ঢাকা, সোমবার , ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৬, ০১ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মেয়র আইভীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা

শামীম ওসমান ইন্ধনদাতা

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে : | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:১৫ এএম

শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তার সমর্থকদের ওপর হামলার ২২ মাস ১৮ দিন পর আদালতে মামলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ফাহমিদা খাতুনের আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে বুধবার বিকেলে সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে মামলাটি করেন।
নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলায় ঘটনার দিন অস্ত্র প্রদর্শনকারী নিয়াজুল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজামসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত প্রায় ৯০০ থেকে ১০০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন- মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগকর্মী নাসির উদ্দিন ওরফে টুন্ডা নাসির, যুবলীগ নেতা চঞ্চল মাহমুদ। মামলায় শামীম ওসমানকে ইন্ধনদাতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।
এই ঘটনায় এর আগে গত বছরের ২৩ জানুয়ারি সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলেও তা মামলা হিসেবে নেয়া হয়নি।
উল্লেখ্য, ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় মেয়র আইভী ও তার সমর্থকদের ওপর হকার ও সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের সমর্থকরা হামলা চালায়। সংঘর্ষে মেয়র আইভী, সাংবাদিকসহ শতাধিক আহত হন। এই ঘটনায় শামীম ওসমানের সমর্থক নিয়াজুল ইসলামকে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে গুলি চালাতে দেখা যায়। পরে তিনি গণপিটুনির শিকার হন। এদিকে মামলা দায়েরের খবর ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ সকাল থেকেই শহরের চাষাড়া খাজা সুপার মার্কেটের সামনে জলকামান ও সাজোয়া যান নিয়ে সর্তক অবস্থান নেয়।
নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ওসি বলেন, শামীম ওসমান ও তার অনুসারীদের মামলার ঘটনায় এমন প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন কথা। খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের জন্য আগাম প্রস্তুতিমূলক এ ব্যবস্থা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন