ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দ্রুত তদন্তে নামছে পুলিশ

এসপি হারুনের নানা অনিয়ম

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

অবশেষে নানা নাটকীয়তার পর শেষ পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ ছাড়তে হয়েছে বহুল আলোচিত এসপি হারুন অর রশিদকে। বদলি আদেশের পরও তিনদিন তিনি নারায়ণগঞ্জে অবস্থান করেন। এ নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে পুলিশ বিভাগসহ নারায়ণগঞ্জবাসীর মধ্যে। এছাড়া পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের দুর্নীতি, অনিময়ম, চাঁদা আদায় ও জমি দখলসহ যে সব অভিযোগ রয়েছে তা আমলে নিয়ে তদন্ত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে পুলিশ সদরদফতর। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট্র কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এর মধ্যে। একটি সংস্থার সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

অন্যদিকে বুধবার রূপগঞ্জে ফায়ার সার্ভিসের একটি অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে এসপি হারুনকে দেখে অসন্তুষ প্রকার করার ছবি ও একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রত্যাহৃত এসপি হারুন অর রশিদকে দেখে মুখ ভার করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সেখানে মন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলার একপর্যায়ে এসপি হারুনের ওপর চোখ পড়লে তিনি গম্ভীর হয়ে যান। তবে দুর্নীতি বিরোধী পদক্ষেপ, সন্ত্রাস দমন ও মাদক নিমূর্লসহ দেশের আইন-শৃংখলা রক্ষায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের নানা পদক্ষেপ বরাবরই সাধারন মানুষের প্রশংসা অর্জন করেছে। গত বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, বিভিন্ন অভিযোগের কারণে এসপি হারুনকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের শিগগিরই তদন্ত শুরু হবে। গত রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে এসপি হারুন অর রশীদকে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে (ট্্েরনিং রিজার্ভ) সংযুক্ত করা হয়।

পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের দুর্নীতি, অনিময়ম, চাঁদা আদায় ও জমি দখলসহ যে সব অভিযোগ রয়েছে তা আমলে নিয়ে তদন্ত করার জন্য ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে স্বরাস্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে, এসপি হারুন চাঁদার জন্য একাধিক শিল্পপতিকে তুলে নিয়ে সাজানো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর ভয় দেখিয়েছেন। স¤প্রতি তার বিরুদ্ধে আম্বার গ্রæপের চেয়ারম্যান শওকত আজিজ রাসেলের কাছে চাদা দাবি ও তার পরিবারকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, নানা কর্মকান্ডে বিতর্কিত এসপি হারুন অর রশিদ গাজীপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ আসার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে বিরোধে জড়িয়ে পড়েন। প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে তার বিরোধ প্রকাশ্যে চলে আসে নানা সময়ে। এ নিয়ে চাপা উত্তেজনা ছিল নারায়ণগঞ্জে।
নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল সাংবাদিকদের বলেন, এসপি হারুনের বিদায়ে নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ী মহলে স্বস্তি এসেছে। তার হাত থেকে ব্যবসায়ীদের বাঁচাতে আমাদের কর্মসূচিও দিতে হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে যেসব গুরুতর অপরাধের অভিযোগ উঠেছে সেগুলো তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জীবন বলেন, ৮ কোটি টাকা চাঁদা না দেয়ায় তিনি দেশের একটি বৃহৎ শিল্প গোষ্ঠীর কর্ণধারের স্ত্রী-সšন্তানকে বাড়ি থেকে সন্ত্রাসী কায়দায় তুলে এনেছেন। আইনের রক্ষক হয়ে এমন কাজ যে করতে পারে তার কোন ভাবেই পুলিশ সুপারের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকতে পারেন না। তার বিরুদ্ধে দেশের আরেক শিল্পপতিকেও আটকে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। তাই হারুনের বিরুদ্ধে উঠা সব গুলো অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন তিনি।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম সাংবাদিকদের বলেন, হারুন অর রশিদ দায়িত্বপালনের সময়ে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা সবচেয়ে বেশি হয়রানী ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে। সরকার দলের এমপির পক্ষে কথা বলায় আমার বিরুদ্ধে তার নির্দেশে থানায় জিডিও করা হয়েছে। কিন্তু বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা তার কাছে নিরাপদ ছিল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
Atm Ashaduzzaman ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৬ এএম says : 0
সরকারের আশকারা পেয়ে এই এসপি ধরাকে সরা জ্ঞান করত। সে শওকত আজিজের স্ত্রী-সন্তানকে অপহরণ করে ফৌজদারি অপরাধ করেছে। দেশে আইনের শাসন থাকলে এই এসপি এতক্ষণে কারাগারে থাকত।
Total Reply(0)
মোঃ তোফায়েল হোসেন ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
He earned lots of money by this way and sent outside as many claim. If it's true, it's unfaithfulness to our motherland. Many guys who are living outside sent money into our country. And this guy is sending money outside illegally. The same thing that we found in casino.
Total Reply(0)
সাইফুল ইসলাম চঞ্চল ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
কোন পুলিশ কর্মকর্তা বা কর্মচারী কোন অপরাধ করলে তাকে সেই কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহার করা হয় বা বদলী করা হয় বা কিছু সময়ের জন্য তাকে কর্মবিরতি দেয়া হয় । আর খুব বেশি চাঞ্চল্যকর আলোচিত কোন অপরাধ করলে সাময়িক বরখাস্ত। আহ্ কি মধুর শাস্তি।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
এসপি হারুন তো সরকারের অনেক পেয়ারের লোক। পাঁচ পাঁচবার তিনি ঢাকা রেঞ্জে সেরা এসপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পুলিশের সর্বোচ্চ রাষ্টীয় সম্মান হিসেবে তিনবার বিপিএম ও দুইবার পিপিএম পদক পেয়েছেন। এহেন পুলিশ কর্মকর্তার এই অবস্থা!
Total Reply(0)
MD.ABDUR RAHMAN ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
হারুন যেদিন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নাল আবদীন ফারুককে ধাওয়া করে পিটিয়ে গায়ের জামা খুলে ফেলেছিল সেদিন যদি হারুনকে অন্তত: ‘ক্লোজ’ করা হতো তাহলে পুলিশসহ প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা বুঝতো তারা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী মাত্র এবং তাদের সীমানা কতদূর? তাহলে প্রশাসনের যে বাড়াবাড়ি তা অনেক কমে যেত। কিন্তু সেদিন প্রজাতন্ত্রের আরেক সাবেক কর্মচারী ও তদানীন্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দিন খান আলমগীরের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে থেকে এবং সরকারের প্রায় সবমহলের আশকারা পেয়ে সে হয়ে উঠেছিল আরো দুর্বিনীত।
Total Reply(0)
Mohammad Samsuddin ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
নেতা বলেছিলেন, "খেলা হবে", খেলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের জনসাধারণের কাছে এসপি সাহেবের গ্রহণযোগ্যতা ছিল। রাজনীতিতে কারো পথের কাঁটা হয়ে গেলে, সে কাঁটা কিভাবে তুলতে হয় তা কিছু কিছু রাজনীতিবিদ শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। আপাতদৃষ্টিতে নারায়ণগঞ্জবাসীর দুর্ভাগ্য বলতে হবে, সত্য/মিথ্যা ওপরওয়ালা ভালো জানেন।
Total Reply(0)
নীল আকাশ ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
এস পি হারুন যে কী পরিমান দানবীয় উন্মত্ততায় পৌছেছে, সেটা অনেক ভুক্তভোগী টের পেয়েছেন।
Total Reply(0)
মরিয়মি বিবি ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
ব্যাপারটা খুবই ইন্টারেষ্টিং! নোয়াখালীর এক এমপি সাহেব কে রাস্তার উপরে ফ্লাইং কিক মেরে উনি এসপি হয়েছেন! আর সেই নোয়াখালীর আরেক জনকে কিক মারতে যেয়ে উনি এবার নিজের পা টাই ভেঙ্গে ফেলেছেন!
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
Allegations against SP Harun is dangerous. He has no right stay in polce department. Extortion allegatio.
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫০ এএম says : 0
Good works by government.. harun is the most damn care and corrupted police in BD
Total Reply(0)
সত্য বলবো ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫০ এএম says : 0
প্রশাসনে ভাল কাজ করার কোন সুজগ নাই দেশে। এস পি মহোদয়ের নামে মিথ্যা অপবাদ দেয়া হইতেছে। যেখানে ক্ষমতার খেলা চলে সেখানে ভাল কাজের পরিবেশ থাকবে না।
Total Reply(0)
নাম বলব না। ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৯:৫৮ এএম says : 0
সাংসদকে যখন পেটানো হলো সবাই তখন খুশি হলাম বিনিময়ে না হয় একটু অন্যায় করে ফেলেছে সোনার ছেলে তাতে মন্রী কেন আড় চোখে দেখবে এটা ঠিক না।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন