ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সংসদে তোপের মুখে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

সউদী আরবে গৃহশ্রমিক হত্যা-নির্যাতন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:১৭ এএম

সউদী আরবসহ বিভিন্ন দেশে গৃহশ্রমিকদের শারীরিক নির্যাতন ও হত্যার ঘটনায় সংসদে বিরোধী দলের সদস্যদের তোপের মুখে পড়েন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। এ নিয়ে সংসদে হৈ চৈ করার পাশাপাশি অবিলম্বে সউদী আরবে নারী শ্রমিক পাঠানো বন্ধের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি ও জাতীয় পাটির এমপিরা। জবাবে মন্ত্রী বলেছেন, বিষয়টি নিয়ে আপনাদের থেকে সরকার বেশি চিন্তিত। ইতোমধ্যে এবিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এ সংক্রান্ত প্রথম প্রশ্নটি উত্থাপন করেন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ। এরপর প্রশ্ন করেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্ন ও কাজী ফিরোজ রশীদ। আর এই প্রশ্ন উত্থাপনকালে নারী শ্রমিকদের নির্যাতন-নিপীড়নের বর্ণণা দিতে গিয়ে রীতিমতো বক্তৃতা দিয়ে ফেলেন। এনিয়ে অধিবেশন কক্ষে স্বল্প সময়ের জন্য উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
সুলতান মনসুর প্রশ্ন রেখে বলেন, দেশের মান মর্যাদা ঐতিহ্য রক্ষার স্বার্থে মহিলা শ্রমিক না পাঠিয়ে পুরুষ শ্রমিককে পাঠান। তাহলে ভাল হবে, দেশের মানও বাঁচবে আমাদের মান ইজ্জতও বাঁচবে। পারিবারিক পরিবেশ সুন্দর থাকবে। দেশের মর্যাদা অক্ষুন্ন থাকবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়ে থাকবে, না হলে আমরা দাসত্বের বাংলাদেশে পরিণত হবো।
জবাবে মন্ত্রী বলেন, সবকিছু যেভাবে চিন্তা করা হয়, সেভাবে হয় না। সউদী , মালয়েশিয়া যেখানেই বলেন শ্রমবাজার অনুযায়ী ওনারা যেভাবে চায়, ওই হিসেবেই তো পাঠাতে হবে। না হলে পাঠানোর দরকার নেই। যখন বলা হয় মানুষ পাঠাও, মানুষ চাইলে তো মানুষ পাঠাবো। না চাইলে ওখানে ঠেঁলে তো মানুষ পাঠাতে পারবো না। আমরা চেষ্টা করবো মহিলারা যেন সন্মানজনভাবে ওখানে চাকরি করতে পারে, আর যদি একেবারেই না করতে পারে তাহলে দেখবো, চিন্তা করবো না পাঠাতে, পারি কি না। কথাটা সবকিছু শ্রম বাজার যেখানে যত মানুষ পাঠাতে পারি, এটা দেশের স্বার্থে সেই হিসাব সবাইকে করতে হবে।
প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী বলেন, ক্লেইম যে আছে, নির্যাতনের ক্লেইম যেটা আছে, কেন নির্যাতিত হয় এবং এখান থেকে যেসকল মহিলাদের পাঠাই কোনো ব্রিফিং না দিয়ে কোনো এরআগে কাজী ফিরোজ রশীদ প্রশ্ন উত্থাপনের সুযোগ নিয়ে বলেন, আমাদের ঘরে মা বোন নাই, কেন তাদের কয়েকটা টাকার জন্য পাঠাবো? মহিলাদের সউদী আরব যাওয়া সম্পূর্ণ বন্ধ করতে হবে। আমাদের দূতাবাস কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। মন্ত্রী কোনো খবর রাখেন না, দালালরা পাঠাইছেন ওনি (মন্ত্রী) খালাস। তারা যে ধরণের অন্যায় অত্যাচার করে। দালালরা তাদের নিয়ে ছেড়ে দেয় বেঁচাকেনা হচ্ছে রীতিমতো। সেখানে মেয়েদের হাট বসে, কে কত দাম দিয়ে কিনে নিয়ে যাবেন। এই ভাবে কেনা বেঁচা হয়। অবিলম্বে বন্ধ করবেন কী না। এই টাকার আমাদের প্রয়োজন নেই। এটা বন্ধ করবেন কী না, আমি জানতে চাই।
###

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন