ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

তিন যুগ ধরে সিনেমায় অভিনয়ে নানা শাহ্

অভি মঈনুদ্দীন : | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

সিনেমার পর্দায় কখনো তিনি নায়ক আবার কখনো তিনি খলনায়ক আবার কখনো তিনি পজিটিভ চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের কাছে পেয়েছেন গ্রহনযোগ্যতা। তিনি নানা শাহ্। মূলত একজন খল-অভিনেতা হিসেবেই তিনি পরিচিত বেশি। প্রয়াত শিবলী সাদিক পরিচালিত সালমান শাহ শাবনূর অভিনীত ‘আনন্দ অশ্রু’ সিনেমায় খল চরিত্রে অভিনয় করে সবচেয়ে বেশি প্রশংসিত হয়েছিলেন তিনি। তবে তারও আগে ১৯৮২ সালে প্রয়াত আব্দুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত ‘মাটি ও মানুষ’ সিনেমায় চিত্রনায়িকা সায়মার বিপরীতে নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন নানা শাহ্। এরপর তিনি নায়করাজ রাজ্জাকের নির্দেশনায় ‘রাজা মিস্ত্রী’ সিনেমায় অভিনয় করেন। পরবর্তীতে অভিমান করে দীর্ঘদিন অভিনয় থেকে দূরে থাকেন তিনি। অভিমানের বরফ গলার পর আবারো তিনি প্রয়াত হাছিবুল ইসলাম মিজান পরিচালিত ‘প্রেমের কসম’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্যদিয়ে চলচ্চিত্রে ফেরেন। এই সিনেমার নায়ক ছিলেন মাহফুজ আহমেদ, নায়িকা ছিলেন প্রয়াত অন্তরা। তবে একই সময়ে তিনি হাফিজ উদ্দিনের নির্দেশনায় ‘বাজিগর’ সিনেমায় অভিনয় শুরু করেন। এরপর তিনি একে একে অভিনয় করেন ‘পৃথিবী আমারে চায়না’,‘ অধিকার চাই’, ‘তুমি আমার ভালোবাসা’সহ আরো বেশকিছু সিনেমায়। নানা শাহ্ বলেন, ‘আমার বাবা শাহে আলম ছিলেন একজন অভিনেতা। আবার আমার নানা শারফাস খানও ছিলেন মুম্বাইয়ের অভিনেতা। সেই ধারাবাহিকতায় আমর রক্তেও অভিনয়ে প্রতি টান। অভিনয়কে ভালোবেসেই অভিনয়ের দুনিয়ায় আছি আজও। এখনো ভালোবেসে অভিনয় করে যাচ্ছি। দর্শকের ভালোবাসা পেয়ে যাচ্ছি নিয়মিত। দর্শকের ভালোবাসার মাঝেই বাঁচতে চাই। দর্শকের ভালোবাসা যে স্বীকৃতি আমাকে দিয়েছে তার কোন তুলনা হয়না।’ নানা শাহ্ জানান, শিগগিরই তিনি একজন পরিচালকের দুটি সিনেমার কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন। একটিতে তিনি নিজেই নায়ক এবং অন্যটিতে তিনি ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করবেন। ২৫ নভেম্বর থেকে তিনি কাজী হায়াৎ’র নির্দেশনায় ‘বীর’ সিনেমার কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন