ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

তুরস্ক উপকূলের অদূরে নৌকা ডুবে শিশুসহ অন্তত ৪০ জনের মৃত্যু

প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : তুরস্কের অদূরে ইজিয়ান সাগরে এক নৌকাডুবির ঘটনায় অন্তত ৫ শিশুসহ ৪০ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। কোস্টগার্ডের সদস্যরা তীরে ভেসে আসা নারী ও শিশুদের লাশ উদ্ধার করেছে। অভিবাসন প্রত্যাশীরা ওই নৌকাটিতে চড়ে সাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে যাওয়া চেষ্টা করছিল। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
মর্মভেদী এই দৃশ্যগুলো সিরীয় শিশু আইলান কুর্দির কথা মনে করিয়ে দেয়। সেপ্টেম্বর মাসে তুরস্কের একটি সৈকতে আইলানের লাশের ছবিটি বিশ্বব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। ঘটনাস্থল থেকে এএফপি’র এক আলোকচিত্রী বলেন, উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় কানাক্কালে প্রদেশের আয়ভাচিক শহরের কাছের একটি সৈকতে ছড়িয়ে থাকা লাশগুলোর মধ্যে একটি ছোট শিশুর লাশ দেখতে পাওয়া গেছে। এএফপি’র ছবিতে দেখা গেছে মৃত শিশুটির পরনে ছিল গাঢ় রঙের প্যান্ট ও নীল রঙের জামা। তার মুখটি ছোট একটি হ্যাট দিয়ে ঢাকা ছিল। তার পাশে অপর এক লোককে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। অপর একটি ছবিতে একজন তুর্কি সৈন্যকে একটি বডিব্যাগে আর একটি শিশুর লাশ ভরে রাখতে দেখা গেছে।
এএফপি’র ওই আলোকচিত্রী বলেছেন, পানিতে আরো একটি শিশুর লাশ পাওয়া গেছে। সিরিয়া, আফগানিস্তান ও মায়ানমার থেকে এই অভিবাসন প্রত্যাশীরা এই নৌকায় চড়ে নিকটস্থ গ্রিক দ্বীপ লেসবসের উদ্দেশে যাত্রা করে। নৌকাটি তুরস্কের উপকূলে ডুবে যায়। এই মর্মান্তিক ঘটনায় অজ্ঞাত সংখ্যক আরো বেশকিছু শিশু মারা গেছে।
এদিকে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল বলেছেন, সিরিয়া ও ইরাকে শান্তি ফিরে এলে জার্মানীতে আশ্রয় নেয়া অধিকাংশ শরণার্থীই দেশে ফিরে যাবেন বলে তিনি আশা করেন।
মাকের্লের শরণার্থীদের স্বাগত জানানোর ভূমিকার বিরুদ্ধে প্রচন্ড চাপ ছিল। তিনি যুগোসøাভিয়ার সাবেক শরণার্থীদের উদাহরণ দিয়ে বলেন, শান্তি ফিরে এলে ১৯৯০ এর দশকে জার্মানীতে আশ্রয় নেয়া ওই শরণার্থীদের ৭০ শতাংশই দেশে ফিরে গেছে।
নৌকা ডুবিতে প্রাণে রক্ষা পাওয়া এক নারী বলেন, ‘আমরা খুবই মর্মাহত। আমাদের অন্তত ২০ জন বন্ধু এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।’ তিনি কাঁদছিলেন। সৈকত থেকে প্রায় ৫০ মিটার দূর থেকে নৌকাটিকে দেখতে পাওয়া যায়। কোস্টগার্ডের ডুবুরিরা নিখোঁজদের সন্ধানে সেখানে তল্লাশী চালিয়ে যাচ্ছে। মিলিটারি পুলিশ লাশগুলোকে ব্যাগের মধ্যে ভরে মর্গে পাঠাচ্ছে। -সূত্র : এএফপি ও রয়টার্স

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন