ঢাকা, রোববার , ২৬ জানুয়ারী ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

গদিরক্ষা বিপজ্জনক ভেবেই শেখ হাসিনার সরকার প্রতিবাদ করতে পারে না -রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:০০ পিএম

ভারত সফরে অভ্যর্থনা না পেলেও গদিরক্ষা বিপজ্জনক হবে ভেবেই শেখ হাসিনার সরকার কোন প্রতিবাদ করতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, কয়দিন আগে প্রধানমন্ত্রী কলকাতা সফর করে আসলেন রাষ্ট্রীয় কোষাগারের টাকা খরচ করে। বলা হচ্ছে, তিনি নাকি সরকারি আমন্ত্রণে কলকাতা গিয়েছেন। একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে আমরা লজ্জিত, বিস্মিত, আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে কোন অভ্যর্থনা পর্যন্ত দেয়া হয়নি। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী তো দূরের কথা কোন সিনিয়র সচিবকেও পাঠানো হয়নি। তাঁকে রীতিমতো অপমান করা হয়েছে। কিন্তু গদিরক্ষা বিপজ্জনক হবে ভেবেই শেখ হাসিনার সরকার প্রতিবাদ করতে পারে না। মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। রুহুল কবির রিজভী বলেন, জনগণের অধিকার হরণ করে ভোটের আগের রাতে ভোট ডাকাতি করে কিংবা বিনা ভোটের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী হয়ে তিনি যখন দাম্ভিকতার সহিত জনসন্মুখে যিনি বক্তব্য রাখতে পারেন তিনি তো একটি স্বাধীন দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েও পার্শ্ববর্তী দেশের কোন প্রটোকল না পেলেও লজ্জিত না হয়ে যে উল্লসিত হবেন এটাই স্বাভাবিক। এসব কর্মকা-ে দেশবাসী লজ্জিত হয়, জাতি হিসেবে বাংলাদেশের জনগণের মান সম্মানের হানী ঘটলেও প্রধানমন্ত্রীর টনক নড়ে না। তিনি বাংলাদেশের মানুষের আত্মমর্যাদা, মান সম্মান মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছেন।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, এখন কথায় কথায় বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক নাকি সর্বোচ্চ পর্যায়ে। আসলে অপ্রিয় হলেও বাস্তবতা এখন এমনি পর্যায়ে দাঁড়িয়েছে যে, শেখ হাসিনা এখন রাষ্ট্রের টাকা খরচ করে, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করে তথাকথিত উচ্চপর্যায়েই ঘুরছেন, উড়ছেন। কিন্তু নিচে যে স্বাধীন দেশের আঠারো কোটি মানুষের স্বার্থ জড়িত রয়েছে, সম্মান জড়িত রয়েছে, সেগুলো এখন নতজানুর চোরাবালিতে ডুবে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে বাংলাদেশ বঞ্চিত। ‘গরু চোর’ অপবাদ দিয়ে প্রায়শ:ই সীমান্তে বাংলাদেশের নাগরিকদের নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে। অথচ প্রতিবাদ করার সামর্থ হারিয়ে ফেলেছে বর্তমান অবৈধ সরকার। শিরদাঁড়া সোজা না থাকলে, শির উঁচু করে কথা না বলতে পারলে, বুকের পাটা না থাকলে এমনই হয়।

সরকারের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ইতিহাসের এক বিরল প্রজাতির সরকার বাংলাদেশের বর্তমান ডাহা মিথ্যাবাদী সরকার এবং এই সরকার পরিচালনায় নিয়োজিত আত্মমর্যাদাহীন নেতৃত্ব আর কখনো দেখা যায়নি। শুধুমাত্র ক্ষমতায় থাকার জন্য দেশের মানুষের সম্মান নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একটি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের মান মর্যাদা তিনি ধুলোয় মিশিয়ে দিচ্ছেন। একটি স্বাধীন দেশের আত্মমর্যাদাকে ম্লান করে দিচ্ছেন। অন্য দেশের সঙ্গে গোপন এবং দেশের স্বার্থবিরোধী চুক্তির রেশ কাটতে না কাটতেই সম্প্রতি আবারো খেলা দেখার নাম করে যে মর্যাদাহানীর নজির স্থাপন করলেন তা একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে দেশবাসী বিব্রত। যারা দিনের ভোট রাতে করে তাদের পক্ষেই এটি সম্ভব।

এসময় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল এর জামিন নামঞ্জুর করে গতকাল তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া বিএনপি’র সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমানকে বরিশাল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তাদের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ নি:শর্ত মুক্তি দাবি করছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Miah Muhammad Adel ২৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:১৯ পিএম says : 0
Albeit, true.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন