ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ২৩ জানুয়ারী ২০২০, ০৯ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পাকিস্তানে ১৫টি বাণিজ্য প্রতিনিধি দল পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২৭ পিএম

বাণিজ্য সম্প্রসারণের সম্ভাবনা অনুসন্ধানের জন্য আগামী বছর পাকিস্তানে ১৫টি বাণিজ্য প্রতিনিধি দল প্রেরণের পরিকল্পনা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- বলেছেন দেশটির সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালিস ওয়েলস। ওয়াশিংটন থিংক-ট্যাঙ্ক উইলসন সেন্টারে গত সপ্তাহে পড়া একটি গবেষণাপত্রে ওয়েলস-এর এই তথ্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যা চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের (সিপিসি) উপর যথেষ্ট মনোনিবেশ করেছিল। তবে এতে মার্কিন-পাকিস্তান বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন পরামর্শও অন্তর্ভুক্ত ছিল ।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের অফিসিয়াল সাইটে প্রকাশিত এই কাগজে বলা হয়েছে যে, মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ ‘এরই মধ্যে পরবর্তী বছরে ১৫টি বাণিজ্য প্রতিনিধি দল নিয়ে পাকিস্তানে তার কার্যক্রম বাড়িয়েছে’। এবং একবার নতুন প্রসারিত ডেভলপমেন্ট ফিনান্স কর্পোরেশন (ডিএফসি) চালু হয়ে গেলে, ‘পাকিস্তান হবে বড় আগ্রহের দেশ’।

কাগজ অনুসারে, বিদেশী বেসরকারী বিনিয়োগ কর্পোরেশনের (ওপিক) তুলনায় ডিএফসির বিনিয়োগের পরিমাণ দ্বিগুণেরও বেশি হবে, যা ২৯ বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে ৬০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হবে। ওপিক একটি মার্কিন সরকারি সংস্থা যা বিদেশী বিনিয়োগের জন্য ব্যক্তিগত মূলধনকে একত্রিত করে। কাগজটি যুক্তি দিয়েছে যে, ক্যাপিটাল দ্বিগুণ করার ফলে এমন প্রকল্পগুলিতে বিনিয়োগ সক্ষম হবে যা উচ্চ মানের এবং দীর্ঘ মেয়াদে আর্থিকভাবে টেকসই হয়।

এই অতিরিক্ত মার্কিন সম্পদ থেকে পাকিস্তানকে উপকৃত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে অ্যালিস ওয়েলস গত সপ্তাহে ইসলামাবাদকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন যে, ‘সত্যিকারের টেকসই উন্নয়ন সত্যিই ম্যারাথন, স্প্রিন্ট নয়। এটির জন্য কার্যকর নিয়ামক কাঠামো, আইনের শক্তিশালী শাসন, রাজস্বাস্থ্য এবং একটি কার্যকর ব্যবসায়িক পরিবেশের বিকাশ প্রয়োজন। তিনি স্মরণ করিয়ে দেন যে, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জুলাই মাসে যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘আমাদের মার্কিন-পাকিস্তান বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সম্পর্ক বাড়িয়ে তোলার জন্য সম্ভাবনা সম্পর্কে অত্যন্ত উৎসাহী ছিলেন এবং আমাদের উভয় সরকার এটি করার জন্য ব্যবহারিক উপায়গুলি খুঁজে পেতে খুব কঠোর পরিশ্রম করছে। তিনি বিশ্বব্যাংকের ২০২০ ইজি অফ ডুয়িং বিজনেস র‌্যাঙ্কিংয়ে ২৮টি সøট বাড়ানোর জন্য এবং বিশ্বব্যাপী শীর্ষ দশ সংস্কারকদের একজন হিসাবে চিহ্নিত হওয়ার জন্য পাকিস্তানের প্রশংসা করেছেন,’ যোগ করেন তিনি।

এই কাগজটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং পাকিস্তানের মধ্যে কিছু বাণিজ্যিক সংযোগের কথাও উল্লেখ করেছে যেমন, মার্কিন সংস্থা এক্সেলেরেট পাকিস্তানের প্রথম এলএনজি টার্মিনালে ভাসমান স্টোরেজ রেসিফিকেশন ইউনিটকে আপগ্রেড করার জন্য ৩০০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি বিনিয়োগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

এক্সনমোবিল নতুন এলএনজি সরবরাহ অ্যাক্সেসের জন্য পাকিস্তানের উচ্চাভিলাষী প্রচেষ্টাকে সমর্থন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। গত পাঁচ বছরে পেপসিকো তার অবকাঠামো সম্প্রসারণ ও পণ্য বৈচিত্র্য আনতে ৮০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে এবং কোকাকোলা গত কয়েক বছরে পাকিস্তানিদের হাজার হাজার কর্মসংস্থান সরবরাহ করে ৫০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

উবার টেকনোলজিস ২০১৬ সালে পাকিস্তানের বাজারে প্রবেশ করেছে এবং বর্তমানে নয়টি শহর জুড়ে এটি পরিচালনা করে, হাজার হাজার পাকিস্তানির কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছে।

গবেষণাপত্রটি যুক্তি দিয়েছে যে, মার্কিন কর্পোরেট সামাজিক মডেলগুলি অসামান্য যানবাহন যা এই বিদেশী বিনিয়োগগুলির সাথে যুক্ত স¤প্রদায়ের জন্য চাকরি এবং সুযোগ তৈরি করে।

সুতরাং, মার্কিন-পাকিস্তান মহিলা পরিষদ, উদাহরণস্বরূপ, আমেরিকান এবং বেসরকারী খাত, পাকিস্তানি বেসরকারী খাতের মধ্যে পরামর্শদাতা মহিলা এবং মেয়েদের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার করে। আর একটি আমেরিকান ব্র্যান্ড, কেএফসি, শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশু এবং অন্যান্য সুবিধাবঞ্চিত তরুণদের পড়াশোনা সমর্থন করে, সারা পাকিস্তান জুড়ে স্কুলের অংশীদারিত্ব করে।

প্রক্টর এবং গাম্বলের শিশুদের নিরাপদ পানি কর্মসূচিটি পাকিস্তানের নিম্ন আয়ের মানুষের প্রয়োজন অনুসারে ৮৭৫ মিলিয়ন লিটার পরিষ্কার পানি সরবরাহ করেছে।

মার্কিন সংস্থাগুলি উন্নতমানের প্রযুক্তি এবং প্রযুক্তি নিয়ে আসে উল্লেখ করে এই গবেষণাপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে যে, পাকিস্তানী নেতারা প্রায়শই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কার্গিল এবং কর্টেভা জাতীয় সংস্থাগুলির প্রশংসা করেন, যারা সমালোচনামূলক প্রযুক্তি পাস করে ‘পাকিস্তানের বিশাল কৃষিক্ষেত্রে বিপুল উৎপাদনশীলতা অর্জন’ চালাচ্ছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র লাস্টস, আইবিএ, জেপিএমসি এবং নাস্টে অ্যাডভান্সড স্টাডিজ ইন এনার্জি সেন্টারসহ পাকিস্তানের কয়েকটি মর্যাদাপূর্ণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং কেন্দ্র স্থাপনে সহায়তা করেছে।

‘এবং স্পষ্টভাবে বলতে গেলে মার্কিন-পাকিস্তান উন্নয়ন অংশীদারিত্ব প্রাথমিকভাবে গ্রহণ করা হয়েছে অনুদানের রূপে - ঋণ রূপে নয়,’ মিস ওয়েলস যোগ করে বলেন, এই জাতীয় লিঙ্কগুলি ‘আমরা যে দিকটি কল্পনা করি সেটির অনুভূতি দেয়’। সূত্র: ডন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন