ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

এসপি হারুনের ডিবি টিম ছিনতাইও করতো

স্টাফ রিপোর্টার নারায়ণগঞ্জ থেকে | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ আনুষ্ঠানিকভাবে নারায়ণগঞ্জ থেকে বিদায় নেয়ার পর প্রতিদিনই চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে। তবে সাহস করে ভুক্তভোগিদের কেউ কেউ মুখ খুললে তারা নাম প্রকাশ করতে রাজি হচ্ছেন না। তাদের, এসপি হারুন চলে গেলেও তার সহযোগী কিছু পুলিশ কর্মকর্তা এখনো নারায়ণগঞ্জে রয়ে গেছেন।

তারা সব কিছু মনিটরিং করছে। সুযোগ পেলে আবারো নানাভাবে হয়রানি করবে। এরমধ্যে ডিবিতে রয়েছে এসপি হারুনের অপকর্ম বাহিনীর বেশি সদস্য। এই সদস্যরা মাদক দিয়ে ফাঁসানো, অপহরণ, ছিনতাই ও ডাকাতি পর্যন্ত করতো। দিন-রাত জেলার বিভিন্ন এলাকায় তাদের হয়রানির শিকার হয়েছে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। টার্গেট টাকা। টাকার জন্য এসপি হারুন পাগল ছিলেন। এরজন্য তার মনে যা চাইতো তিনি তা-ই করতেন। ডিবির একাধিক টিম তার মিশন সাকসেস করতো প্রতিদিন।

এমনই একটি ঘটনার শিকার রূপগঞ্জের রূপসী পেট্রোল পাম্পের স্টাফ অলিউল্লাহ। ৩ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে পেট্টোল পাম্পের নিকট থেকে ডিবির একটি টিম অলিউল্লাহকে জোর করে গাড়িতে তুলে নেয়। তারপর তার হাতে হ্যান্ডকাফ পরানো হয়। অলিউল্লাহর সাথে থাকা ১ লাখ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা ছিনিয়ে নেয় গাড়িতে থাকা ডিবির সদস্য। কিন্তু পরবর্তীতে তার হাতের হ্যান্ডকাফ খুলতে না পেরে হ্যান্ডকাফসহ তাকে নরসিংদী রোডে রাস্তার পাশে ফেলে দেয়। পরে সিকদার পেট্রোল পাম্পের লোকজন রূপগঞ্জ থানা পুলিশের সহায়তায় ঘটনাস্থলে গিয়ে অলিউল্লাহকে উদ্ধার করে।

সিকদার পেট্রোল পাম্পের সূত্রমতে, অলিউল্লাহ ঘটনার দিন ১৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা ব্যাংকে জমা দেন। পরে ব্যাংকে এক ব্যবসায়ী তেল নেয়ার জন্য অলিউল্লাহকে ১ লাখ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা দেয়। এই টাকা নিয়ে সে পাম্পে ফেরার সময় তাকে ডিবি পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যায়। ডিবির কাছে হয়তো তথ্য ছিল অলিউল্লাহর সাথে অনেক টাকা আছে। কিন্তু সে যে পাম্পের ১৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা ব্যাংকে জমা দিয়ে ফিরছিল এটা হয়তো তারা জানতো না। সূত্রটি আরো জানায়, এমন ঘটনা নারায়ণগঞ্জ ডিবি অনেক ঘটিয়েছে। খোঁজ নিলে জানতে পারবেন।
রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসানের সাথে গত শনিবার সন্ধ্যায় যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

এদিকে এমন তথ্যের বাইরে গিয়ে আরো জানা যায়, ডিবির টিমগুলো তাদের গাড়িতে ইয়াবা, অস্ত্র, ফেনসিডিলসহ বেআইনী নানা কিছু রাখতো। পরে দাবিকৃত টাকা না দিলে যাকে যা দিয়ে ফাঁসানো যায় সেই ব্যবস্থা করতো। মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর ছেড়ে দিতো। আর যে দিতো না বা তার কাছে চাহিদা মতো টাকা নেই তখন মিডিয়ার সামনে হাজির করে বাহাবা নিতো এসপি হারুন। মিডিয়াও ফলাও করে সেই সংবাদ প্রকাশ করতো। মোট কথা মিডিয়াকেও মাঝে মাঝে বোকা বানিয়েছে এসপি হারুন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (11)
Mehedi Hasan ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
খোজ নিয়ে দেখেন।আমাদের দেশে এই রকম বহু হারুন আছে।আর এদের যখন ক্ষমতা থাকে তখন কিছু সাংবাদিক এদের পক্ষে এমন কিছু সংবাদ প্রকাশ করে যাতে দুধে ধোয়া তুলসি পাতা।আবার যখন তাদের ক্ষমতা শেষ হয় তখন তাদের নিয়ে এমন বাজে কথা বলে মনে হয়।এরাই এদেশের বড় শত্রুর।
Total Reply(0)
M.a. Sabur ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
সরকারী বেতনে হয়না কি করবে তারা
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
হারুন এর কত টাকা আছে ? শামীম থেকে কম না বেশী ?
Total Reply(0)
জোহেব শাহরিয়ার ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
হারুনকে দ্রুত চাকুরী থেকে বহিষ্কার করা উচিত।।
Total Reply(0)
মোঃ তোফায়েল হোসেন ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
এত দেখে ভয়াবহ অবস্থা। আইনের রক্ষক হয়ে যদি এমন কাজ করে তাহলে সাধারণ জনগণ কার কাছে যাবে। এই সব প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তাদের জন্য সমগ্র পুলিশ ডিপার্টেম এর বদনাম। শুধু বদলি করে এদের রাখলে হবে না। তাদের ও আইনের আওতায় আনা উচিত।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
কি ভয়ন্কর!! একে বরখাস্ত না করে বদলী করার রহস্য কি?? এর হাত কি সরকারের থেকেও লম্বা?
Total Reply(0)
aktaruzzaman ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
ভাইরে পুরাই হিন্দি সিনেমা । বুঝলাম না শুধুমাত্র বদলি কোন ধরনের সাজা? গ্রেপ্তার নয় কেনো?
Total Reply(0)
Faruk Ahmmed ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
এইসব অভিযোগ সত্য হলে এই পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রচলিত আইন অনুযায়ী বিচারের মুখামুখি করা হউক । কিছুদিন আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে এসে প্রবাসিদের সাথে আলোচনা করে দেশে বিনিয়গের অনুরোধ করেন এবং সবধরনের আইনি সহায়তা দেবেন বলে আশ্বাস দেন । কিন্তু বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসনের হয়রানির ভয়ে আমরা প্রবাসিরা কোনভাবেই সাহস করতে পারছিনা এবং দেশে বিনিয়গ করতে পারছিনা ।
Total Reply(0)
Mahadi Hassan ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
বাহ!!! এই না হলে সরকারী চাকরী!!! হাতেনাতে শক্ত প্রমাণ থাকার পরেও চাকরীচ্যুতি তো দূরের কথা, সামান্য বদলী করেই ব্যস, তাও কিনা আবার পুলিশ সদরদপ্তরে????
Total Reply(0)
Asif ul Huq ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
জয়নাল আবেদীন ফারুকের ওপর হামলা করে তিনি সেরা পুলিশ অফিসারের খেতাব পান!
Total Reply(0)
মশিউর ইসলাম ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
If the allegations are true , immediately remove him from the givernment job . He loses all the rights to stay in givernment job.
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন