ঢাকা, রোববার , ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

পাকিস্তানে সড়ক অবরোধ করলেও প্রধানমন্ত্রীকে হটাতে ব্যর্থ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে পদচ্যুত করতে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীরা মহাসড়ক অবরোধ করেছে। তবে সংগঠকরা যতটা বিশৃঙ্খলা তৈরি করা যাবে বলে পরিকল্পনা করেছিলেন ততটা করা যায়নি।

রক্ষণশীল জামাতে উলেমা-ই-ইসলাম (জেইউআই) প্রধান ফজলুর রহমানের নেতৃত্বে দক্ষিণাঞ্চলীয় করাচি শহর থেকে আজাদি মার্চ শুরু হয়েছিলো ২৭ অক্টোবর। তার হাজার হাজার সমর্থক ৩১ অক্টোবর রাজধানী ইসলামাবাদে পৌঁছে। তারা সেখানে নগরীর প্রধান মহাসড়কে দুই সপ্তাহ অবস্থান করে। গত বুধবার রহমান তার সমর্থকদের নির্দেশ দেন সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে সড়ক যোগাযোগ অচল করে দিতে। একে তিনি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ‘পরিকল্পনা বি’ হিসেবে আখ্যা দেন। খানের বিরুদ্ধে ভোট জালিয়াতি ও অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনার অভিযোগ তার। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার বিক্ষোভকারীরা ইসলামাবাদ ও আফগানিস্তানের মধ্যে গ্রান্ড ট্রাঙ্ক রোড অবরোধ করে। ফলে দীর্ঘ যানজট তৈরি হয়। হাইওয়ে অবরোধকারীদের একজন মুফতি ওয়াইস আজিজ বলেন, আমাদের নেতা অন্যকোন নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত আমরা এখানেই থাকবো। দক্ষিণাঞ্চলীয় সিন্ধু প্রদেশকে পাঞ্জাবের সঙ্গে যুক্তকারী জাকোকাবাদ শহর থেকেও একই ধরনের বিশৃঙ্খলার খবর এসেছে। তবে বিভিন্ন জায়গায় কর্তৃপক্ষ যানবাহনকে ভিন্ন পথে ঘুরিয়ে দেয়। বিক্ষোভকারীরা চীনের সঙ্গে সংযোগকারী কারাকোরাম হাইওয়ের মতো অন্যান্য রুট অবরোধ করেছে বলে খবর পাওয়া যায়নি। বুধবার সন্ধ্যায় রহমান যেসব রুট অবরোধ করা হবে বলে ঘোষণা দেন, এটা তার একটি।

বিক্ষোভকারীদের মোকাবেলা করার ব্যাপারে সরকার আত্মবিশ্বাসী। গত বছর ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে খানের সরকার যে দুর্নীতি বিরোধী ও অর্থনৈতিক সংস্কার শুরু করেছে তার বিরুদ্ধে এটাই বিরোধী দলের প্রথম চ্যালেঞ্জ।
তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী মঙ্গলবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন যে ইসলামাবাদের অবস্থান ধর্মঘট ব্যর্থ হয়েছে। তিনি বলেন, এই বিক্ষোভের কারণে দেশের ধর্মভিত্তিক রাজনীতির ক্ষতি হয়েছে। এমন এক সময় এই বিক্ষোভের ডাক দেয়া হলো যখন ২০ কোটি লোকসংখ্যার দেশটি গুরুতর অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে।
অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে উঠতে খানের সরকার তার অনেক প‚র্বস‚রির মতো গত জুলাইয়ে আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল থেকে ৬ বিলিয়ন ডলার ঋণ নিতে বাধ্য হয়।

বিরোধীরা বলছে যে, খানের সরকার অবৈধ এবং সেনাবাহিনীর আজ্ঞাবহ। পাকিস্তানের ইতিহাসের অর্ধেকটা সময় সেনাবাহিনী দেশ শাসন করেছে এবং দেশের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা নীতি প্রণয়নে গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা পালন করে। তবে সেনাবাহিনী রাজনীতিতে নাক গলানোর অভিযোগ অস্বীকার করে। আর পদত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন ইমরান খান। স‚ত্র : সাউথ এশিয়ান মনিটর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Mozammel Hossain ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৭ এএম says : 0
পাকিস্তানের গনতন্ত্র এখনো টিকে আছে মানুষ প্রতিবাদ করতে পারে সেই অধিকারটুকু আছে অন্তত আর আমাদের গনতন্ত্র পুলিশ আর র‍্যাবের হাতে।
Total Reply(0)
Md Shamim Hasan ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
ইমরানের বিরূদ্ধে যারা আন্দোলনের ডাক দিয়েছে তাদের বলবো ইমরানের জনপ্রিয়তা যাচাই করতে বাংলাদেশের দিকে তাকাও,তারপর আন্দোলনের ডাক দাও
Total Reply(0)
Uzzal Khan ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
পাকিস্তানীরা বেশি বুঝে সিরিয়ার মত অবস্থা সৃষ্টি করতে চাই, কাশ্মির নিয়ে চিন্তা নাই, অন্যর উসকানিতে পাগল মত সিদ্ধান্ত নিচ্ছে....
Total Reply(0)
Nur Hossain ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৮ এএম says : 0
ইমরান খান নতুন ইতিহাস গড়েছেন। বাংলাদেশের ভোট চোর অবৈধ সরকারের মত পুলিশ দিয়ে বাধা প্রদান করছে না গনতান্ত্রিক আন্দোলনে।
Total Reply(0)
Md Rakib ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
ভারত বস্তা ভরা টাকা দিয়ে ওকে কিনেছে আর আজাদী মার্চ করতে বলেছে।তাই করছে।ইমরাণ খানের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ফল শুভ হবেনা।ফজলুলের পরে ইউটার্ণ করতে হবে।
Total Reply(1)
Muhammad Saidur Rahman ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ পিএম says : 0
ভারত টাকা দিছে , আপনি দেখছেন ? না দেখলে বিনা প্রমানে কথা বলেন ক্যান ?
Mohammad Hossain ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
আল্লাহ্ তুমি সহায় হোন!যারা পশ্চিমাদের তাবেদার, তাঁদেরকে তুমি নেস্তনাবুদ করে দাও মাবুদ!তেহেরিক ই ইনসাফ পার্টির মদদ কর মাবুদ!ইমরান খানকে যথাযথ সিদ্বান্ত নেওয়ার তাওফিক দান কর।
Total Reply(0)
M K Ahmed Shuvo ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১:০৯ এএম says : 0
নিংসন্দেহে এটা আমেরিকার চাল।মিশরের প্রধানমন্ত্রী মুরশিকে যেমন নিজ দেশের কিছু কুকুর লেলিয়ে ক্ষমতাচ্যুত করেছে সেই প্রতিচ্ছবি এখন দেখা যাচ্ছে
Total Reply(0)
ash ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২২ এএম says : 0
THOSE MOLLAS WILL DESTROY PAKISTAN ! HOW THEY DID TO AFGANISTAN !!
Total Reply(0)
মাসুদ ২০ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১০ পিএম says : 0
ফজলুর রহমান একটা ক্ষমতা লোভী নেতা। ইমরান খান এই সময়ে পাকিস্তানের এবং মুসলিম বিশ্বের জন্য এক গুরুত্বপূর্ণ সরকার প্রধান।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন