ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭, ০৬ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

চায়না ও বার্মিজ পেঁয়াজের সরবরাহ প্রচুর, দাম কমছে

মশলায় ভারতের বিকল্প খোঁজার তাগিদ

বগুড়া ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

 বগুড়ায় পেঁয়াজের আড়তে বেড়েছে চায়না ও বার্মিজ পেঁয়াজের সরবরাহ। সে সাথে আসছে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত দেশি কাটা পেঁয়াজের সরবরাহ। আর সরবরাহ বৃদ্ধির কারনে পেঁয়াজের পাইকারি দাম কমতে শুরু করেছে। ২/১ দিনের মধ্যে এর প্রভাবে খুচরা বাজারেও কমে যাবে পেঁয়াজের দাম, জানিয়েছেন বগুড়ার বৃহত্তম পাইকারি আড়ত রাজাবাজার মোকামের আড়তদাররা।

তারা বলেন, সময়মত বিকল্প খোঁজার মানসিকতা থাকলে এবং ভারতের ওপর নির্ভর না করে মশলার বিকল্প বাজার মিয়ানমার, চীন, পাকিস্তান, মিশর ও তুরষ্কের সাথে ব্যবসার প্রসার ঘটলে ভবিষ্যতে হঠাৎ হঠাৎ পণ্যের ঘাটতি বা বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি হবেনা।

সোমবার রাজাবাজারে গিয়ে দেখা গেছে, আড়তগুলোতে পাবনা অঞ্চল থেকে মজুদ করে রাখা দেশি পেঁয়াজ, স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত নতুন পাতা পেঁয়াজ, কাটা পেঁয়াজের পাশাপাশি মিশর মায়ানমার এবং চীনের পেঁয়াজের স্তুপ জমে আছে। বিশেষ করে চায়না ও বার্মিজ পেঁয়াজে মোকাম একেবারে সয়লাব অবস্থা। সোমবার সকালে পরিমল প্রসাদ রাজ নামের একজন আড়তদার নিজের ফেসবুক একাউন্টে চায়না পেঁয়াজের প্রতিকেজি পাইকারি দর ৭০ টাকা হিসেবে উল্লেখ করেন। এক্ষেত্রে অবশ্য ক্রেতাকে ২০/৪০ বা ৫০ কেজি ওজনের কমপক্ষে এক বস্তা পেঁয়াজ কেনার বাধ্যবাধকতা প্রযোজ্য ।

দুপুরের পরে ওই আড়তে গিয়ে দেখা গেল চায়না পেঁয়াজের পাইকারি দর আরো কমে ৬০/৬৫ টাকায় নেমেছে। বৃহৎ আকৃতির কোন কোন চায়না পেঁয়াজের ১পিসের ওজন ৮শ’ ৯শ গ্রাম পর্যন্ত হচ্ছে। ১২০/১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে মিশরের পেঁয়াজ। ১ কেজিতে মিশরের পাওয়া যাচ্ছে ৫/৬ পিস ।

অন্যদিকে মায়ানমারের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০/১৬০ টাকায়। মজুদ করে রাখা পুরনো দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০/ ১৮০ টাকায় । দেখা গেছে বার্মিজ ও দেশি পেঁয়াজে ব্যাপকহারে ট্যাক (গাছ) গজিয়ে ওঠার ভয়ে তা’ আড়তে তুলে দ্রুত বিক্রি করার চেষ্টা চলছে।

আড়তদাররা বলছেন, মায়ানমারের পেঁয়াজ আসছে টেকনাফ থেকে আর চায়না পেঁয়াজ আসছে চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ থেকে। মায়ানমার ও চীনে পেঁয়াজের ঘাটতি না থাকায় ওখান থেকে পেঁয়াজের আমদানি বন্ধ হওয়ার আশংকা কম বিধায় পেঁয়াজের বাজারে স্থিতিশীল পরিস্থিতি বিরাজ করার সম্ভাবনাই বেশি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Nazmulhaque Sapon Amin ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:২৮ এএম says : 0
ভারতের উপর নিরভর কমাতে হবে।
Total Reply(0)
Nazrul Nazri ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:২৮ এএম says : 0
Burma etu kiso korar por o Bengali eat Burma products
Total Reply(0)
Md Zamal ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩০ এএম says : 0
বাংলাদেশে তো সরকার নাই, জনগনের জবাব দিহিতা নাই, সরকারের বিরদি দল নাই, আর মালোইশিয়া সরকার জনগনের কথা বেবে সব কিছুই করেন, মালোইশিয়া অনেক ভর দেশ, তার মানি বাংলাদেশের মত দশ টা দেশের সমান, এই মালোইশিয়া, লোক সংখ্যা তিন কুটি মত হবে, এটা মুসলিশ দেশ,মালোইশিয় এত ভর দেশ সরকার চালাই কোন সমসা নাই দেশ সুনদর চলছে, আর বাংলাদেশে সমসা অনেক গুলু বলে শেষ করা যাবে না,
Total Reply(0)
Kazi Mansura ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩১ এএম says : 0
এবারে পেয়াজে মারবো ভাতে মারবো কাপরে মারবো কৃতি ছাত্রদের পিটিয়ে মারবো সিলিংডার গ্যাস সংযোগ দিয়ে মারবো এবং ট্রেন দূর্ঘটনা দিয়ে মারবো তবুও বলবো উন্নয়নের জোয়ার বইছে এদেশে।
Total Reply(0)
Hedayetul Islam ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩১ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, এদেশে যারা মধ্যবিত্ত ও নিন্ম মধ্যবিত্ত তাদেরকে এভাবে না মেরে একবারে লাইনে দাড় করিয়ে গুলি করে মেরে ফেলেন। এতে করে দেশের উন্নয়ন আর ও এগিয়ে যাবে। আর মাথা পিছু আয়ও বাড়বে।
Total Reply(0)
Sheikh Farid ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩১ এএম says : 0
দেশের মানুষ না খেয়ে থাকুক।এগুলো বাংলাদেশ সরকারের দেখার বিষয় না। বাংলাদেশ সরকারের দেখার বিষয় হচ্ছে জামায়াত-শিবির আর বিএনপি'র কে কি করে আর আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলছে কি-না তা নিয়ে এদের যত মাথা ব্যথা দেশের মানুষ জাহান্নামে জায় জাবে তাতে তাদের কি। তাদের দরকার খমতায় টিকে থাকা।
Total Reply(0)
Jamal Hossain ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩২ এএম says : 0
যখন চাল উৎপাদন হয় তখন বলে যথেষ্ট পরিমাণে চাল মজুদ আছে কোনো সমস্যা হবে না,এমনকি দাম না পেয়ে ধান পুড়িয়ে ফেলে কৃষক। আর এখন দাম বাড়ে কেন?
Total Reply(0)
Naria Nuri ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩২ এএম says : 0
চাল পেঁয়াজকে বলে তোকে নিয়ে এতো আলোচনা আমার হিংসে হয় দেখ আমাকে নিয়ে জেন আলোচনা হয় সে জন্য কি করি পেঁয়াজ বলে কি করবা চাল বলে আমার দাম বাড়িয়ে দিই হা হা হা হা
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন