহালের দাবি জানান। সূত্র : এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন