ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

এনবিআর’র লক্ষ্য তিন হাজার কোটি টাকা

আয়কর মেলা শুরু

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে দশমবারের মতো দেশব্যাপী আয়কর মেলার আয়োজন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। আজ বৃহস্পতিবার থেকে মেলা শুরু হবে। রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে সপ্তাহব্যাপী মেলা চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। রাজধানীর মেলা হবে মিন্টো রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে। এছাড়া সব জেলা শহরে চার দিন এবং ৪৮টি উপজেলায় দুই দিন মেলা হবে। পাশাপাশি উপজেলা পর্যায়ে ৮টি গ্রোথ সেন্টারে একদিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এবার করদাতাদের সহজে ও দ্রæত সময়ের আয়কর পরিশোধের সুবিধার্থে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। মেলায় বিকাশ, রকেট, ইউপে, শিওর ক্যাশ ও নগদের মতো মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস (এমএফএস)-এর মাধ্যমে ই-পেমেন্ট সেবা দেয়া হবে। এতে করে করদাতারা সহজে মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কর প্রদান করতে পারবেন।

এনবিআর সূত্র জানিয়েছে, গত বছর মেলায় আয়কর আদায় হয়েছিল আড়াই হাজার কোটি টাকা। আর এ বছর এনবিআরের লক্ষ্যমাত্রা ৩ হাজার কোটি টাকা। এবারের মেলার ¯েøাগান হচ্ছে ‘সবাই মিলে দেবো কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’ এবং প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক রূপকল্প বাস্তবায়ন’।
এবারের মেলায় বরাবরের মতো আয়কর বিবরণীর ফরম দাখিল থেকে শুরু করে কর পরিশোধের জন্য ব্যাংক বুথ পাবেন করদাতারা। তাদের জন্য মেলায় সহায়তাকেন্দ্রে অপেক্ষা করবেন কর কর্মকর্তারা। একই ছাদের নিচে সব সেবা মিলবে। করদাতা শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনলেই হবে। মেলায় ই-টিআইএন নিবন্ধন ও আয়কর বিবরণী গ্রহণ, কর পরিশোধ, আয়কর বিবরণী পূরণে সহায়তা এবং কর শিক্ষা প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা থাকছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেন, এবারের মেলা উপলক্ষে কর সংক্রান্ত তথ্য সংবলিত একটি ওয়েবসাইট এবং কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করা হচ্ছে। ওয়েবসাইট থেকে আয়কর বিবরণী ফরম ও চালান ফরম ডাউনলোড করার পাশাপাশি সব ধরনের নির্দেশিকা পাওয়া যাবে। তাই করমেলার ন্যায় অধিকাংশ সুবিধা ঘরে বসেই ভোগ করতে পারবেন করদাতারা। এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে চার কোটি মানুষ সামর্থ্যবান আছে। এ সামর্থ্যবানদের মধ্যে আয়কর দেন কম সংখ্যক লোক। তিনি বলেন, কর-রাজস্ব আহরণের ক্ষেত্রে আয়কর মেলা অনুপ্রেরণামূলক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেখানে করদাতারা উৎসবমুখর পরিবেশে আয়কর বিবরণী দাখিল ও কর পরিশোধ করতে পারেন। তাই প্রতি বছর মেলার পরিধি বিস্তৃত হচ্ছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য কানন কুমার রায় বলেন, করদাতারা যেন সহজে কর পরিশোধ করতে পারেন সে জন্য কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করা হচ্ছে। মেলা উপলক্ষে এই সেবা চালু করা হলেও মেলার পরও সেটি অব্যাহত থাকবে। তিনি জানান, মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে কর পরিশোধ করার পর বারকোডসহ চালান আসবে, এই চালান ই-মেইলে নিয়ে প্রিন্ট করা যাবে। পরে করদাতারা আয়কর বিবরণী দাখিলের সময় চালানের কপি সংযুক্ত করবেন।

কানন কুমার মনে করেন, কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু হলে কর আহরণ বেড়ে যাবে। কেবল নগদ বা বিকাশ নয়, রকেট-শিওরক্যাশসহ সব ধরনের মোবাইল ওয়ালেট থেকে কর পরিশোধের সুবিধা পাবেন করদাতারা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন