ঢাকা শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ০৭ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইরানি বিজ্ঞানীর বিনিময়ে মার্কিন গবেষকের মুক্তি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১১:৩৪ এএম

যুক্তরাষ্ট্রে আটক এক ইরানি বিজ্ঞানীর মুক্তির বিনিময়ে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে আটক চীনা বংশোদ্ভূত এক মার্কিন নাগরিককে মুক্তি দিয়েছে ইরান। সুইডেন সরকারের মধ্যস্ততায় এই বন্দি বিনিময় হয়েছে বলে এক টুইট বার্তায় ইঙ্গিত দিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ। খুব শিগগিরই ওই দুই ব্যক্তি নিজেদের পরিবারের কাছে ফিরবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
অপর এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও আমেরিকান গবেষকের মুক্তির খবর নিশ্চিত করেছেন। পরমাণু চুক্তি নিয়ে দুই দেশের উত্তেজনার মধ্যেই এই বন্দি বিনিময়ের ঘটনা ঘটলো।
২০১৬ সালের আগস্টে বিদেশি সরকারকে সহায়তার অভিযোগে চীনা-আমেরিকান গবেষক জিউয়ে ওয়াংকে আটক করে ইরান। আর গত বছরের অক্টোবরে শিকাগো বিমানবন্দর থেকে স্টেম সেল বিশেষজ্ঞ মাসুদ সোলাইমানিকে আটক করে যুক্তরাষ্ট্র। তার বিরুদ্ধে বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইরানে জীববিজ্ঞান সামগ্রী পাঠানোর চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়। তবে উভয়েই তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।
গতকাল শনিবার, এক টুইট বার্তায় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ লিখেছেন, আনন্দের খবর যে অধ্যাপক মাসুদ সোলাইমানি ও জিউয়ে ওয়াং শিগগিরই তাদের পরিবারের কাছে ফিরে যাচ্ছেন। সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ, বিশেষ করে সুইডেন সরকারকে।
অপর এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ওয়াংকে গুপ্তচরবৃত্তির অজুহাতে আটক রাখা হয়েছিল। তিনি বলেন, বন্দি থাকা আমেরিকান নাগরিকদের ফিরিয়ে আনা আমার প্রশাসনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ। আমাদের যেসব নাগরিককে বিদেশে অন্যায়ভাবে বন্দি রাখা হয়েছে তাদের সবাইকে ফিরিয়ে আনা অব্যাহত রাখা হবে।
মাসুদ সোলাইমানির মুক্তির পর তার সঙ্গে তোলা ছবিও টুইটারে প্রকাশ করেছেন জাভেদ জারিফ। আর ওয়াং-এর স্ত্রী হুয়া কু তার স্বামীর মুক্তির কথা নিশ্চিত করেছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, আবারও পূর্ণ হতে যাচ্ছে আমার পরিবার। তিন বছর ধরে এই দিনটির অপেক্ষা করেছি আমি আর আমাদের সন্তান সাওফান। আর এটা ঘটতে যারা আমাদের সাহায্য করেছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।
ইরানে আটক হওয়ার সময় প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ে পোস্ট গ্রাজুয়েট সম্পন্ন করছিলেন ওয়াং। তার মুক্তির খবরে উচ্ছ¡বাস প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
চিরবৈরী এ দুই দেশের বন্দি বিনিময়ের ঘটনা বিরল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দুই দেশের মাঝে কূটনৈতিক সঙ্কট চরম আকার ধারণ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরান বন্দি বিনিময়ে মধ্যস্থতা করায় সুইজারল্যান্ডকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।
সুইজারল্যান্ড সরকারের একটি বিশেষ বিমানে করে তেহরান থেকে জুরিখে গেছেন ওয়াং। সেখান থেকে জার্মানির রামস্টেইন বিমান ঘাঁটিতে যাবেন তিনি। সেখানে মেডিক্যাল চেকআপের পর তাকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হবে।
অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া সোলেইমানিও জুরিখে পৌঁছেছেন। সেখান থেকে তেহরানের উদ্দেশে রওয়ানা করবেন তিনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন