ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ২৩ জানুয়ারী ২০২০, ০৯ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নেপথ্যে অনৈতিক সম্পর্ক, প্রবাসীর স্ত্রী মিশু গ্রেফতার

বানারীপাড়ায় ট্রিপল মার্ডার

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের সাখারী গ্রামে কুয়েত প্রবাসী হাফেজ আব্দুর রবের মা ও ভগ্নিপতিসহ তিনজনকে হত্যার ঘটনায় তার স্ত্রী মিশরাত জাহান মিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের জট খুলতে শুরু করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। হাফেজ রবের স্ত্রী মিশরাত জাহান মিশুর সঙ্গে বাড়িতে কাজ করতে আসা রাজমিস্ত্রি জাকির হোসেনের অনৈতিক সম্পর্কই হত্যাকান্ডের মূল কারণ বলে ধারণা করছে পুলিশ। গতকাল দুপুরে মিশুকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে র‌্যাব-৮ এর হাতে গ্রেফতার হওয়া জাকির ও তার সহযোগী জুয়েলের স্বীকারোক্তিমূলক তথ্যানুযায়ী হত্যাকান্ডের সাথে মিশরাত জাহান মিশুর জড়িত থাকার বিষয়টি সামনে আসে। গ্রাম্য কবিরাজ জাকির হোসেন ও তার সহযোগী জুয়েল হাওলাদারকে আটকসহ লুটপাট করা মালামাল উদ্ধারের মাধ্যমে হত্যার মূল রহস্য উদঘাটন করে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা। রোববার সন্ধ্যায় ওই দুই ঘাতক বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. এনায়েত উল্লাহর কাছে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়ার পরে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে গ্রাম্য কবিরাজ জাকির হোসেন ও তার এক সহযোগী তাদের ঘুম থেকে ডেকে তোলে। এ সময় গৃহকর্ত্রী মিশুকে বিবস্ত্র করে জাকির হোসেন আপত্তিকর ছবি তোলে। তার সাথে থাকা ব্যক্তিকে দিয়ে জাকির হোসেন বিবস্ত্র মিশুকে জড়িয়ে ধরা অবস্থায় বেশ কিছু ছবি তোলায় এবং হত্যাকান্ডের বিষয়ে মুখ খুললে ওই ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হবে বলে মিশুকে হুমকি দেয়।

এছাড়াও ধার্মিক পরিবারের ওই দুই সদস্যকে কোরআন শরীফ স্পর্শ করিয়ে এ বিষয়ে কাউকে না বলার জন্য কসম করানো হয়। হত্যাকান্ডের বিষয় কাউকে জানালে জ্বীনের মাধ্যমে তাদের ক্ষতি করা হবে বলেও কবিরাজ জাকির হোসেন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। বিশেষ করে মিশুর দুই শিশু সন্তানের বড় ধরনের ক্ষতি হবে বলেও হুমকি দেয়। রাতেই মিশু জাকিরের বিকাশ নাম্বারে ৫ হাজার টাকা প্রেরণ করে। রাতের এ ঘটনা দেখে ফেলায় পর্যায়ক্রমে তিনজনকে হত্যা করা হয়।

আছিয়া আক্তার জানান, বিয়ে হলেও তার কখনও সন্তান হবে না এবং মিশু জানান, তার লিভারের রোগ রয়েছে। এ জন্য কবিরাজ জাকির হোসেন তাদের দুইজনকে বিভিন্ন রকমের চিকিৎসা করতেন। বিষয়টি জেনে পুলিশ ওই বাসা থেকে বিভিন্ন রকমের তাবিজসহ অন্য মালামাল উদ্ধার করেছে। এছাড়া জাকির হোসেন জ্বীনের ভয় দেখিয়ে ওই পরিবারটিকে গত তিন বছর ধরে জিম্মি করে রেখেছে।

পুলিশ সূত্র আরও জানায়, শুক্রবার ভোর রাত চারটার দিকে প্রবাসীর স্ত্রী মিশু তার ব্যক্তিগত বিকাশ একাউন্ট থেকে কবিরাজ জাকির হোসেনের বিকাশ একাউন্টে পাঁচ হাজার টাকা পাঠিয়েছেন। যা নিয়ে রহস্য আরও ঘনীভ‚ত হয়। ফলে আলোচিত ট্রিপল হত্যাকান্ডে পরকীয়া প্রেম সংক্রান্ত বিষয়টি সামনে চলে আসে। হত্যাকান্ডে মিশুর কোন সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কি না সে বিষয়টি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি শুধু স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা পয়সা লুটের কারণে না কী পরকীয়া প্রেমের কোন ঘটনা রয়েছে তা বিশেষ গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করছে পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ রোববার প্রবাসীর স্ত্রী মিশরাত জাহান মিশু ও ভাতিজী আছিয়া আক্তারকে থানায় ডেকে আনে। বিকেলে হত্যাকান্ডের শিকার তিনজনের জানাজা ও দাফনের সময় মিশু ও আছিয়াকে পুলিশ প্রহরায় বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাদেরকে আবারও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতেই আছিয়া আক্তারকে ছেড়ে দেয়া হয়।

গ্রেফতার ঘাতক জাকির ও জুয়েলের স্বীকারোক্তির ওপর ভিত্তি করে প্রবাসীর স্ত্রী মিশুকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। তবে জিজ্ঞাসাবাদে তেমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে। থানা পুলিশের ওই সূত্রটি আরও জানিয়েছে মিশরাত জাহান মিশুকে জড়িয়ে ঘাতক জাকির ও জুয়েলের স্বীকারোক্তির বিষয়টি রহস্যজনক বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
MD Saidul ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:১৪ এএম says : 0
এই বয়সে এতো জালা
Total Reply(0)
Syed Bubli ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:১৫ এএম says : 0
মনে এতো প্রেম আসে কোথা থেকে?
Total Reply(0)
SI Islam ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:১৫ এএম says : 0
পরকীয়ার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে আইন করা প্রয়োজন,, হাইকোর্ট সুপ্রিমকোর্ট পরকীয়ার উপর কঠোর হওয়া দরকার,পরকীয়ার অপরাদ সম্পর্কে সচেতন করা দরকার। তানাহলে বর্তমানে পরকীয়া যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ভবিষ্যতে সংসার রক্ষা কঠিন হয়ে যাবে। খুনখারাবি আরো বৃদ্ধি পাবে। তাই আসোন আমরা সবাই সচেতন হয়। বিষেশ করে পরিবারের প্রত্যেক জন সচেতন হওয়া দরকার।
Total Reply(0)
Evergreen Tuhin ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:১৫ এএম says : 0
এই ....রুচী দেখে রীতিমতো বমি আসছে।ছিঃ।
Total Reply(0)
Rakib Rahman ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:১৫ এএম says : 0
যেদিন এই নিউজ টা পড়েছি, সেদিন এটাই সন্দেহ করেছিলাম। খুবি দুঃখ জনক
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন